বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তরুণ ও যুবকদের জন্য যে চমক আ. লীগ-বিএনপির ইশতেহারে  » «   নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে একই পরিবারের ৯ জন দগ্ধ  » «   আমার কিছু হলে দায়ী আপনারা মামা-ভাগ্নে: সিইসিকে গোলাম মাওলা রনি  » «   ভুলভ্রান্তি হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন: শেখ হাসিনা  » «   মাহবুব তালুকদারের বক্তব্য অসত্য: সিইসি  » «   ভোটের ফলাফল প্রকাশে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ  » «   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলের জামিন  » «   বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে অবজ্ঞা শেহবাগের!  » «   সারাদেশে ১ হাজার ১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন  » «   প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ, নির্বাচন করতে পারবেন না খালেদা জিয়া  » «   জামায়াতের ২২ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিলে রুল  » «   সিলেটে প্রাধান্য উন্নয়ন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার  » «   বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা করছেন ফখরুল  » «   আপিলেও ভোটের পথ খুলল না ইলিয়াসপত্নী লুনার  » «   যেসব ‘বিশেষ’ অঙ্গীকার থাকছে আ. লীগের নির্বাচনি ইশতেহারে  » «  

বিদ্যালয়ের ছাদের প্লাস্টার খঁসে শিক্ষিকা আহত



শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত একমাত্র নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাজী অছি আমরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষের ছাদের প্লাস্টার ভেঙ্গে পড়ে সহকারী শিক্ষিকা চাঁদ সুলতানা আহত হয়েছেন। তাড়াহুড়ো করে বের হতে গিয়েও কয়েক শিক্ষকও আঘাতপ্রাপ্ত হন। ২ এপ্রিল রবিবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে নিম্নমানের মালামাল দিয়ে নির্মিত ৮০ ফুট দৈর্ঘ্য এবং ২০ ফুট প্রস্থ অফিস ভবনের ছাদের প্লাস্টার খঁসে লোহার রড় দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিনের মত ররিবার দুপুরের বিরতির পর প্রধান শিক্ষিকা উম্মে কুলছুম সহ অন্যান্য সহকারী শিক্ষকগণ অফিস মিলনায়তনে বসে আছেন। এমন সময় কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ছাদের প্লাস্টার খঁসে পড়ে সহকারী শিক্ষিকা চাঁদ সুলতানার উপর। এতে তিনি মাথায় আঘাত পেয়ে মাটিতে পড়ে যান।

এসময় অন্যান্য শিক্ষকরা দ্রুত বের হতে গিয়েও কয়েকজন শিক্ষক আঘাত পান। পরে সহকারী শিক্ষিকা চাঁদ সুলতানাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ.জেড.এম. শরীফ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে অফিস কক্ষ হিসেবে ব্যবহার না করার জন্য প্রধান শিক্ষিকাকে পরামর্শ দেন।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষিকা উম্মে কুলছুম বলেন, অফিস কক্ষ হিসেবে ব্যবহারের মতো আর কোন কক্ষ খালি নেই। এখন আমার অফিসিয়াল নথিপত্রই রাখব কোথায় এবং অন্যান্য শিক্ষকদের বসার ব্যবস্থা কিভাবে করবো বুঝতে পারছিনা। এ সমস্যা সমাধানের জন্য প্রধান শিক্ষিকা উম্মে কুলছুম সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: