রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার খবরটি ‘টোটালি ফলস’  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী  » «   জামায়াত নতুন নামে পুরনো চরিত্রে ফিরে আসে কিনা তা ভাবনার বিষয়  » «   সুস্থ থাকলে শেখ হাসিনার বিকল্প দরকার নেই  » «   নন্দলালের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন না: ইসি রফিকুল  » «   এমপি হিসেবে শপথ নিলেন সৈয়দ আশরাফের বোন ডা. জাকিয়া  » «   রোহিঙ্গাদের নৃশংসতার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান মিয়ানমার সেনাপ্রধানের!  » «   যেসব শর্তে আত্মসমর্পণ করছেন ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ী  » «   নাসা আ্যপস চ্যালেঞ্জে বিশ্বসেরা শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়  » «   বাংলা একাডেমিতে আল মাহমুদের মরদেহ, শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে জোবায়ের অনুসারীদের ইজতেমা শেষ  » «   যেভাবে ভারতীয় সেনাবহরে হামলা চালায় জঙ্গিরা  » «   রোহিঙ্গা নিপীড়ন তদন্তে মার্চে বাংলাদেশ আসছে আইসিসি প্রতিনিধিদল  » «   ব্যাটিং ব্যর্থতায় সিরিজ হার বাংলাদেশের  » «   যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন ট্রাম্প  » «  

বাংলাদেশকে বিশ্বসভায় মর্যাদার আসনে বসাতে সম্মিলিত প্রয়াস দরকার





নিউজ ডেস্ক::প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জ্ঞান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশকে বিশ্বসভায় মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করতে সম্মিলিত প্রয়াসের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। তিনি বলেন, আমি আশা করি, সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসের মাধ্যমে আমরা জ্ঞান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশকে বিশ্বসভায় মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবো। সর্বকালের সর্বশ্রষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত এবং নিরক্ষরতা ও অসাম্প্রদায়িক স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে সক্ষম হবো।

শেখ হাসিনা জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে এক বাণীতে এসব কথা বলেন। সবার জন্য মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ‘জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮’ পালন করা হচ্ছে জেনে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

প্রদানমন্ত্রী বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত সদ্য স্বাধীন দেশকে পুনর্গঠনে সর্বশক্তি দিয়ে কাজ শুরু করেছিলেন। তিনি (বঙ্গবন্ধু) এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন শিক্ষাখাতকে। তিনি হাজার হাজার বিধ্বস্ত, স্কুল-কলেজ পুনঃস্থাপন করেন। নতুন নতুন বিদ্যালয় ও কলেজ ভবন নির্মাণ করেন। জাতির পিতা প্রাথমিক শিক্ষাকে অবৈতনিক ঘোষণাসহ দেশের ৩৭ হাজার ১৬৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করেন।

শেখ হাসিনা বাণীতে উল্লেখ করেন, তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক জাতি গঠনের পাশাপাশি দেশে সুষম ও টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে সুশিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে তার সরকার দেশের শিক্ষাখাত বিশেষ করে প্রাথমিক শিক্ষার ওপর সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছে। ইতোমধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গমনোপযোগী প্রায় শতভাগ শিশুর ভর্তি নিশ্চিত করা হয়েছে। সমাপনী পরীক্ষায় প্রায় শতভাগ উত্তীর্ণ হচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষারক্ষেত্রে লিঙ্গ সমতা অর্জিত হয়েছে এবং তা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: