সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

বিশ্বনাথে স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার ফারজানাকে ওসিসিতে স্থানান্তর



IMG_20001-300x169নিউজ ডেস্ক :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় স্ত্রীকে হাত-পা বেঁধে সারা রাত পিটানোর ঘটনায় লন্ডন প্রবাসী স্বামী আনোয়ার আলীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে নির্যাতনের স্বীকার স্ত্রী ফারজানা বেগম বাদি হয়ে বিশ্বনাথ থানায় এ অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে, বৃহস্পতিবার ফারজানাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের ওয়ন-স্টপ ক্রাইসিস সেলে (ওসিসি)ওসিসিতে স্থানাস্তর করা হয়েছে। ওসিসিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি এ অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে।
প্রসঙ্গত, গত সোমবার দিবাগত রাত ১১টার পর আনোয়ার আলী হঠাৎ করে স্ত্রী ফারজানাকে একটি চেয়ারের সাথে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া যায়।
গত কয়েক মাস আগে বিশ্বনাথ উপজেলার পদনাপুর গ্রামের আব্দুর রহমানের লন্ডন প্রবাসী ছেলে আনোয়ার আলী সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ থানার আকিলপুর গ্রামের মাহমুদ আলীর মেয়ে ফারজানা বেগমকে (১৯) বিয়ে করেন। বিয়ের ১১ দিন পর আনোয়ার আলী লন্ডন চলে যান। গত এপ্রিল মাসে তিনি ফের দেশে আসেন। দেশে এসেই তিনি ফারজানার উপর নির্যাতন শুরু করেন। প্রায় দিনই তিনি স্ত্রীকে কোন না কোনভাবে নির্যাতন করতেন বলেন ফারজানা গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন।

এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ রফিকুল হোসেন অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। তদন্তপূর্বক আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: