বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের ‘বিরোধিতায়’ ১১ জেলায় বাস চালানো বন্ধ  » «   নগরীতে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে পিয়াজ, ক্রেতাদের দীর্ঘ লাইন  » «   বলিভিয়ার অশান্তির নেপথ্যে ‘সাদা সোনা’, যা পরবর্তী বিশ্বের আকাঙ্ক্ষিত বস্তু  » «   আবরার হত্যা: পলাতক চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি  » «   ‘অপকর্মে’ সংকুচিত দ. কোরিয়ার শ্রমবাজার  » «   ৩০০ টাকার পিয়াজ সরকারের দিনবদলের সনদ: ডাকসু ভিপি নুর  » «   অযোধ্যা রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন করছে মুসলিমরা  » «   ভাঙছে শরিক দল সঙ্কটে ঐক্যফ্রন্ট  » «   হলি আর্টিসান হামলা: রায় ২৭ নভেম্বর  » «   চাকা ফেটেছে নভোএয়ারের, ভাগ্যগুণে বেঁচে গেলেন ৩৩ যাত্রী  » «   হাত-পা ছাড়াই মুখে ভর করে লিখে পিইসি দিচ্ছে লিতুন  » «   প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া বিএনপির চিঠিতে আবরার হত্যার বর্ণনা  » «   ১৫০ যাত্রী নিয়ে মাঝ আকাশে বিপাকে ভারতীয় বিমান, রক্ষা করল পাকিস্তান  » «   বিমান ছাড়াও ট্রেন, ট্রাক, বাসে করে আসছে পেঁয়াজ: সিলেটে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   চুক্তির তথ্য জানতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিল বিএনপি  » «  

ফিলিস্তিনে ইসরাইলের গুলি ও রকেট হামলা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি সেনাবাহিনীর গুলিতে তিন ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ট্যাংক ও হেলিকপ্টার থেকে দখলদার বাহিনীর গুলিবর্ষণে আহত হয়েছেন অসংখ্য ফিলিস্তিনি।

ফিলিস্তিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে বার্তা সংস্থ এএফপি জানিয়েছে, রোববার গাজা উপত্যকার দক্ষিণাংশের সীমানা ঘেঁষে ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি চালায় ইসরাইলি বাহিনী। ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনীও গুলিবর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

ইসরাইলি বাহিনীর দাবি, গাজা সীমান্তে সশস্ত্র ফিলিস্তিনিদের উপস্থিতি লক্ষ্য করেই তারা গুলি চালিয়েছে। এর আগে শনিবার গাজায় রকেট হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। গাজা থেকে ইসরাইলের ভেতরে তিনটি রকেট নিক্ষেপ হয়েছে অভিযোগ করে এ হামলা চালায় তারা। তবে এসব হামলায় ইসরাইলে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছে দেশটি।

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে নিজের অবৈধ উপস্থিতি বজায় রাখার জন্য দীর্ঘদিন ধরে সংগ্রামী ফিলিস্তিনিদের এভাবে হত্যা করে আসছে দখলদার ইসরাইলি বাহিনী।

ঈদুল আজহার দিনেও ইসলামের প্রথম কেবলা পবিত্র আল আকসা মসজিদে ঈদের নামাজের সময় মুসল্লিদের ওপর ইসরাইলি সেনাদের অতর্কিত হামলায় ১৪ ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন। এ দিন লক্ষাধিক মুসল্লি আল আকসায় ঈদ জামাতে শামিল হলে ইসরাইলি বাহিনী তাদের ওপর টিয়ার গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে।

ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ মসজিদ প্রাঙ্গণে উগ্রবাদী ইহুদিদের ঢুকার অনুমতি দেয়ার পর থেকেই এখানে সংঘর্ষ নিত্যনৈমিতিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কট্টরপন্থী ইহুদীরা চাচ্ছে পবিত্র এ মসজিদ ভেঙে এখানে একটি সিনাগগ নির্মাণ করতে। তাদের এ উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডকে প্রশ্রয় দিয়ে যাচ্ছে ইসরাইলি সেনারা।

মসজিদের জর্ডান বংশোদ্ভূত ইমাম খলিল আশালি বলেন, ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর থেকে পবিত্র এ মসজিদটি অবরোধ করে রেখেছে ইসরাইলি বাহিনী। তখন থেকেই মসল্লিদের ওপর বর্বরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: