সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দালালদের দেখানো ‘সোনার হরিণ’ থেকে সতর্ক থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী  » «   পানি ছেড়ে ভারতকে ডোবাচ্ছে পাকিস্তান  » «   শুধু ডিসি নয় ওই নারীকেও আইনের আওতায় আনা হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী  » «   রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের ওপর চাপ সহ্য করবে না চীন  » «   ছাতকে ছুরিকাঘাতে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র নিহত, আটক ১  » «   সৌদিতে আরো এক হাজির মৃত্যু, মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়াল  » «   মহানবীর নামে ইউরোপে সবচেয়ে বড় মসজিদ উদ্বোধন  » «   সিন্ডিকেটে লোপাট হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোটি কোটি টাকা  » «   খাসদবিরে আবাসিক হোটেল থেকে মাদ্রাসা শিক্ষকের লাশ উদ্ধার  » «   হঠাৎ রুমিন ফারহানাকে নিয়ে বিএনপিতে সমালোচনার ঝড়  » «   সৌদিতে সড়কে ঝরলো ৪ বাংলাদেশির প্রাণ  » «   অ্যামাজন বন পুড়ছে কেন! নেপথ্যে যে রহস্য  » «   দেশে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের উল্টো কাজ হচ্ছে: ড. কামাল  » «   ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি আর নেই  » «   লাইভে এসে প্রবাসীদের পা ছুঁয়ে সালাম করতে চাইলেন ব্যারিস্টার সুমন  » «  

বর্বর নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছে সিআইএ



cia-agentঅনলাইন ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে নাইন ইলেভেন হামলার পর আটককৃত সন্দেহভাজন আল-কায়েদা সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদের সময় সিআইএ বর্বর নির্যাতন চালিয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা স্বীকার করেছেন সংস্থাটির পরিচালক।

টেলিভিশনে দেয়া বিরল এক সাক্ষাতকারে সিআইএ’র পরিচালক জন ব্রেনান স্বীকার করেছেন যে আটকদের জিজ্ঞাসাবাদের কিছু পদ্ধতি জঘন্য ছিল।

তবে অাত্নপক্ষও সমর্থন করেছেন সিঅাইএ পরিচালক। তিনি বলেন, এসব জেরা থেকে মূল্যবান তথ্য সংগ্রহ করে একই ধরনের আক্রমণ প্রতিহত করে মানুষের জীবন রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সিআইএ’র কর্মকর্তাদের জেরার পদ্ধতি নিয়ে মার্কিন সিনেটে রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর সমালোচনা মুখে এসব মন্তব্য করেন জন ব্রেনান।

যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে বিমান হামলার পর ২০০১ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত সন্দেহভাজনদের উপর ব্যাপকভাবে এই জিজ্ঞাসাবাদ কার্যক্রম চালানো হয়। পরবর্তীতে বারাক ওবামা ২০০৯ সালে এই কর্মসূচী বন্ধ করে দেন। জিজ্ঞাসাবাদে নানান ধরনের ভয়াবহ নির্যাতনমূলক পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে বলে সিনেটের রিপোর্টে উঠে এসেছে।

সিনেটের প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর জিজ্ঞাসাবাদের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের বিচারের আওতায় আনার জন্য দাবি তুলেছে জাতিসংঘ ও বেশ কিছু মানবাধিকার সংস্থা।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: