মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আমার কিছু হলে দায়ী আপনারা মামা-ভাগ্নে: সিইসিকে গোলাম মাওলা রনি  » «   ভুলভ্রান্তি হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন: শেখ হাসিনা  » «   মাহবুব তালুকদারের বক্তব্য অসত্য: সিইসি  » «   ভোটের ফলাফল প্রকাশে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ  » «   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলের জামিন  » «   বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে অবজ্ঞা শেহবাগের!  » «   সারাদেশে ১ হাজার ১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন  » «   প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ, নির্বাচন করতে পারবেন না খালেদা জিয়া  » «   জামায়াতের ২২ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিলে রুল  » «   সিলেটে প্রাধান্য উন্নয়ন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার  » «   বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা করছেন ফখরুল  » «   আপিলেও ভোটের পথ খুলল না ইলিয়াসপত্নী লুনার  » «   যেসব ‘বিশেষ’ অঙ্গীকার থাকছে আ. লীগের নির্বাচনি ইশতেহারে  » «   আ.লীগের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করছেন শেখ হাসিনা  » «   সিলেটে বিএনপি নেতাকর্মীদের মারধর ও ধরপাকড়ের অভিযোগ  » «  

বিরোধীদের আস্থায় নিতে পারছে না সরকার



নিউজ ডেস্ক:: অংশগ্রহণমূলক সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচন প্রশ্নে বিরোধীদের আস্থায় নিতে পারছে না সরকার ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে বুঝতে পেরেই বিএনপি-জামায়াত এবং জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া গঠনের নেপথ্যে একটি মহল এই ষড়যন্ত্র করছে বলে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে অভিযোগ করছেন সরকারের মন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতারা। এমনকি নির্বাচন বানচালে নানা ষড়যন্ত্রের তথ্য সরকারের কাছে এমন তথ্য জানিয়ে বিরোধীদের নানা কর্মকাণ্ডের ওপর কঠোর নজরদারিও রেখেছে সরকার। ষড়যন্ত্র প্রতিহতে ঘোষণা দিয়ে মাঠে অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলও।

সরকার ও আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী সূত্রগুলো বলছে, নানা ইস্যুতে উসকানি দিয়ে একটি মহল দেশে এক-এগারো পরিস্থিতি সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছে। বিশেষ করে সর্বশেষ নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও কোটা সংস্কারের দাবিকে কেন্দ্র করে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির ষড়যন্ত্রের তথ্য সরকার পেয়েছে। এত দিন এসব ষড়যন্ত্রের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত যুক্ত থাকলেও এখন যুক্তফ্রন্ট ও গণফোরাম নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতাদের কর্মকাণ্ডকেও ভালো চোখে দেখছে না সরকার। এরই মধ্যে নির্বাচন নিয়ে এই প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধেও নানা ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আসছে।

এর কারণ কীÑ জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের কয়েকজন শীর্ষ নেতা জানান, মূলত বিএনপি চাচ্ছে নির্বাচন না হোক। কারণ নির্বাচন হলে তাদের ভরাডুবি হবে। নির্বাচনী মাঠে এই দলের অবস্থান ভালো না। দলের মধ্যেও নানা দ্বন্দ্ব। আবার গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ অনুযায়ী এবার বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নিতেই হবে। দলের মধ্যেও নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে চাপ আছে। সেজন্য তারা যেকোনো শর্তে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সঙ্গে মিশে নির্বাচন বানচালে একটি বড় প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে চাচ্ছে।

‘কিন্তু তা হতে দেওয়া হবে না’ জানিয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা বলেন, নির্বাচন বানচালে যেকোনো ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে আওয়ামী লীগ শক্ত অবস্থানে আছে। কোনো ধরনের ছাড় দেওয়া হবে না। এ ব্যাপারে দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি স্বচ্ছ প্রক্রিয়া ও তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্য দিয়ে নির্বাচনে জয়ী হয়ে আসারও নির্দেশ রয়েছে। দল সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এ ব্যাপারে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি যদি আবার নাশকতা করে, ২০১৪ সালের মতো বোমা সন্ত্রাস করে অথবা সহিংসতার আগুন ছড়ায়, এর জন্য আমরা জনগণকে সতর্ক করে দেব যে দেশে এখন শান্তি আছে। বিএনপি এই শান্তিকে নষ্ট করতে চায়, পরিবেশ নষ্ট করতে চায়। নির্বাচনের জন্য এর চেয়ে ভালো পরিবেশ নেই। বিএনপি এখন আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে সন্ত্রাসের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারে সেজন্য আমরা জনগণকে স্মরণ করিয়ে দেব, সতর্ক করে দেব।

সর্বশেষ গত সোমবার গণভবনে অনুষ্ঠিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাও ষড়যন্ত্রের আভাস দিয়ে দলের নেতাকর্মীদের আত্মতুষ্টিতে না ভুগে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন। নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগদান শেষে দেশে ফিরলে দলীয়ভাবে দেওয়া ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার এবং দলের বিরুদ্ধে দেশি-বিদেশি চক্রান্ত ছিল এবং এখনো এ চক্রান্ত এবং ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। এ ষড়যন্ত্র সব সময়ই চলে আসছে যাতে আওয়ামী লীগ অথবা বঙ্গবন্ধু পরিবারের কেউ যেন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় না আসতে পারে। তাদের একটাই ভয় তা হলো জনগণ সেই নেতৃত্বের ওপর ভর দিয়ে শক্তি সঞ্চয় করে আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ৭৫-পরবর্তী সামরিক শাসকশ্রেণির উচ্ছিষ্টভোগী ও সুবিধাভোগীরা এখনো আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে চলছে। যদিও জনগণের মধ্যে তাদের কোনো ভিত্তি নেই কিন্তু তারা ক্ষমতালিপ্সু। ক্ষমতার লোভে তারা স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি এবং খুনি চক্রের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে।

এর আগে গত ১৯ আগস্ট চট্টগ্রামের নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে দেশে এক-এগারো সৃষ্টির ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, এসব ষড়যন্ত্রের তথ্য সরকারের কাছে আছে। আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে বুঝতে পেরেই এই ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি-জামায়াত। কিন্তু এ ধরনের কোনো ষড়যন্ত্র করে লাভ হবে না। বহু ষড়যন্ত্র হয়েছে। ষড়যন্ত্র কোথায় হচ্ছে এবং কীভাবে হচ্ছে— তার সব খবরই সরকারের কাছে আছে।

গতকালও বিএনপি নির্বাচন ঠেকাতে গোপনে নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে দাবি করেছেন সেতুমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। রাজধানীর এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলন নয়, বোমা-সন্ত্রাস ও নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু এবার নাশকতা করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ করা হবে বলেও জানান তিনি।

তবে নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে সরকার ও আওয়ামী লীগ প্রস্তুত বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ দলীয় সূত্রগুলো। এসব সূত্র মতে, নির্বাচন বানচালের যেকোনো ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে সরকার ও দল কঠোর অবস্থান নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের উন্নয়ন ও অর্জন এবং নির্বাচন বানচাল ও সরকার পতনের নামে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতার কথা জনগণের সামনে তুলে ধরতে আওয়ামী লীগ গত বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীতে গণসংযোগ কর্মসূচি করছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ। তারা সতর্কতার সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত তারা। বিশেষ করে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘিরে এখন থেকেই সারা দেশে নিরাপত্তা জোরদার করা হচ্ছে। নিরাপত্তায় কোনো রকম ঝুঁকি নেবে না আওয়ামী লীগ।

এমনকি বিএনপি ও যুক্তফ্রন্টের বিভিন্ন কর্মসূচির পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ সতর্ক অবস্থান নিয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের নেতারা। তারা জানান, বিগত সময়ে বিএনপি রাজপথে নেমেই মানুষ হত্যা, জ্বালাও পোড়াও করে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে তাদের কোনোভাবেই মাঠ দখলে নিতে দেওয়া হবে না। রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে সন্ত্রাস-সহিংসতা করলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে প্রতিহত করতে দলীয় নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

এমনকি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে ‘নাশকতার ভয়াবহ ছক’ আঁকা হচ্ছেÑ এমন গোপন খবরের ভিত্তিতেই বিএনপি নেতাদের নামে মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের নেতারা। এসব মামলার সঙ্গে নির্বাচনের কোনো সম্পর্ক নেই। পুলিশ মামলা করেছে গুরুতর অভিযোগে, সহিংসতার ছক তারা গোপনে বৈঠক করেছে সেটার পরিপ্রেক্ষিতে। যেটা কোটা আন্দোলনে করেছে, উপাচার্য বাসভবনে, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ওপর, শেষ পর্যায়ে করেছে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ অফিসের কাছে। সেই একই ধরনের আরো ভয়াবহ চিন্তাভাবনা তাদের আছে। পুলিশের কাছে সেই তথ্য আছে। এসব মামলার সঙ্গে নির্বাচনের কোনো সম্পর্ক নেই। নির্বাচন নির্বাচনের মতো চলবে, মামলা মামলার মতো চলবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি মনে প্রাণে চাচ্ছে নির্বাচন না হোক। কারণ এবার তাদের ভরাডুবি হবে, সেটা বুঝতে পেরেছে। আর জাতীয় ঐক্য নামে যে প্ল্যাটফর্ম হয়েছে, সেখানে যোগ দেওয়া রাজনৈতিক দলগুলোর উদ্দেশ্য নির্বাচনে অংশগ্রহণ নয়। তারা নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে। কিছু রাজনৈতিক দল আছে যারা নির্বাচন এলেই তৎপরতা শুরু করে। এসব সুবিধাবাদী নেতারা নির্বাচনের সময় জোট ও ঐক্যফ্রন্ট গঠন করে। তাদের লক্ষ্য নির্বাচনে অংশ নেওয়া নয়। লক্ষ্য হচ্ছে একটি জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে নির্বাচনকে বানচাল করা। যাতে কোনো একটা সরকার গঠন করা যায়। তাহলেই সেই সরকারের মন্ত্রী হতে পারবেন। এই লক্ষ্য নিয়ে তারা আজ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, সব দেশেই সরকারের মেয়াদ শেষ হলে নির্বাচন হয়। সেই নির্বাচনে অংশ নিয়ে থাকেন জনগণ। কিন্তু আমাদের দেশের দুর্ভাগ্য। আমাদের দেশে নির্বাচন এলে শুরু হয় নানামুখী চক্রান্ত। যারা ক্ষমতায় থেকে দেশকে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা নিতে পারেনি, দেশের মধ্যে জঙ্গিবাদের উৎপাত ঘটিয়ে দেশকে সন্ত্রাসবাদী বানিয়েছিল সেই শক্তি এখনো তৎপর। নির্বাচন এলেই তাদের তৎপরতা শুরু হয়ে যায়।

‘নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপি ভুল করবে’- উল্লেখ করে মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি ২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে ভুল করেছে। নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের চেয়ে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত ছিল নির্বাচনকে যেকোনোভাবে প্রতিহত করা। এবার সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি করবে না বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: