মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বিরোধী দলীয় উপনেতা হলেন রওশন এরশাদ  » «   সিলেট যাত্রীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস বিমানের  » «   ১ এপ্রিল থেকে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ  » «   সুবর্ণচরে গণধর্ষণ: আইনজীবীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন  » «   ‘১১ বছর বয়সে বাবা আমাকে নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি করে দেন’  » «   আকস্মিক ঢাকার কূটনৈতিক পাড়ায় ২৪ ঘন্টার রেড অ্যালার্ট জারি  » «   নির্বাচনে রাশিয়া-ট্রাম্প আঁতাতের প্রমাণ মেলেনি মুলারের তদন্তে  » «   ১২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   এবার ক্যালিফোর্নিয়ায় মসজিদে আগুন, চিরকুট উদ্ধার  » «   ফাঁকা বাসে ভয়ঙ্কর ফাঁদ, টার্গেট কম বয়সী নারী যাত্রী  » «   রিমান্ডে বিমানবালা: যেভাবে হয় সৌদি আরব থেকে স্বর্ণ আনার চুক্তি  » «   আজ ভয়াল ২৫ মার্চ, গণহত্যার স্বীকৃতি চায় বাংলাদেশ  » «   সিলেটের আতিয়া মহলে অভিযান: দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট  » «   বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি  » «   একাত্তরের গণহত্যা আন্তর্জাতিক ফোরামগুলোতে তুলবে জাতিসংঘ  » «  

ফেসবুকে ব্যস্ত ‘ওয়ার্ড বয়’, রোগীর মৃত্যু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::বর্তমানে ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই আজকাল মোহগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। ফেসবুক এতটাই আকৃষ্ট করে নিয়েছে। যার ফলে মানুষের মধ্যে স্বাভাবিক বিবেক বুদ্ধিগুলোও লোপ পেয়েছে। আর কেউ-কেউ এতোটাই মোহগ্রস্ত যে হিতাহিত জ্ঞান ও মানবিকবোধ শূন্য হয়ে পড়েন, আশপাশের মৃত্যুযন্ত্রনাও কানে পৌঁছায় না। এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ভারতের জলপাইগুড়ির একটি হাসপাতালে।

জানা গেছে, ভারতের জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের স্ট্রেচারে কাতরাচ্ছিলেন এক রোগী। সে সময় হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় ব্যস্ত ছিলেন ফেসবুক নিয়ে। তাও আবার পাঁচ দশ মিনিট নয় টানা দুই ঘণ্টা! আর এই সময়েই ঘটে যায় চরম পরিণতি। ওয়ার্ড বয় তথা কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

সূত্র জানায়, রবিবার পেটে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন জলপাইগুড়ির রায়কত পাড়ার বাসিন্দা শম্ভু কুমারের স্ত্রী মঞ্জু দেবী। রোগীর রিপোর্ট দেখে চিকিৎসক তাকে দ্রুত ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) ভর্তির পরামর্শ দেন।

অভিযোগ, সে সময় কর্তব্যরত ওয়ার্ড মাস্টার দুই ঘণ্টা মঞ্জু দেবীকে হাসপাতালে আটকে রাখেন। ওয়ার্ড মাস্টার সে সময় ফেসবুকে নিমগ্ন ছিলেন। ঘণ্টা দুয়েক পর অ্যাম্বুলেন্স এলে রোগীকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা রোগীকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই প্রেক্ষিতে ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীর পরিবার। ওয়ার্ড মাস্টারের বিরুদ্ধে শুরু হয় বিক্ষোভ। থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন হাসপাতাল সুপার।

সূত্র: জি-নিউজ

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: