শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ওয়াসার পানির দাম বাড়ানোর প্রস্তাব, ক্ষুব্ধ নগরবাসী  » «   শহীদের সঙ্গে প্রেম ভাঙলো কার দোষে? মুখ খুললেন কারিনা  » «   বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পেল সখীপুরের ২ হাজারের বেশি মানুষ  » «   সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বড় অস্ত্রের চালান নিখোঁজ  » «   মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে প্রবেশকালে আটক ৪  » «   হামলাকারীকে ক্ষমা করে দিলেন লন্ডনের সেই মুয়াজ্জিন  » «   ঋণখেলাপিদের অর্থ কোথায় যায়  » «   ভাষা দিবসে কলাগাছের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা  » «   এক হাজার কোটি টাকা দিতে রাজি জিপি  » «   সেই জার্মান বন্দুকধারীর হিটলিস্টে বাংলাদেশিরা  » «   আরব আমিরাতে করোনাভাইরাসে বাংলাদেশি আক্রান্ত  » «   আগুনে ১০ ঘর পুড়ে ছাই  » «   ঈশ্বরদীতে বাস-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২  » «   চট্টগ্রামে ১৪ হাজার ইয়াবাসহ সেনাসদস্য আটক  » «   ভারতে দুই স্বর্ণখনির সন্ধান, মজুত ৩৩৫০ টন  » «  

বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির স্থাপনের রায়



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আলোচিত অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। রায়ে বলা হয়েছে, অযোধ্যার বিতর্কিত জমি পাচ্ছেন হিন্দুরাই। ফলে সেখানে তৈরি হবে রাম মন্দির। আর বিকল্প জমি দেয়া হবে মুসলিমদের। প্রধান বিচারপতি ছাড়াও বেঞ্চে রয়েছেন বিচারপতি এসএ বোবদে, ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এস আব্দুল নাজির। ইতিমধ্যেই আদালতে পৌঁছে গিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

শনিবার সকালে শীর্ষ আদালতের এক নম্বর ঘরে রায় ঘোষণা করা হয়। স্থানীয় সময় ১০টা ১৫ মিনিটে সেই ঘর খুলে দেওয়া হয়। তারপর বিচারপতিরা সেই ঘরে প্রবেশ করেন। এরপর রায়ের কপিতে সই করে রায় পড়তে শুরু করেন প্রধান বিচারপতি। এর আগে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের আর্জি খারিজ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে নির্মোহী আখড়ার আর্জিও খারিজ করেন বিচারপতিরা।

বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির স্থাপনের পক্ষে রায় দিয়েছে আদালত। এজন্য আগামী ৩-৪ মাসের মধ্যে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে বিশেষ স্কিম তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। যাতে বিতর্কিত বাবরি মসজিদের জমি মন্দির পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। অন্যদিকে বিতর্কিত বাবরি মসজিদের জমি বাদে নতুন মসজিদ তৈরির জন্য অযোধ্যার ৫ একর জমি দেওয়া হবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আরো বলা হয়, ১৮৫৫ সাল পর্যন্ত প্রমান পাওয়া যায় যে হিন্দুরা ওই স্থানের অন্দরেও প্রবেশ করেছে। ১৮৫৬ পর্যন্ত বাবরি মসজিদে নামাজ পড়ার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায় না। পরবর্তীকালে প্রার্থনার জন্য ব্যবহার করা হত সেই মসজিদ। তবে হিন্দুরা যে মনে করে ডোমের নীচেই ছিল রামের জন্মস্থান, এর কোনো সত্যতা খুঁজে পায়নি আদালত। তাই হিন্দুদের এই দাবিকে একটা বিশ্বাস হিসাবে উল্লেখ করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

সূত্র: কলকাতা টুয়েন্টি ফোর

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: