শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চমক থাকছে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে  » «   দুই-তিন দিনের মধ্যে ইসিতে যাবে বিএনপি  » «   কাদের সিদ্দিকী রাজাকার, বদমাইশ : মির্জা আজম  » «   নির্বাচনের ৭ দিন আগে ব্যালট পৌঁছে যাবে: ইসি সচিব  » «   রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করতে চান ড. কামাল  » «   যুক্তরাষ্ট্র-অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড কানাডায় বোমা হামলার হুমকি  » «   ক্ষমা চাইলেন ড. কামাল  » «   মন্দিরের প্রসাদ খেয়ে ১১ জনের মৃত্যু, অসুস্থ ৮১  » «   ২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামছে সেনাবাহিনী, থাকবেন ম্যাজিস্ট্রেটও  » «   ইন্টারনেটে ধীর গতি ও মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ চায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী  » «   প্রার্থিতা নিয়ে শুনানি: আদালতের প্রতি খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের অনাস্থা  » «   আওয়ামী লীগ ১৬৮ থেকে ২২০ আসনে জিতবে: জয়  » «   সিলেট-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী তাহসিনা রুশদীর লুনার মনোনয়ন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট  » «   আম্বানি কন্যার বিয়েতে নাচলেন হিলারি ক্লিনটন [ভিডিও ]  » «   সিলেট-১ আসনে ধানের শীষের প্রচারণার একসঙ্গে মুক্তাদির-আরিফ  » «  

বুধবার মৌলভীবাজারে অর্ধদিবস হরতালের ডাক, প্রতিহতের ঘোষণা আ. লীগের



নিউজ ডেস্ক:: মৌলভীবাজার জেলায় সরকারি মেডিকেল কলেজ বাস্তবায়নের দাবিতে বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) অর্ধদিবস হরতালের ডাক দিয়েছে সচেতন নাগরিক ফোরাম (সনাফ) মৌলভীবাজার। ইতিমধ্যে জেলা শহরের বিভিন্ন জায়গায় হরতালের সমর্থনে বিতরণ করা হয়েছে লিফলেট। এদিকে হরতাল প্রতিরোধের করার কথা ভাবছে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগ।

সোমবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে অর্ধদিবস হরতালের আহবান করে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সচেতন নাগরিক ফোরাম (সনাফ) মৌলভীবাজারের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক।

তিনি জানান, আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর বুধবার ভোর ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস হরতালের কর্মসূচি দেয়া হয়েছে। কিন্তু এই হরতাল নিয়ে ইতিমধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে মৌলভীবাজারে। দীর্ঘ দিন থেকে এ জেলায় সরকারি মেডিকেল কলেজের দাবিতে আন্দোলন করছে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন কিন্তু সনাফের হরতালকে সরকারদলীয় জোট সরকার বিরোধী আন্দোলন হিসেবেই দেখছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও হচ্ছে নানা সমালোচনা।

সরকারদলীয় জোটের বক্তব্য হচ্ছে ইতিমধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মৌলভীবাজার এসে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের আশ্বাস দিয়েছেন। তারপরেও হরতালের মত রাজনৈতিক কর্মসূচি উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সামাজিক সংগঠনের কাজ কখনোই জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয় এমন কর্মসূচির মাধ্যমে হতে পারে না।

মৌলভীবাজার পৌর শহরের বাসিন্দা আব্দুল মোহিত জানান, হরতাল প্রত্যাহার করা উচিত। মৌলভীবাজারে সরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপনে সরকার যথেষ্ট আন্তরিক। রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা থেকে এ হরতালের আহবান করা হয়েছে।

মৌলভীবাজারে মেডিকেল কলেজ স্থাপন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক আন্দোলন করছেন মৌলভীবাজার সম্মেলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদ। তারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন সেমিনারসহ গণস্বাক্ষর কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। এর প্রধান সমন্বয়ক খালেদ চৌধুরী জানান, আমরা দীর্ঘদিন যাবত আন্দোলন করে যাচ্ছি মাঠ পর্যায়ে । কিন্তু হঠাত করে কে যারা এই হরতাল ডেকেছে তাদের সাথে আমাদের কোন সম্পর্ক নেই। জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করে এমন কর্মসূচি কখনো কাম্য নয়।

হরতাল প্রতিরোধের বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিসবাহুর রহমান বলেন, সচেতন নাগরিক ফোরাম নামের যে সংগঠন তারা সবাই বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। তারা মেডিকেল কলেজের আন্দোলনের নামে সরকারবিরোধী আন্দোলন করতে চাইছে। তাদেরকে প্রতিহত করা হবে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের এই হরতালকে প্রতিহত করতে বলবো।

তিনি আরও জানান, মেডিকেল কলেজের জন্য জেলা আওয়ামী লীগ আন্তরিকভাবে কাজ করছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যে মৌলভীবাজারে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের আশ্বাস দিয়েছেন।

সচেতন নাগরিক ফোরাম (সনাফ) মৌলভীবাজারের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক জানান,দীর্ঘ দিন থেকে এ জেলায় সরকারি মেডিকেল কলেজের দাবিতে আন্দোলন হচ্ছে।কিন্তু সংশ্লিষ্টদের টনক নড়ছে না।তাই আমরা ধীরে ধীরে কঠোর আন্দোলনের দিকে যেতে বাধ্য হচ্ছি।এ বিষয়ে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ শাহজালাল জানান,শুনেছি এরা সরকার বিরোধী লোকজন।হরতালের নামে কোন বিশৃঙ্খলার করার সুযোগ তারা পাবে না।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিমের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি ব্যস্ত আছি। এ বিষয়ে পরে কথা বলব।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: