রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর হো‌টে‌লের সাম‌নে বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিএন‌পির বিক্ষোভ  » «   বিশ্বের চতুর্থ ভয়ঙ্করতম সংগঠন মাওবাদী!  » «   ফেঁসে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ড আবেদনকারীরা  » «   শাবিপ্রবিতে ছাত্রী হলের পানিতে মিলছে কেঁচো-জোঁক!  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে বাস চাপায় নিহত ২, আহত ৩  » «   বনে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে ১১ সিংহের মৃত্যু  » «   তাবলিগের সংকট নিরসনে সরকারের পাঁচ নির্দেশনা  » «   গাজীপুরে বেতনের দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ, মহাসড়ক অবরোধ  » «   শূন্যপদের সঠিক তথ্য দিচ্ছে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো  » «   আজ ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট  » «   এবার ক্ষুধার্ত পদ্মার পেটে যাচ্ছে শিবচর  » «   আইসিসি নিজেই মিয়ানমারের বিচারে সক্ষম: জাতিসংঘ মহাসচিব  » «   নাইজেরিয়ায় কলেরা সংক্রমণ; ৯৭ জনের মৃত্যু  » «   ধানের শিষ এখন পেটের বিষ: ওবায়দুল কাদের  » «   যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত, তবে শান্তির পথও খোলা: পাকিস্তান আর্মি  » «  

বৈধ জেলে কার্ড থাকার পরও চাল পায়নি



নিউজ ডেস্ক::মৎস্য সংরক্ষণের কারণে সরকারী অবরোধে বরগুনার আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের প্রায় ২৭ জন জেলেকে তাদের প্রাপ্য চাল দেয়নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ২৭ ফেব্রুয়ারী আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদে জেলেদের মাঝে চাল বিতরনে এসকল ভূক্তভোগী জেলেদের বৈধ জেলে কার্ড থাকা সত্বেও তাদের চাল দেয়নি বলে অভিযোগ করেন একাধীক ভূক্তভোগী জেলে।

সাগর ও নদীতে মা ইলিশ, জাটকা ও বিভিন্ন প্রজাতির মৎস্য রেনু পোনা সংরক্ষনে জেলেদের মৎস্য শিকারে সরকারীভাবে অবরোধ দেয়া হয়। এই অবরোধে গরীব জেলেরা সরকারের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মৎস্য শিকার থেকে বিরত থাকেন। তাই এসময় সকল জেলে পরিবারগুলোকে সরকার মাসে ৪০ কেজি করে ৪ মাসে ১৬০ কেজি চাল প্রতি জেলের নামে বরাদ্দ দিয়ে থাকে। অথচ এই বরাদ্দকৃত চাল আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান একেএম নুরুল হক তালুকদার ও তার দোসররা প্রায় ২৭ জন জেলের বৈধ কার্ড থাকা সত্বেও তাদেরকে চাল দেয়নি।

জেলেদের অভিযোগ তারা কার্ড নিয়ে চালের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে গেলে তাদের সাথে খারাপ আচরন করে চাল নাদিয়ে তাড়িয়ে দেয়া হয়। যারা আদৌ জেলে নয়, তাদের নামে জেলে কার্ড দেয়া হয়েছে এবং চাল দেয়া হয়েছে সচ্ছল পরিবারকে, অভিযোগ করেন জেলে মিজানুর সিকদার, সোহেল শরীফ, আবদুর রব শরীফ, মোঃ হারুন, ছোবাহান মাতুব্বর, আনোয়ার হোসেন, জাফর। তারা বলেন, সরকারের আইন মেনে আমরা অবরোধে নদীতে মাছ ধরা থেকে বিরত থাকি। কিন্তু সরকার থেকে এই অবরোধে আমাদের জেলেদেরকে যে চাল বরাদ্দ দিয়েছে তা যদি আমরা না পাই তাহলে কিভাবে আমরা আমাদের পরিবার পরিজন নিয়ে বাঁচবো ? এই অনিয়মের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এই ভূক্তভোগী গরীব জেলেরা।

জেলেরা চাল পায়নি এ সত্যতা নিশ্চিত করে আরপাঙ্গাশিয়া ইউপি সদস্য মোঃ ফোরকান জানান, মাষ্টাররুলে নাম থাকা সত্বেও অনেক জেলেদের চাল দেয়া হয়নি। চাল পায়নি এমন অনেক জেলে আমার ওয়ার্ডেই আছে।

জেলেদের সকল অভিযোগ অস্বীকার করে আরপাঙ্গাশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল হক তালুকদার বলেন, সকল জেলেদেরকে চাল দেয়া হচ্ছে পর্যায়ক্রমে।

প্রকৃত জেলেদের মাঝে চাল বিতরনে অনিয়মের ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মৎস কর্মকতাকে অবহিত করে তদন্ত সাপেক্ষে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশ্বাস দেন বরগুনার জেলা প্রশাসক মোঃ মোখলেছুর রহমান। মা ইলিশ ও জাটকা ইলিশ সংরক্ষনে সরকারী অবরোধে জেলেদের মাঝে সরকার থেকে যে চাল বরাদ্দ দেয়া হয় তা যেনো প্রকৃত জেলেরা পায় এ প্রত্যাশা ভুক্তভোগী জেলেদের।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: