সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে বিএনপি নেতাকর্মীদের মারধর ও ধরপাকড়ের অভিযোগ  » «   আটকে রেখে তিন সাংবাদিককে পেটালো বুয়েট ছাত্রলীগ  » «   সিরিয়ায় মসজিদ ধ্বংস করল মার্কিন জোট  » «   বাবার স্বপ্ন পূরণে বড় চাকরি ছেড়ে আপনাদের সেবায় এসেছি: রেজা কিবরিয়া  » «     » «   নির্বাচনে ‘সংঘাত’ একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যায় না: সিইসি  » «   জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ২৫ সদস্যের সমন্বয়ক কমিটি  » «   আফগানিস্তানে মার্কিন বিমান হামলায় ১২ শিশুসহ নিহত ২০  » «   মহান বিজয় দিবসে জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা  » «   চমক থাকছে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে  » «   দুই-তিন দিনের মধ্যে ইসিতে যাবে বিএনপি  » «   কাদের সিদ্দিকী রাজাকার, বদমাইশ : মির্জা আজম  » «   নির্বাচনের ৭ দিন আগে ব্যালট পৌঁছে যাবে: ইসি সচিব  » «   রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করতে চান ড. কামাল  » «   যুক্তরাষ্ট্র-অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড কানাডায় বোমা হামলার হুমকি  » «  

মানবসম্পদ সূচক: ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ



নিউজ ডেস্ক:: বিশ্বব্যাংকের করা নতুন মানবসম্পদ সূচকে (হিউম্যান ক্যাপিটাল ইনডেক্স) দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে শিশুর মৃত্যুহার রোধ এবং নারী উন্নয়নে ঈর্ষনীয় সাফল্য পেয়েছে দেশটি। ফলে প্রতিবেশী দুই দেশ ভারত ও পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ।

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, বাংলাদেশে জন্মগ্রহণকারী একটি শিশুর বড় হয়ে কর্মক্ষেত্রে উৎপাদনশীল হওয়ার সম্ভাবনা শতকরা ৪৮ ভাগ। ভারতে এই হার ৪৪ শতাংশ আর পাকিস্তানে ৩৯ শতাংশ। তবে এক্ষেত্রে বাংলাদেশের চেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে শ্রীলঙ্কা ও নেপালে। দেশ দুটির এই হার যথাক্রমে ৫৮ ও ৪৯ শতাংশ।

পাঁচ বছর বয়সী শিশুদের মৃত্যুহার রোধে-ও বেশ উন্নতি করেছে বাংলাদেশ। দেশে প্রতি ১০০ জনের মধ্যে ৯৭ জন শিশুই ৫ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে। ভারত ও পাকিস্তান এই হার যথাক্রমে ৯৬ ও ৯৩ শতাংশ। তবে শ্রীলঙ্কায় শিশুদের বেঁচে থাকার হার প্রায় শতভাগ, অর্থাৎ ৯৯ জন।

বাংলাদেশে চার বছর বয়সী শিশু স্কুল শুরু করলে ১৮ বছর হওয়ার আগে স্কুলজীবনের ১১ বছর শেষ করতে পারে। ভারতে শেষ হয় ১০ দশমিক ২ বছরে। পাকিস্তানে ৮ দশমিক ৮ বছর। শ্রীলঙ্কার ক্ষেত্রে এটি ১৩ বছর।

মানবসম্পদ সূচকে দেশের নারীরা পুরুষের চেয়ে এগিয়ে। বাংলাদেশে প্রাপ্তবয়স্কদের বেঁচে থাকার হার শতকরা ৮৭ ভাগ। ১৫ বছর বয়সীদের ৮৭ শতাংশই ৬০ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকেন। আর দেশে স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠে শতকরা ৬৪ ভাগ শিশুই।

অন্যদিকে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষে রয়েছে সিঙ্গাপুর। দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ স্থানে রয়েছে যথাক্রমে দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও হংকং।

এই সূচকে সবচেয়ে বাজে অবস্থানে রয়েছে আফি্রকার দরিদ্র দেশগুলো। বিশ্ব ব্যাংকের সদস্য ১৫৭ দেশের মধ্যে সবার পেছনে রয়েছে শাদ আর সাউথ সুদান।

ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সঙ্গে বার্ষিক বৈঠকে বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিশ্বব্যাংক। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, শিশুমৃত্যু, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ইত্যাদি বিষয়গুলেঅর ওপর জরিপ চালিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই সূচক।

সূত্র: ইন্টারনেট

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: