সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
হবিগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে তিনজনকে গণপিটুনি  » «   গণপিটুনিতে রেনু নিহতের ঘটনায় আটক ৩ জন রিমান্ডে  » «   ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা  » «   ফের জাতীয় সংলাপের আহ্বান ড. কামালের  » «   জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসা- মিন্নির পক্ষে দুই আবেদনই নামঞ্জুর  » «   উ. কোরিয়ায় নির্বাচন: ভোট পড়েছে ৯৯.৯৮ শতাংশ  » «   এইডস ঝুঁকিতে সিলেট ও মৌলভীবাজার  » «   ঈদের আগেই সরকারি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার ফল  » «   বিমানের ৪৫ হাজার টিকিট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে হরিলুট  » «   মিন্নি নয়, রিফাত হত্যার নেপথ্যে চেয়ারম্যানের স্ত্রী?  » «   পাকিস্তানে নারী আত্মঘাতীর বিস্ফোরণে ছয় পুলিশসহ নিহত ৯  » «   সাইকেল চালিয়ে হজ করতে যাচ্ছেন ৮ ব্রিটিশ মুসলিম  » «   প্রিয়া সাহার মিথ্যা বক্তব্য মার্কিন আধিপত্য বিস্তারের ষড়যন্ত্র : জয়  » «   বাংলাদেশের পোশাক খাতে রপ্তানি বেড়েছে ২২ শতাংশ  » «   ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার শোরুম সিলগালা করলো সিসিক  » «  

বেতন গরিবদের বিলিয়ে পেলেন বিশ্বসেরা শিক্ষকের পুরস্কার



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আফ্রিকার দরিদ্র দেশ কেনিয়ার একটি প্রত্যন্ত গ্রামে গণিত ও পদার্থবিজ্ঞান পড়াতেন তিনি। শিক্ষকতা করে যে বেতন পেতেন তার আশি ভাগ গরীব দুঃখী মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দিতেন। স্থানীয়দের কাছে জনপ্রিয় এই মানুষটিই জিতেছেন বিশ্বের সেরা শিক্ষকের পুরস্কার। যার আর্থিক মূল্য এক মিলিয়ন ডলার।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনে ওই শিক্ষককে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ক্যাথলিক চার্চকেন্দ্রিক ধর্মীয় গোষ্ঠী ফ্যান্সিসক্যানের সদস্য সেই শিক্ষকের নাম পিটার তাবিচি। গত রোববার তিনি অর্জন করেছেন ভার্কি ফাউন্ডেশনের গ্লোবাল টিচার প্রাইজ।

কেনিয়ার পওয়ানি নামক গ্রামে অবস্থিত একটি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন পিটার। যেখানে প্রতি ৫৮ জন শিক্ষার্থীর জন্য রয়েছে একজন শিক্ষক। স্কুলটি শিক্ষাসামগ্রী ছাড়াও নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যে চলে। তাছাড়া যেসব শিক্ষার্থী সেখানে পড়াশোনা করেন তাদের বেশিরভাগই এতিম।

স্কুলটিতে পড়াতে গিয়ে নানান সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে পিটারকে। বিশেষ করে খাবারের অভাব, মাদকাসক্তি, কম বয়সে গর্ভধারণ ও বাল্যবিবাহ সমস্যায় ভুগতে হয়েছে তাকে। তবে এতকিছুর পরেও গত তিন বছরে স্কুলটিতে শিক্ষার্থী বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। আর সেখান থেকে পাস করা বেশিরভাগ শিক্ষার্থী এখন কলেজে পড়ছে।

স্কুলটিতে শিক্ষার্থীদের জন্য নামমাত্র একটি সায়েন্স ক্লাব ছিল। যেখানে দুই-তিনটি কম্পিউটার থাকলেও কাজ করার উপযোগী ছিল মাত্র একটি। শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনস্ক করে তুলতে তিনি বিভিন্নভাবে বিজ্ঞানের উপকরণ সংগ্রহ করার চেষ্টা করতেন। তার একান্ত প্রচেষ্টায় স্কুলটির শিক্ষার্থীরা এখন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।

যুক্তরাজ্যের রয়্যাল সোসাইটি অফ কেমিস্ট্রি থেকেও পুরস্কার এসেছে তাদের ঘরে। যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যে বিখ্যাত সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইনটেলের আয়োজনে ইন্টারন্যাশনাল সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনায়িরারিং ফেয়ারে অংশগ্রহণের জন্য সম্প্রতি মনোনীত হয়েছে স্কুলটির শিক্ষার্থীরা।

তাবিচিকে বিশ্বের সেরা শিক্ষকের পুরস্কার দেয়া লন্ডনভিত্তিক আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ভার্কি ফাউন্ডেশন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, বিশ্বের ১৭৯টি দেশের ১০ হাজার শিক্ষককে পেছনে ফেলে পুরস্কার জিতেছেন পিটার তাবিচি।

পুরস্কার গ্রহণের পর পিটার তাবিচি বলেন, ‘আফ্রিকায় প্রতিদিন আমরা নতুন নতুর অধ্যায়ের সূচনা করছি। আজ তেমনি একটি দিন। এই পুরস্কার শুধু আমাকে মূল্যায়ন করা নয় বরং এই মহাদেশের (আফ্রিকা) সমস্ত তরুণের মূল্যায়ন।’

পুরস্কারের প্রবর্তক ও ভার্কি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সানি ভার্কি বলেন, ‘ব্রাদার পিটারের এই গল্প শিক্ষকতায় আসতে আগ্রহীদের অনুপ্রাণিত করবে। আর কেনিয়াসহ বিশ্বজুড়ে শিক্ষকরা যে অবিশ্বাস্য কাজ করছে তা গুরুত্ব পাবে এর মাধ্যমে।’

দুবাইয়ে এক জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশ্বের সেরা শিক্ষক হিসেবে পিটার তাবিচির নাম ঘোষণা করা হয়। শিক্ষক পিটারের প্রশংসা করেন সেখানে উপস্থিত অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা হুগ জ্যাকমান ও দুবাইয়ের যুবরাজ শেখ হামদান বিন মোহাম্মদ আল মাখুতম।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: