মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম: ইসি সচিব  » «   হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি হিজড়াদের  » «   সব বাধা উপেক্ষা করে গণশুনানি করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট  » «   অভিজিৎ হত্যা: অব্যাহতি পাচ্ছেন সাতজন, আসামি ছয়  » «   অনুমোদিত ৩টি ব্যাংক সম্পর্কে তেমন কিছু জানেন না অর্থমন্ত্রী  » «   ডাস্টবিনে নেমে ১৫০০ শিক্ষার্থীকে বাঁচানোর আহ্বান  » «   একাদশ সংসদের এমপিদের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   শামীমাকে যা বুঝিয়ে সিরিয়ায় নিয়ে গিয়েছিল আইএস  » «   নিজেই গাড়ি চালিয়ে যুবরাজকে বাসভবনে নিয়ে গেলেন ইমরান খান  » «   আরব আমিরাত ও বাংলাদেশর মধ্যে ৪টি সমঝোতা স্মারক সই  » «   সংঘর্ষ চলছে, পুলওয়ামা হামলার মূল হোতা নিহত  » «   এক দিন বাড়ল দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা, আখেরি মোনাজাত মঙ্গলবার  » «   শুধুমাত্র আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা যায় না: আইনমন্ত্রী  » «   জামায়াতের সবারই রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ  » «   সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জা‌নি‌য়ে মোদিকে শেখ হাসিনার বার্তা  » «  

বেশি রাত পর্যন্ত জাগলে হতে পারে অকালমৃত্যু: গবেষণা



লাইফ স্টাইল ডেস্ক:: অনেক রাত পর্যন্ত জেগে থাকা। সকালে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা। সঙ্গে অনিয়মিত খাওয়া-দাওয়ার অভ্যাস। এমন জীবনযাপনের ফল খুবই মারাত্মক হতে পারে। শরীরে বাসা বাঁধতে পারে মারণ রোগ। এমনটাই জানাচ্ছে সাম্প্রতিক গবেষণা।

বিখ্যাত জার্নাল ‘অ্যাডভান্সেস ইন নিউট্রিশন’-এ গত শুক্রবার প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে রোজ রাত করে ঘুমাতে যাওয়া ও সকালে দেরিতে ওঠার অভ্যেস থেকে হার্টের অসুখ ও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বহুলাংশে বাড়ে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ঘুমের ক্ষেত্রে এমন অভ্যেস যাদের, সচরাচর তাদের রাতের মেনুতেও থাকে মশলাদার এবং গ্লুকোজযুক্ত খাবার। এমনকি, মদ্যপানের প্রবণতাও এদের ক্ষেত্রে বেশি হয়।

তবে এই গবেষণা বলছে, এমন অভ্যেসের বীজ কিন্তু পোঁতা হয়ে যায় প্রতিটি ব্যক্তির শৈশবেই। বড় বয়সে এসে তা-ই ফুলে-ফেঁপে ওঠে। অনিয়মিত জীবনযাপন প্রতিদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়। আর তার থেকেই হার্টের রোগ বা ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে বলে বিজ্ঞানীদের মত।

মানুষের শরীরে রাতের দিকে গ্লুকোজের পরিমাণ থাকা উচিত সবচেয়ে কম।কিন্তু অনেক রাতে, অর্থাৎ ঘুমাতে যাওয়ার ঠিক আগেই ডিনার করার ফলে রাতে শরীরে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়ে।এটিও ক্ষতির অন্যতম কারণ।কাজেই সুস্থ জীবন পেতে চাইলে এই ধরনের লাইফস্টাইল থেকে দূরে থাকাই শ্রেয় বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

সূত্র: এবেলা

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: