সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রথমবার সিলেট-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে উড়বে ইউএস-বাংলা  » «   ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো ইন্দোনেশিয়ায়-জাপান-অস্ট্রেলিয়া  » «   ভোটকেন্দ্রেই ঘুমিয়ে পড়লেন কর্মকর্তা  » «   ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় পিটিয়ে মুসলিম যুবককে হত্যা  » «   নয়াপল্টনে একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণ  » «   অফিসে বসে বসে শুধু কি চা খাইলে হবে? দেশপ্রেম থাকতে হবে: হাইকোর্ট  » «   বিকেলের মধ্যে উদ্ধার কাজ শেষ হবে: রেলসচিব  » «   বাংলাদেশের নামে সড়কের নামকরন যুক্তরাষ্ট্রে  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়লেও দুর্নীতি কমছে না : টিআইবি  » «   দেশসেরা প্রধান শিক্ষক হবিগঞ্জের শাহনাজ কবীর  » «   বাঘের খাবারও চুরি হয় ঢাকা চিড়িয়াখানায়, ফেসবুকে ভাইরাল  » «   দুই মাস ওমরাহ ভিসা স্থগিত করল সৌদি  » «   বীমার আওতায় যেসব সুবিধা পাচ্ছে সরকারি চাকরিজীবীরা  » «   কারাগারে সুনামগঞ্জের আ. লীগ নেতা শামীম আহমদ  » «   মুক্তি পেয়ে নতুন যে বাড়িতে থাকবেন খালেদা  » «  

বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১০২তম জন্মবার্ষিকী আজ



ডেস্ক রিপোর্ট:: আজীবন অন্যায়, শোষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর একুশে পদকপ্রাপ্ত বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১০২তম জন্মবার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার।

এ উপলক্ষে শাহ আবদুল করিমের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের উজানধলে বিকেলে বাউল সম্রাটের মাজারে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। শাহ আবদুল করিমের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করবেন ভক্তরা।

১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ভাটির জনপদ সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের কালনী নদীর তীরে অবস্থিত উজানধল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এই গুণী শিল্পী।

বাবা ইব্রাহিম আলী ও মা নাইওরজান বিবি। আবদুল করিম তার গানের মাধ্যমে গ্রামীণ জনপদের মানুষের দুঃখ, কষ্ট, আনন্দ, বেদনার কথা তুলে ধরেছেন। যা আজ মানুষের মুখে মুখে উচ্চারিত হচ্ছে।

অসংখ্য জনপ্রিয় গ্রানের রচয়িতা শাহ আবদুল করিম অত্যন্ত দুঃখে, কষ্টে দিনযাপন করলেও কখনও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি। অসম্প্রদায়িক চেতনার অধিকারী আবদুল করিম জাত, কুলের ধার ধারেননি। সেজন্য জীবদশায় তাকে নানান অত্যাচারেরও সম্মুখীন হতে হয়।

ব্যক্তি জীবনে লোভ লালসা ও পদ-পদবীর প্রতি নির্লোভ এ মানুষটি তার অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ একুশে পদক, মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননাসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

জীবনের শেষ পর্যায়ে এসে এ গুণীশিল্পী নানান ধরনের বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। অবশেষে ২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পাড়ি জমান পরলোকে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: