সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শুধুমাত্র আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা যায় না: আইনমন্ত্রী  » «   জামায়াতের সবারই রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ  » «   সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জা‌নি‌য়ে মোদিকে শেখ হাসিনার বার্তা  » «   গুগলে ‘টয়লেট পেপার’ লিখলে আসছে পাকিস্তানের পতাকা  » «   পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট হ্যাক করেছে ভারত?  » «   সাত বছরে ৬৩ বার পেছালো সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন  » «   তিন দিনের সীমান্ত সম্মেলনে বিএসএফ প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে  » «   বড় রাজনৈতিক দল অংশ না নেওয়া ইসির জন্য হতাশাজনক: সিইসি  » «   পাকিস্তানকে কী করতে পারবে ভারত?  » «   বঙ্গবীর ওসমানীর জন্ম-মৃত্যুবার্ষিকী রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের দাবি  » «   দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সা’দপন্থীদের ইজতেমা শুরু  » «   মোদির স্বপ্ন কখনোই পূরণ হবে না, পাল্টা হুঙ্কার পাকিস্তানের  » «   চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার খবরটি ‘টোটালি ফলস’  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী  » «   জামায়াত নতুন নামে পুরনো চরিত্রে ফিরে আসে কিনা তা ভাবনার বিষয়  » «  

বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১০২তম জন্মবার্ষিকী আজ



ডেস্ক রিপোর্ট:: আজীবন অন্যায়, শোষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর একুশে পদকপ্রাপ্ত বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১০২তম জন্মবার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার।

এ উপলক্ষে শাহ আবদুল করিমের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের উজানধলে বিকেলে বাউল সম্রাটের মাজারে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। শাহ আবদুল করিমের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করবেন ভক্তরা।

১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ভাটির জনপদ সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের কালনী নদীর তীরে অবস্থিত উজানধল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এই গুণী শিল্পী।

বাবা ইব্রাহিম আলী ও মা নাইওরজান বিবি। আবদুল করিম তার গানের মাধ্যমে গ্রামীণ জনপদের মানুষের দুঃখ, কষ্ট, আনন্দ, বেদনার কথা তুলে ধরেছেন। যা আজ মানুষের মুখে মুখে উচ্চারিত হচ্ছে।

অসংখ্য জনপ্রিয় গ্রানের রচয়িতা শাহ আবদুল করিম অত্যন্ত দুঃখে, কষ্টে দিনযাপন করলেও কখনও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি। অসম্প্রদায়িক চেতনার অধিকারী আবদুল করিম জাত, কুলের ধার ধারেননি। সেজন্য জীবদশায় তাকে নানান অত্যাচারেরও সম্মুখীন হতে হয়।

ব্যক্তি জীবনে লোভ লালসা ও পদ-পদবীর প্রতি নির্লোভ এ মানুষটি তার অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ একুশে পদক, মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননাসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

জীবনের শেষ পর্যায়ে এসে এ গুণীশিল্পী নানান ধরনের বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। অবশেষে ২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পাড়ি জমান পরলোকে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: