শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে দুই পুরস্কার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ডিজিটাল পাঠ্যবই শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের জন্য সহায়ক হবে: শিক্ষামন্ত্রী  » «   কাল পবিত্র আশুরা, তাজিয়া মিছিলে ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ  » «   জেল থেকে বাসায় ফিরলেন নওয়াজ-মরিয়ম  » «   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার সহায়তা  » «   রান্নাঘরের গ্রিল কেটে শাবির ছাত্রী হলে চুরি,নিরাপত্তাহীনতায় ছাত্রীরা  » «   এখনও জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ : যুক্তরাষ্ট্র  » «   মোদিকে ইমরানের চিঠি: পুনরায় শান্তি আলোচনা শুরুর তাগিদ  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতেই বিচার চলবে: আদালত  » «   ফুটপাতের খাবার বিক্রেতা থেকে সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি!  » «   বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «  

মানবতাবিরোধী অপরাধ আ’লীগ নেতাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন চূড়ান্ত



নিউজ ডেস্ক::একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় যশোরের আওয়ামী লীগ নেতা আমজাদ হোসেনসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন চূড়ান্ত করা হয়েছে।

২০১৭ সালের ১৫ মে বাঘারপাড়ার পেমচারা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে আমজাদকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বাঘারপাড়া উপজেলার প্রেমচারা গ্রামের আমজাদ রাজাকার নিজ বাড়িতে রাজাকার ক্যাম্প স্থাপন করেছিলেন। ওই ক্যাম্পের সদস্যরা বহু মানুষকে নির্যাতন, খুন, গুমসহ নানাবিধ অত্যাচার করে।

১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট আমজাদ রাজাকারের নেতৃত্বে ১০-১২ জন একত্রিত হয়ে পাশ্ববর্তী মাগুরার শালিখা উপজেলার সীমাখালি গ্রামের রজব আলীকে বাড়ি থেকে ধরে বাঘারপাড়ার চাঁদপুর গ্রামে নিয়ে আসে এবং ওই গ্রামের একটি আমবাগানে গামছা দিয়ে চোখ ও দড়ি দিয়ে হাত বেঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে জবাই করে।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে খোকন বিশ্বাস বাদী হয়ে মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শালিখা আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে গত ৬ এপ্রিল আদালতের বিচারক শম্পা বসু মামলাটি গ্রহণপূর্বক তা ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে’ পাঠানোর নির্দেশনা দেন। এরপর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল মামলাটি গ্রহণ করে।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- বাঘারপাড়ার প্রেমচারা গ্রামের কেরামত মোল্লা, ওহাব এবং ফসিয়ার মোল্লা।

ওই ঘটনা ছাড়াও আমজাদ রাজাকারের বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালের ১৮ আগস্ট বাঘারপাড়ার উত্তর চাঁদপুর গ্রামের মৃত শফিউদ্দীন বিশ্বাসের দুই ছেলে ময়েন উদ্দিন এবং আয়েন উদ্দিনকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে যখন যে দল ক্ষমতায় এসেছে, আমজাদ সেই দলের নেতা হয়েছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: