শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

বিজেপির ওয়েবসাইট হ্যাক করে গরুর মাংসের ছবি!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যখন দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নিচ্ছিলেন ঠিক তখনই তার দল বিজেপির ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়। হ্যাক করার পর ওই সাইটের পেজে ছবিসহ গরুর মাংসের ছয়টি রেসিপি পোস্ট করা হয়। তবে কে বা কারা এই কাজ করেছেন এখনও তা জানা যায়নি।

বিজেপির ওয়েবসাইট হ্যাক হওয়া নিয়ে প্রথম পোস্ট দেন ফরাসি সাইবার নিরাপত্তা গবেষক ইলিয়ট এল্ডারসন। এ নিয়ে তিনি টুইটারে লিখেছিলেন, ‘ডিয়ার @ BJP4India আপনাদের ওয়েবসাইট হ্যাক হয়েছে। এবার ওয়েবসাইট রিস্টোর করতে কতদিন লাগবে?’

অন্য একটি টুইটে তিনি মোদির দলকে ব্যঙ্গ করে বলেন, ‘বিজেপি মানে যে বিফ জনতা পার্টি, এটা তো জানতাম না!’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো এ সম্পর্কে জানায়, গত ৩০ মে হ্যাক হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই বন্ধ হয়ে যায় ওয়েবসাইটটি। এরপর দিল্লি বিজেপির ওয়েবসাইটকে বিজেপি ইন্ডিয়া ওয়েবসাইটে রি-ডিরেক্ট করে দেওয়া হয়।

ভারতে লোকসভা নির্বাচন শুরু হওয়ার আগেও বিজেপির ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছিল এবং অনেকদিন পর্যন্ত এটি বন্ধ ছিল। তবে তখন সেখানে কোনো বিফ রেসিপি পোস্ট করা হয়নি।

এবার ভারতে দ্বিতীয় দফায় মোদি সরকার ব্যপক আসন নিয়ে ক্ষমতায় পর থেকেই কট্টরপন্থি হিন্দুদের হাতে নানাভাবে নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন দেশটির সংখ্যালঘু মসিলিমরা। সম্প্রতি গরুর মাংস রাখার দায়ে নারীসহ চার মুসলিমকে বেধড়ক পেটানো হয়েছে। এমনকি টুপি পড়ার দায়েও বিহারে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক যুবক। এমনই নানা তুচ্ছ অজুহাতে প্রতিদিন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে মুসলিমরা। কিন্তু এসব ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি প্রথমবারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার থেকেই গোরক্ষার নামে মুসলিমদের ওপর হামলে পড়েছে কট্টরপন্থি হিন্দুরা। ২০১৫ সালের ২৮ সেপ্টেম্বরে ভারতের উত্তর প্রদেশের দাদরি এলাকায় গরুর মাংস সংরক্ষণের গুজবে মোহাম্মদ আখলাককে পিটিয়ে হত্যা করে গ্রামবাসী। এখনও সেখানে গরুকে হিন্দুত্ববাদী অস্ত্র বানিয়ে মুসলিম নিপীড়ন অব্যাহত রয়েছে।

সূত্র: বিজনেস টুডে

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: