শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তিন সিটিতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী যারা  » «   ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি: চিদম্বরমের সময় অমিত, অমিতের সময় চিদম্বরম গ্রেপ্তার  » «   অক্টোবর থেকে মোবাইল অ্যাপে মিলবে বিমানের টিকিট  » «   আগামীকাল জুমার নামাজের পর গণবিক্ষোভের ডাক কাশ্মীরিদের  » «   হবিগঞ্জে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে নবজাতক চুরি, নারী আটক  » «   কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশির মৃত্যু, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ  » «   ভীতি কাটাতে চা বিস্কুট খেতে খেতে ভাইভা দেবেন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা  » «   তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   রাস্তার পাশে চা বানাচ্ছেন মমতা! ভিডিও ভাইরাল  » «   ঋণের টাকায় ভারত থেকে অস্ত্র কিনবে বাংলাদেশ  » «   কানাইঘাটে মৃত্যুর পাঁচ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন  » «   কাশ্মীরে ফের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন, গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে আজ  » «   পুলিশের ছেলে বিশ্বের এক নম্বর ডন  » «   জাহালম কাণ্ড: ১১ তদন্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা  » «  

ভারতে আইসিইউর ভিতরেই নাবালিকাকে গণধর্ষণ!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: দিন দিন বাড়ছে যৌন নির্যাতন, ধর্ষণের মতো ঘটনা৷ বয়স্ক থেকে শিশু, বিকৃত লালসার শিকার হচ্ছেন সবাই। কখনও রাস্তায় আবার কখনও বা চলন্ত বাসে কিংবা কখনও বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়েও নারীদের উপর নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে৷ কিন্তু এবার ঘটনাস্থল একেবারেই অন্যরকম। ভারতের একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ-তে। ভর্তি থাকাকালীন গণধর্ষণের শিকার হল এক নাবালিকা। এই ঘটনার পর থেকে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েছে ওই নির্যাতিতা।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের বরেলির বাসিন্দা ওই নাবালিকার বাবা-মা ছাড়া আর কেউ নেই। একদিন বাড়িতে একাই ছিল সে। সেই সময় আচমকাই একটি বিষধর সাপ তাকে ছোবল মারে। গুরুতর অসুস্থ হয়ে যায় নাবালিকা। বাড়ি ফিরে মেয়েকে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন তার বাবা-মা। তড়িঘড়ি নাবালিকাকে উদ্ধার করে স্থানীয় এক বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান তারা।

নাবালিকার শারীরিক অবস্থা এতটাই খারাপ ছিল যে তাকে ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিট বা আইসিইউ-তে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল তার। আচ্ছন্ন অবস্থাতেই নার্সিংহোমের ওই ওয়ার্ডে ভরতি ছিল নাবালিকা। অভিযোগ,সেই সুযোগে বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ-তে তাকে ধর্ষণ করা হয়। ওই নার্সিংহোমের এক কর্মী এবং আরও চার অজ্ঞাতপরিচয় যুবক এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলেই অভিযোগ নাবালিকার। ধর্ষণের সময় নাবালিকার চিৎকার শুনে জড়ো হয়ে যান অন্যান্য রোগীরা। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে হাসপাতাল ছেড়ে চম্পট দেয় পাঁচ অভিযুক্ত।

এই ঘটনার পর থেকে আতঙ্কে ভুগছে নাবালিকা। বাবা-মা ছাড়া অন্য কাউকে দেখলেই ভয় পাচ্ছে সে। আপাতত ওই নার্সিংহোমের জেনারেল ওয়ার্ডেই ভর্তি রাখা হয়েছে তাকে। এই ঘটনায় পকসো আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। নাবালিকার বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। তদন্তকারীদের দাবি, অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্ত ওই পাঁচ যুবকেরও খোঁজও শুরু হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি থাকা অবস্থায় কিভাবে এই ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। যদিও বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: