মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তারেককে ঠেকাতে আদালতে যাবে আওয়ামী লীগ  » «   ইসি সচিব, ডিএমপি কমিশনারসহ ৪ জনের শাস্তি দাবি  » «   ভারতে অস্ত্র গুদামে বিস্ফোরণ : নিহত ৬, আহত ১৮  » «   ‘ছোলপোলের খোঁজ লেয় না, আবার এমপির ভোট করিচ্চে’  » «   হিরো আলমকে নিয়ে মুখ খুললেন তসলিমা নাসরিন  » «   এইডসের ঝুঁকিতে সিলেট, মৌলভীবাজার  » «   চুক্তি বাতিল করলে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : পুতিন  » «   প্রধানমন্ত্রী রেফারি হলে ফেয়ার ইলেকশন হয় না : ড.কামাল  » «   ২০ দলের শরিকদের ৩৫-৪০ আসন দিতে চায় বিএনপি  » «   নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকবে ১১৮ দেশীয় সংস্থা: ইসি সচিব  » «   তৃতীয় দিনের সাক্ষাৎকার চলছে: যুক্ত হতে পারেননি তারেক রহমান  » «   শিকাগোর হাসপাতালে বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৪  » «   পূজা করে তাজমহলকে পবিত্র করেছে হিন্দুরা!  » «   নারায়ণগঞ্জের আলোচিত ৭ খুন মামলায় হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ  » «   গণফোরামে যোগ দিলেন সাবেক ১০ সেনা কর্মকর্তা  » «  

বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে নতুন নিয়ম করছে মালয়েশিয়া



নিউজ ডেস্ক :বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশ থেকে কর্মী নিতে নতুন নিয়ম চালু করছে মালয়েশিয়া। এ নিয়মে কোনও দেশভিত্তিক ভিন্নতা থাকবে না। একটি কমন সিস্টেমের আওতায় বিভিন্ন দেশ থেকে কর্মীরা দেশটিতে কাজের জন্য যেতে পারবেন।

মঙ্গলবার এক প্রেস কনফারেন্সে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মদ এ কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, অবৈধ বিদেশি শ্রমিকদের নিয়ে মালয়েশিয়া সরকারকে বর্তমানে ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। এজন্য যেসব দেশ থেকে মালয়েশিয়া লোক নেয়, সব দেশের ক্ষেত্রেই এক নিয়ম চালু করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

“বাংলাদেশ, নেপাল এবং অন্যান্য দেশও ওই সিস্টেম ব্যবহার করবে।”

ড. মাহাথির মুহাম্মদ বলেন, মালয়েশিয়া সরকার এর আগে বাংলাদেশ থেকে ১০টি এজেন্সির মাধ্যমে জনশক্তি নেয়ার ব্যবস্থা করেছিল। কিন্তু এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর নেতৃত্বে মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগসাজশে একটি চক্র ওই ১০ এজেন্সিকে নিয়ে সিন্ডিকেট করে শ্রমিকদের কাছ থেকে দুই বছরে অন্তত ২০০ কোটি রিঙ্গিত হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে।পরে গত জুনে ওই ব্যবস্থা স্থগিত করে দেশটির সরকার। তাই আমরা এখন নতুন ব্যবস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশের সব এজেন্টের জন্য কর্মী দেয়ার সুযোগ করে দিতে চাই।

গত জুনে মালয়েশিয়ার স্টার অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১০ এজেন্টের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় লোক পাঠাতে মাথাপিছু সর্বোচ্চ ২ হাজার রিংগিত খরচ হওয়ার কথা। সেখানে এজেন্টরা বাংলাদেশি শ্রমিকদের কাছ থেকে ২০ হাজার রিংগিত আদায় করছিল। এর অর্ধেক টাকা যাচ্ছিল সেই সিন্ডিকেটের হাতে, যার বিনিময়ে তারা ওয়ার্ক পারমিট ও বিমানের টিকেটের ব্যবস্থা করে দিচ্ছিল।

২০১৬ সাল থেকে গত জুন পর্যন্ত এক লাখের বেশি বাংলাদেশি শ্রমিক ওই প্রক্রিয়ায় মালয়েশিয়ায় গেছেন এবং আরও অন্তত একলাখ লোক মালয়েশিয়ায় যাওয়ার অপেক্ষায় আছেন।

প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মদ বলেন, নতুন ব্যবস্থা চালুর জন্য তার সরকার একটি ‘স্বাধীন’ কমিটি করে দেবে, যে কমিটি সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করে সুপারিশ করবে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: