শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে দুই পুরস্কার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ডিজিটাল পাঠ্যবই শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের জন্য সহায়ক হবে: শিক্ষামন্ত্রী  » «   কাল পবিত্র আশুরা, তাজিয়া মিছিলে ছুরি-তলোয়ার নিষিদ্ধ  » «   জেল থেকে বাসায় ফিরলেন নওয়াজ-মরিয়ম  » «   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার সহায়তা  » «   রান্নাঘরের গ্রিল কেটে শাবির ছাত্রী হলে চুরি,নিরাপত্তাহীনতায় ছাত্রীরা  » «   এখনও জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ : যুক্তরাষ্ট্র  » «   মোদিকে ইমরানের চিঠি: পুনরায় শান্তি আলোচনা শুরুর তাগিদ  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতেই বিচার চলবে: আদালত  » «   ফুটপাতের খাবার বিক্রেতা থেকে সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি!  » «   বিএনপি নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান!  » «   পায়রা বন্দরের নিরাপত্তায় পুলিশের বিশেষ আয়োজন  » «   সরকারের চাপের মুখে দেশত্যাগ করতে হয়েছে: এসকে সিনহা  » «   পুতিন আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে : রাশিয়ান মডেল  » «   বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ: ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  » «  

বিনিয়োগের স্বার্থে চট্টগ্রামের পরিবেশ উন্নত করা অপরিহার্য: মেয়র



নিজস্ব প্রতিবেদক::চট্টগ্রাম বিনিয়োগবান্ধব ও পর্যটকবান্ধব নগরী-এ বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়েই চট্টগ্রামের উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।এ বিবেচনায় চট্টগ্রামকে বিনিয়োগের উপযুক্ত এলাকা হিসেবে এর পরিবেশ উন্নত করা অপরিহার্য।

সোমবার (১৭ অক্টোবর)দুপুরে নগর ভবনের কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রকৌশলীদের সমন্বয় সভায় এ কথা বলেন।

সভায় চট্টগ্রাম মেয়র চট্টগ্রামকে বিশ্বমানের পরিবেশ বান্ধব স্মার্ট সিটিতে উন্নিত করার কর্মপরিকল্পনা আগামী ৩ বছরের মধ্যে সম্পাদনের জন্য প্রকৌশলীদের নির্দেশ দেন।

তিনি বলেন, ২০১৯ সনের জুনের মধ্যে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের সকল সড়ক ও বাইলেইনকে শতভাগ পাকা, পিচঢালা সড়কে উন্নয়নের কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে। এ লক্ষ্যে গৃহিত কর্মপরিকল্পনা ধাপে ধাপে বাস্তবায়ন করতে প্রকৌশলীদের নির্দেশ দেন।

মেয়র বলেন, গুরুত্বের দিক থেকে চট্টগ্রামের গুরুত্ব অনেক। অর্থনীতির প্রাণ কেন্দ্র এ চট্টগ্রাম। চট্টগ্রামের উন্নয়নের সাথে দেশের সার্বিক উন্নয়ন ও গুরুত্ব নির্ভর করে।

সিটি মেয়র প্রকৌশলীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নগরীর উন্নয়ন, সৌন্দর্যবৃদ্ধি, আলোকায়ন, অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ নাগরিক সেবার বেশীরভাগ কর্মকান্ড প্রকৌশল বিভাগের উপর নির্ভর করে। সে লক্ষে প্রকৌশলীদের অভিজ্ঞতা, প্রজ্ঞা, জ্ঞান ও কৌশলকে কাজে লাগিয়ে নগরীর উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে হবে।

সিটি মেয়র বলেন, ৪১টি ওয়ার্ডে আলাদা আলাদা ভাবে নির্বাহী প্রকৌশলী, সহকারী প্রকৌশলী, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও সড়ক তদারককারীদের দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া আছে। স্ব স্ব ক্ষেত্রে আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলীদের মাসিক সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল মহিউদ্দিন আহমদ। এতে সচিব মোহাম্মদ আবুল হোসেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আনোয়ার হোছাইন, মো. রফিকুল ইসলাম মানিক, মো. মাহফুজুল হক, মনিরুল হুদা, কামরুল ইসলাম সহ ৯টি বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এবং সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সমূহের প্রকৌশলীবৃন্দ নিজ নিজ ওয়ার্ডে দায়িত্বের বিষয়ে মতামত তুলে ধরেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: