শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

বুকে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ট্যাটু এঁকে বিপাকে যুবক



download (1)নিউজ ডেস্ক :: যুবকের নাম খাইরুল বাশার(৩০)। থাকেন ঢাকার খিলক্ষেতে। দুই যমজ সন্তানের জনক। ছোটখাট ব্যবসা করেন। আর নিজেকে দাবী করেন বঙ্গবন্ধু প্রেমিক হিসেবে। তাই বুকে এঁকেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ট্যাটু। আর এতেই পড়েছেন বিপাকে। তার অভিযোগ অজ্ঞাত ব্যক্তিরা ফেসবুকে তাঁর ট্যাটু দেখে হুমকি দিচ্ছেন। তাই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে আতঙ্কে আছেন তিনি।

খাইরুল বাসার জানান, ছয় মাস আগে তিনি তাঁর বুকে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার স্থায়ী ট্যাটু এঁকেছেন। জয় নামে তাঁর এক বন্ধু থাইল্যান্ড থেকে ট্যাটু আঁকার প্রশিক্ষণ নিয়ে আসার পর তিনি আগ্রহ দেখালে এঁকে দেন। এতে তাঁর খরচ হয়েছে ৮০ হাজার টাকা।

ট্যাটু আঁকার অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন,‘ প্রতিটি ট্যাটু আঁকতে লেগেছে পাঁচ ঘন্টা। সুঁই ফুটিয়ে ট্যাটু আঁকার সময় রক্ত বের হয়, ব্যাথা লাগে। আর আঁকার পর স্বাভাবিক পর্যায়ে আসতে লেগেছে ১৫ দিন।

তাঁর কাছে প্রশ্ন ছিল বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ট্যাটু বুকে কেন এঁকেছেন? তাঁর জবাব,‘ আমি বঙ্গবন্ধুকে ভালবাসি । তাঁর জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হত না। আমি স্বাধীন দেশের নাগরিক হতে পারতাম না। আর বঙ্গবন্ধু কন্যা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়ার কাজ করছেন। আমি চাইলে অন্যভাবেও আমার ভালবাসা প্রকাশ করতে পারতাম। তবে ট্যাটু স্থায়ী। এটা কখনো মুছে যাবে না।’ তিনি বলেন ,‘ আমি সরাসরি রাজনীতি করি না। তবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের দলকে ভালবাসি।

এটি তাঁর দৃষ্টি আকর্ষণের কোন কৌশল কী না? প্রশ্ন করলে তিনি জবাবে বলেন,‘ তা আপনি ভাবতে পারেন। তবে সে চিন্তা থেকে আমি এটা করিনি। আমি ভালবাসা থেকে করেছি।’

তিনি অভিযোগ করেন, এই ট্যাটু আঁকার পর তিনি তা তাঁর ফেসবুকে দেয়ার পর তাকে নানাভাবে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এমনকি মেরে ফেলার হুমকিও দিয়েছে কেউ কেউ। দুই যমজ সন্তান আর স্ত্রী নিয়ে তিনি আতঙ্কে আছেন। বিষয়টি তিনি স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকেও জানিয়েছেন বলে দাবী করেন।

আপনাকে কারা হুমকি দিচ্ছে ? জবাবে বলেন,তিনি বলেন, ‘তাদের পরিচয় আমি জানি না তবে তারা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা বিরোধী বলে তাদের কথায় মনে হয়। তারা টেলিফোনে হুমকি দেয়।’

খাইরুল বাসার জানান, তিনি তার দুই হাতে জাতীয় চার নেতার ট্যাটু আঁকবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর এরইমধ্যে পিঠে এঁকেছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের ট্যাটু। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ট্যাঁটু কেন? প্রশ্ন করলে জবাবে তিনি বলেন,‘ স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আমাকে খুব স্নেহ করেন। তাই তাঁর ট্যাটুও এঁকেছি।’

খাইরুল বাসারের গ্রামের বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুর। তিনি সরাসরি রাজনীতি না করলেও তার স্ত্রী শাহাতুন আরেফিন সুমি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। খাইরুল জানান, বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রীর ট্যাটু বুকে আঁকায় তার দুই সন্তান বিশেষ করে মেয়ে ভূমকি বেজায় খুশি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: