শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নুসরাত হত্যা : পুলিশের ভূমিকার বিচার বিভাগীয় তদন্ত চায় টিআইবি  » «   রাজীবের মৃত্যুর এক বছরেও মেলেনি ক্ষতিপূরণের কানাকড়ি  » «   দুর্যোগ সম্পর্কে সচেতনতামূলক প্রচারণা জরুরি : প্রধানমন্ত্রী  » «   বিএনপির ১৪ শীর্ষ নেতাদের জামিন বহাল  » «   একসঙ্গে পুড়ল তিন ভাইয়ের ‘স্বপ্ন’  » «   সিগারেট খেলে ফ্রিজ ফ্রি!  » «   রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী  » «   পাকিস্তানে নির্মিত হচ্ছে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ  » «   জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘মুজিবনগর দিবস’ উদযাপন  » «   ব্রুনাই সফরে ৬ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করবেন প্রধানমন্ত্রী  » «   বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির তালিকা প্রকাশ  » «   প্যারোলে মুক্তি ও এমপিদের শপথ গ্রহণ : যা ভাবছেন খালেদা জিয়া ও বিএনপি  » «   আপিলে হারলো যুক্তরাজ্য সরকার, কাটতে পারে বহু বাংলাদেশির ভিসা জটিলতা  » «   বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীকে ছুরিকাঘাত  » «   লিবিয়ায় গৃহযুদ্ধ: নিরাপদ স্থানে সরানো হলো ৩০০ বাংলাদেশিকে  » «  

বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবন মশা মারবে মশাকেই!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ বিশ্ববাসী। মশা মারতে সবরকম ব্যবস্থাই নেয়া হচ্ছে।কিন্তু তেমন একটা লাভ হচ্ছেনা। অনেকটা যেন মশা মারতে কামান দাগিয়েও কাজ হচ্ছে না।তাই এবার মশা মারতে অনন্য এক উপায় বের করেছে গুগল। তারা মশা মারতে ব্যবহার করতে চাইছেন মশাকেই!

এ যেন ঘরের শত্রু বিভিষণ! মশাদের বিরুদ্ধে মশাদেরকেই ‘যুদ্ধে’ নামানোর এই কার্যক্রমে হাত দিয়েছেন গুগলের মূল সংস্থা ‘অ্যালফাবেট’।সংস্থাটির বিজ্ঞানীদের দাবি, এভাবেই নির্মূল হবে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়াবাহিত মশাদের দৌরাত্ম।

কীভাবে কাজ করবে এই পরিকল্পনা! সে প্রসঙ্গে অ্যালফাবেট জানিয়েছে, যুদ্ধে যেমন সুন্দরী গুপ্তচরদের ফাঁদে ফেলে বিপক্ষের সেনাবাহিনীর গোপন খবরাখবর নেয়া হয় ঠিক সেভাবেই চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গুর জীবাণুবাহি স্ত্রী মশাদের ফাৎদে ফেলতে ব্যবহার করা হবে পুরুষ মশা।

তবে এসব পুরুষ মশার থাকবে ভিন্ন একটি বৈশিষ্ট্য। সেটা হলো- এসব পুরুষ মশাদের দেহে গুগলের বিজ্ঞানীরা ঢুকিয়ে দিবেন ‘উলবাচিয়া’ প্রজাতির একটি ব্যাকটেরিয়া।এই ব্যাকটেরিয়ার কারণে এসব পুরুষ মশাদের সঙ্গে স্ত্রী মশাগুলোর মিলনে স্ত্রী মশারা তাদের ডিম পাড়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবে।

ফলাফল মশার বংশ আর বাড়বে না। জন্ম নিবেনা আর নতুন কোনো জীবাণুবাহী মশা।আর এভাবেই ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়ার মতো ‘এডিস ইজিপ্টাই’ প্রজাতির মশাবাহিত ভয়ঙ্কর রোগ থেকে রেহাই পাবে মানুষ।ইতিমধ্যে গবেষণায় সফল হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

সংস্থার মুখপাত্র ক্যাথলিন পার্কস বলেছেন, ‘তারা বিশাল একটি এলাকাজুড়ে একটি টিউব থেকে আশপাশের জঙ্গল ও লোকালয়ে ছড়িয়ে দেয় শরীরে ‘উলবাচিয়া’ ব্যাকটেরিয়া ঢুকানো প্রায় ৮০ হাজার পুরুষ মশা। যাদের টানে কাছে এসে পুরো এলাকার স্ত্রী মশারা মিলনের পর পুরোপুরি বন্ধ্যা হয়ে যায়।’

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: