রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার খবরটি ‘টোটালি ফলস’  » «   শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী  » «   জামায়াত নতুন নামে পুরনো চরিত্রে ফিরে আসে কিনা তা ভাবনার বিষয়  » «   সুস্থ থাকলে শেখ হাসিনার বিকল্প দরকার নেই  » «   নন্দলালের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন না: ইসি রফিকুল  » «   এমপি হিসেবে শপথ নিলেন সৈয়দ আশরাফের বোন ডা. জাকিয়া  » «   রোহিঙ্গাদের নৃশংসতার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান মিয়ানমার সেনাপ্রধানের!  » «   যেসব শর্তে আত্মসমর্পণ করছেন ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ী  » «   নাসা আ্যপস চ্যালেঞ্জে বিশ্বসেরা শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়  » «   বাংলা একাডেমিতে আল মাহমুদের মরদেহ, শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে জোবায়ের অনুসারীদের ইজতেমা শেষ  » «   যেভাবে ভারতীয় সেনাবহরে হামলা চালায় জঙ্গিরা  » «   রোহিঙ্গা নিপীড়ন তদন্তে মার্চে বাংলাদেশ আসছে আইসিসি প্রতিনিধিদল  » «   ব্যাটিং ব্যর্থতায় সিরিজ হার বাংলাদেশের  » «   যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন ট্রাম্প  » «  

বনানীতে পুলিশ সোর্স শহীদের সিমাহীন অপরাধ



নিউজ ডেস্ক::বনানী থানা পুলিশের কথিত সোর্স শহীদ ওরফে ফর্মা শহীদের শেল্টারে তার ভাগীনা রিদয়, ইয়াসিন তাদের দল নিয়ে ঢাকা উওর সিটি কর্পোরেশনের ২০নং ওয়ার্ডের বাসা বাড়িতে চুরিসহ মোটরসাইকেল চুরির সাথে জড়িত। সোর্স শহীদ চুরির মালামাল কেনাবেচা করে।

জানা গেছে, মহাখালী টিএন্ডটি মাঠের পাশে গোডাউন বস্তিতে শহীদের ঘরে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ট্যাবলেট, ফেনসিডিল, বিয়ার ও মদের জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। অভিযোগ আছে, তার ঘরে প্রতিদিন জুয়া খেলা চলে। পুলিশের চক্ষে ধুলি দিতে সোর্স শহীদের ঘরের বাইরে রাস্তায় তাক করে সিসি ক্যামেরা লাগানো। ঘরে বসে বাইরের চিএ দেখা যায়। ক্যামেরায় বিপদ দেখলেই শহীদ পিছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, বনানী থানা পুলিশের কথিত সোর্স শহীদকে ২০০৫ সালে বিস্ফোরক ও অস্ত্রসহ বনানী-২ এর হিন্দুপাড়ার বস্তি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। পরে জামিনে বের হওয়ার পর থেকেই শহীদ পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করতে থাকেন। পুলিশের সাথে সম্পর্কের সুবাদে দিনদিন তার অপরাধ কর্মকান্ড বেড়েই চলেছে।

বনানী ২নং রোডের বাসিন্দা হাজী সেলিম অভিযোগ করেন, কয়েকদিন আগে এলাকার লেকের ভেতরে শহীদসহ পুলিশ পরিচয়ে আরো দু’জনকে সাথে নিয়ে রনি ও সাব্বির নামক দুই যুবকের মোবাইল ছিনতাই করে। এই ঘটনার পর থেকে সোর্স শহীদ পালাতক রয়েছে।

এবিষয়ে বনানী থানার এসআই মালেক বলেন, শহীদ পালাতক, আমরা তাকে খুজছি।
জানা যায়, সোর্স শহীদ এলাকার বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও নিরীহ লোককে গ্রেফতার করানোর ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় করছে। তার চাহিদা মতে চাঁদা না দিলে পুলিশকে মিথ্যা তথ্যদিয়ে গ্রেফতার করিয়ে রিমান্ডে আনার হুমকি দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। পুলিশের কতিপয় অর্থ লোভী কর্মকর্তারা বানিজ্য করার জন্য সোর্স শহীদের কথা মতে যাকে তাকেই গ্রেফতার করছে।
এদিকে সোর্স শহীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, পুলিশের সাথে থাকাকালীন কোনো মাদক স্পর্টে অভিযান চালিয়ে উদ্ধারকৃত মাদকের একটি অংশ নিজের হেফাজতে রেখে দিয়ে তার শেল্টারে থাকা মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে বেঁচে দেন এবং তাদের কোনো পুলিশী ঝামেলা হবে না নিশ্চয়তা প্রদান করে থাকেন।
স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, সরকারী ঝিল দখল করে মাটি ভরাট করে শহীদ ঘর বানায়। নিজে থাকার পাশাপাশি মাটি ভরাট করে বেশ কয়েকটি দোকান ও ঘর বানিয়ে ভাড়া দিয়েছে।
জানা গেছে, শহীদ পুলিশের সোর্স হওয়ার সুবাধে বুক ফুলিয়ে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। ওয়ার্ডের মাদক ব্যবসায়ী তার কাছ থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিল না কিনলেই পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করায়। তার কাছ থেকে মাদক দ্রব্য কিনা এবং না কিনা নিয়ে বহু মাদক বিক্রেতার সাথে শহীদের বিভেদ লেগে রয়েছে।
জানা যায়, শহীদ যেসব মাদকের স্পট থেকে দৈনিক ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, বনানী গোডাউন বস্তির ময়নার মা ও মফিজের স্পট, চেয়ারমেনবাড়ি জাকিরের স্পট, মহাখালী পশু গবেষনা ইনষ্টিউট সংলগ্ন নাটা ইউসুফের স্পট, সাততলা পুকুরপাড় মহাখালী বাজার মানিকের স্পট, ওয়ারলেস গেট ড্রাইভার কাশেমের স্পট, আরশাদ নগর বস্তির ইয়াসিনের স্পট, তিতুমীর কলেজ সংলগ্ন হাজাড়িবাড়ী জামাই মালেকের স্পটসহ আরো অনেক মাদক ব্যবসায়ীদের স্পট।

অভিযোগ আছে, যারা শহীদকে টাকা দেয় তারা মাদক ব্যবসা করে ওপেন। লোক ধরানোর জন্যে থানা থেকে পুলিশ যখন শহীদকে প্রেসার দেয় তখন নিরিহ লোকদের পকেটে চেক করার উছিলায় হাত দিয়ে ইয়াবা ধুকিয়ে ধরিয়ে দেয়।

জানা যায়, শহীদ পুলিশের হেন্ডকাফ ও পুলিশ লেখা মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরে বেড়ায়।
শহীদের কর্মকান্ড দিনদিন ভয়ংকর হচ্ছে। যাতে লাগামটানা প্রয়োজন মনে করছেন স্থানীয়রা। তার অপরাধ তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভুগীরা।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: