বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বাংলাদেশে আরো সৌদি বিনিয়োগ চান প্রধানমন্ত্রী  » «   কানাডায় প্রকাশ্যে গাঁজা বিক্রি শুরু, ক্রেতাদের ভিড়  » «   ৩৮৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কার হবে সিলেট ওসমানী বিমানবন্দর  » «   ৪০ ঘণ্টা পর মানারত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দুই নারী জঙ্গির আত্মসমর্পণ  » «   পূজায় বিজিবিকে মিষ্টি পাঠিয়েছে বিএসএফ  » «   উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে ‘ট্রেনে কাটা’ পড়ে মৃত্যু  » «   আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দিচ্ছে না জঙ্গিরা  » «   শিশু জয়নাব ধর্ষণ-হত্যা : ইমরানের ফাঁসি কার্যকর  » «   ‘বেত ও বেলুন দিয়ে মারে,পরে নখে সুই ঢুকিয়ে মাথার চুল কেটে দেয়’  » «   বউকে বৃষ্টিতে ফেলে ছাতা মাথায় ট্রাম্প!  » «   ঋণের পরিবর্তে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব ব্যাংক ম্যানেজারের,অতঃপর..  » «   খাশোগি নিখোঁজ, বেনিফিট অব ডাউটের সুবিধা পাচ্ছে সৌদি  » «   নিরাপদ খাদ্যে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি: ক্যাব সভাপতি  » «   শাবিপ্রবি’র ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ  » «   আত্মসমর্পণ না করলে ‘নিলুফা ভিলায়’ অভিযান আজ  » «  

ভাই পরিচয়ে প্রেমিকার শশুরবাড়িতে প্রেমিক!



নিউজ ডেস্ক::প্রেমিকা বিবাহিত। তাতে কি? মন কি সেসব বুঝতে চায়? তাই ভাই সেজে প্রেমিকার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে হাজির হলেন জিতেন্দ্র নামের এক যুবক। তবে শেষ রক্ষা হলো না তার। অবশেষে প্রেমিকার স্বামীর কাছেই ধরা পড়লেন ওই যুবক। এরপর বেরিয়ে আসলো আসল ঘটনা।

জানা গেছে, গত শুক্রবার জিতেন্দ্র নামের ওই প্রেমিক তাঁর প্রেমিকার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে পৌঁছন। প্রেমিকার বাড়ির লোকজন তাঁর পরিচয় জানতে চাইলে তিনি নিজেকে মেয়েটির খুড়তুতো ভাই বলে পরিচয় দেন। জিতেন্দ্র দাবি করেন, রীতি মেনে তিনি তাঁর দিদিকে বাপের বাড়ি নিয়ে যেতে এসেছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বিহারের শেখপুরা জেলার কমাসি গ্রামে। একটি সর্বভারতীয় হিন্দি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, শেষ পর্যন্ত ওই প্রেমিকের সঙ্গেই প্রেমিকার বিয়ে দিয়ে দিয়েছেন শ্বশরবাড়ির লোকজন।

হঠাৎ ভাই পরিচয়ে আসা ছেলেটিকে দেখে সন্দেহ হয় প্রেমিকার শশুরবাড়ির লোকজনের। সন্দেহ হওয়ায় নববিবাহিতা মেয়েটির স্বামী জয়চন্দ্র তাঁর শ্বশুরবাড়িতে ফোন করেন। সেখান থেকে জানানো হয়, মেয়েকে আনার জন্য কাউকেই পাঠানো হয়নি। এর পরেই ছেলের বাড়ির লোকজনের সন্দেহ দৃঢ় হয়। প্রেমিক জিতেন্দ্রকে আটকে রাখার পর জানা যায় তাঁর আসল পরিচয়।

এর পরে শনিবার পাত্রপক্ষ বাড়িতে পঞ্চায়েতের লোকজনকে ডেকে সালিশি সভা বসায়। সেখানেই প্রেমিক জিতেন্দ্রর সঙ্গেই নববিবাহিতা বধূর ফের বিয়ে দিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত দেন পঞ্চায়েত। পঞ্চায়েতের সিদ্ধান্ত মেনে বিয়ে হয় জিতেন্দ্র এবং তাঁর প্রেমিকার। সেই বিয়েতে অবশ্য মেয়েটির স্বামী জয়চন্দ্রও অংশ নেন বলে দাবি করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, প্রায় এক বছর আগে জয়চন্দ্রর সঙ্গে ওই মেয়েটির বিয়ে হয় কিন্তু ছ’মাস আগে একটি রং নম্বরের সূত্রে ফোনে জিতেন্দ্রর সঙ্গে ওই গৃহবধূর আলাপ হয়। শেষ পর্যন্ত তা প্রেমে গড়ায়। এরপরই ঘটে এই লঙ্কা কাণ্ড।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: