সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
রেল স্টেশনে স্ক্যানার বসানোর সুপারিশ  » «   পাবনায় আব্দুর রব বগা মিয়ার ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিক উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মির্জা ফখরুলের নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টে বৈঠক নয় চা খাওয়া হয়েছে  » «   ব্যাগের ভেতরে তরুণীর লাশ  » «   শেখ হাসিনা জাতীয় যুব উন্নয়ন ইনস্টিটিউট বিল পাস  » «   বাড়ানো হয়েছে মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা  » «   খালেদার শুনানি, যা বললেন অ্যাটর্নি জেনারেল  » «   স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে সন্তানসহ অবস্থান  » «   বিচারিক আদালতে খালেদার নথি  » «   শান্তিপূর্ণ আন্দোলন ঘরে করুন, রাস্তায় কেন : কাদের  » «   বাহুবল থেকে নিখোঁজ ৩ মাদ্রাসা ছাত্র ফেনীতে উদ্ধার  » «   খালেদার সঙ্গে দেখা করতে গেছেন ৪ স্বজন  » «   মাদকের বিরুদ্ধে তথ্য অভিযান শুরু ১ মার্চ  » «   যুবককে ডেকে নিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ১  » «   সোমবার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শ্রীদেবীর শেষকৃত্য  » «  

ফরহাদ মজহার অপহরণের প্রমাণ পায়নি পুলিশ



নিউজ ডেস্ক:: কবি ও প্রাবন্ধিক ফরহাদ মজহারকে অপহরণ করে চাঁদা দাবি করার অভিযোগে যে মামলা দায়ের করা হয়েছিল সেটিতে অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা পায়নি গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আদালতে দাখিল করা পুলিশের চূড়ান্ত প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

অপরদিকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত ও হয়রানির অভিযোগ দণ্ডবিধির ২১১ ও ১০৯ ধারায় ফরহাদ মজহার ও তার স্ত্রী ফরিদা আক্তারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশন মামলা দায়েরের অনুমতি চেয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মাহাবুবুল ইসলাম আদালতের মোহাম্মদপুর থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখায় এ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন এবং মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলা করায় তাদের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেন।
সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক নিজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ফরহাদ মজহারকে অপহরণ করে চাঁদা দাবির মামলার আগামী ৭ ডিসেম্বর ধার্য তারিখ রয়েছে। সেদিন চূড়ান্ত প্রতিবেদন উপর শুনানি হবে।
গত ৩ জুলাই ভোরে শ্যামলীর রিং রোডের ১নং হক গার্ডেনের বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন ফরহাদ মজহার। পরে স্ত্রীকে নিজের মোবাইল ফোনে জানান, কে বা কারা তাকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। তাকে মেরেও ফেলা হতে পারে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ছয়বার কল করে ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়।
নিখোঁজ হওয়ার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাৎক্ষণিক উদ্যোগ নিয়ে মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে তার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয় এবং ১৯ ঘণ্টা পর যশোরের অভয়নগরে হানিফ পরিবহনের বাস থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ।
ফরহাদ মজহারের নিখোঁজের ঘটনায় ওই দিন রাতেই স্ত্রী ফরিদা আক্তার বাদী হয়ে আদাবর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ০৪। এর আগে তিনি জিডি করেছিলেন। জিডি নং- ১০১।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: