বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ধাপে ধাপে জরিমানা নেবে ট্রাফিক পুলিশ  » «   আগামীকাল থেকে আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে ওয়াজ মাহফিল শুরু  » «   ঘরের ছেলে ঘরে ফিরেছে: ইনাম চৌধুরী প্রসঙ্গে মিসবাহ সিরাজ  » «   উল্টো আ’লীগ থেকে বিএনপিতে আসার অবস্থা: মির্জা ফখরুল  » «   এবার তাজমন্দিরে রূপান্তরিত হচ্ছে আগ্রার তাজমহল  » «   বান্দরকে লাই দিলে গাছের মাথায় ওঠে : রাঙ্গাকে ফিরোজ রশীদ  » «   আবরার হত্যায় ২৫ জনকে আসামি করে চার্জশিট জমা  » «   ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সব ঘরে বিদ্যুৎ: প্রধানমন্ত্রী  » «   সরকারবিরোধী হলে ৩০ ডিসেম্বরের পরই রাস্তায় নামতাম : ভিপি নুর  » «   আজ ৭ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী  » «   সিধুকে নিয়ে করা ইমরান খানের মন্তব্য ভাইরাল  » «   পায়ের ওপর দিয়ে বাস, মৃত্যুর কাছে হার মানলেন সেই নারী  » «   পুরোনো বগিতে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলছিল উদয়ন  » «   ট্রেন দুর্ঘটনা: লাশ হয়ে বাড়ি ফিরছেন চাঁদপুরের দম্পতি  » «   ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ১০ জনের পরিচয় মিলেছে  » «  

‘মসজিদ’ সরাতে বললেন তসলিমা!



নিউজ ডেস্ক::বাংলাদেশের অন্যতম বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন ১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশ ত্যাগ করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করে আসছেন। কিছুকাল যুক্তরাষ্ট্রেও বসবাস করেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি ভারত সরকার কর্তৃক ভারতে অজ্ঞাতবাসে অবস্থানের সুযোগ পেয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরেই ভারতের কলকাতায় রয়েছেন বাংলাদেশের নির্বাসিত এই লেখিকা।

বিতর্কিত এ লেখিকা এবার বিমানবন্দরের রানওয়ের মাঝে থাকা মসজিদ সরিয়ে ফেলার দাবি জানিয়েছেন। এক টুইটে তসলিমা দাবি করেন, কলকাতা বিমানবন্দরের রানওয়ের মাঝে মসজিদ থাকার কারণে বিমান উড়তে এবং অবতরণের ক্ষেত্রে সমস্যা হয়। তাই পুলিশের উচিত তা দ্রুত সরিয়ে দেয়া। বুধবার (৪ জুলাই) এ টুইট করেন তসলিমা নাসরিন।

টুইটে তসলিমা লেখেন, ‘কিছু মানুষ কয়েকটি পাথরের টুকরোর মধ্যে সিঁদুর মাখিয়ে তা একাডেমি অব ফাইন আর্টসের সামনের গাছের তলায় রেখেছিল। তাদের উদ্দেশ্য ছিল সেখানে একটা মন্দির নির্মাণ। পুলিশ সেই পাথরের টুকরোগুলো সরিয়ে দেয়। কলকাতা বিমানবন্দরের রানওয়ের মাঝে যে মসজিদ রয়েছে পুলিশের সেটাও সরিয়ে দেয়া উচিত। ওই মসজিদের কারণে বিমান উড়তে এবং অবতরণের ক্ষেত্রে সমস্যা হয়।’

এদিকে এক কমেন্টকারীর প্রশ্নের জবাবে তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘খুব সম্ভবত ওই মসজিদ যখন নির্মাণ করা হয় তখন বিমানবন্দর অনেক ছোট ছিল। কিন্তু পরে বিমানবন্দরের বহর বৃদ্ধি হয়েছে। মুসলিমরা ওই মসজিদ সরিয়ে ফেলার বিরোধী। ওই মসজিদের কারণে দ্বিতীয় রানওয়ে নির্মাণ করা যাচ্ছে না।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: