মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শেখ হাসিনার ছাত্রলীগে জামায়াতি আঁচড়!  » «   অবশেষে ক্ষমা চাইলেন জাকির নায়েক  » «   অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত না করায় ধর্ষণ বাড়ছে: হাইকোর্ট  » «   সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ‘স্পিড গান’  » «   কমলাপুর রেলওভার ব্রিজের ত্রুটির চিত্র তুলে ধরলেন ব্যারিস্টার সুমন  » «   জিন্দাবাজারে মিললো ২টি গোখরাসহ ৬ বিষধর সাপ  » «   কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনায় বসছেন ট্রাম্প- মোদী!  » «   মাত্র ১০০ মিটার দূরেই শত্রু  » «   অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে সরকার: কাদের  » «   থানায় ‘গণধর্ষণের’ শিকার সেই নারীর জামিন নামঞ্জুর  » «   মিন্নির স্বীকারোক্তির আগে নাকি পরে এসপির ব্রিফিং : হাইকোর্ট  » «   প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবারে মন্ত্রিসভার সায়  » «   নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ নিয়ে আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার  » «   পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে প্রবাসীর ওপর হামলা: দুই ছাত্রলীগ কর্মী গ্রেপ্তার  » «   সিলেটসহ রেলের পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে হাইকোর্টের রুল  » «  

‘প্লেনের বাম সাইডটি আছড়ে পড়ে প্রথমে’



প্লেনের বাম দিকে যারা ছিল তারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কারণ প্লেনটির বাম দিক প্রথমে মাটির ওপর আছড়ে পড়ে। আমি ছিলাম ডান দিকের তিন নম্বর সারিতে।’ কথাগুলো বলছিলেন নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত প্লেন থেকে বেঁচে ফেরা অাশিস রণজিৎ।

রণজিৎ বর্তমানে নেপালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা জানান।

প্লেন আছড়ে পড়ার ভয়ঙ্কর ঘটনা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি অনেক সৌভাগ্যবান। এই ঘটনার আগে প্লেনটি ভয়ানকভাবে কাঁপছিল। আমি ভয় পেয়েছিলাম আর বিমানবালাকে ডাকছিলাম। এ সময় একজন বিমানবালা তার সিট থেকে ইশারায় আমাকে জানাল ভয়ের কিছু নেই। এ সময় হঠাৎ প্লেনের গতি বেড়ে যায়। হঠাৎ বিকট আওয়াজ। যখন আমার জ্ঞান ফেরে তখন দেখি প্লেনে আগুন ধরে গিয়েছে। এ সময় অনেকে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিল আবার অনেকে চিৎকার করছিল। তাৎক্ষণিক আমি আমার সিটবেল্ট খুলে ফেলি এবং আমার যে বন্ধুর জ্ঞান ছিল সে আর আমি প্লেন থেকে লাফ দেই। আমরা বেঁচে যাই।’

এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এই দুর্ঘটনায় রণজিৎ তার হাতে ব্যথা পেয়েছেন; এ ছাড়া তার বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ সোমবার ৭১ জন আরোহী নিয়ে ঢাকা থেকে রওনা হয়ে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় দুপুরে বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলার যাত্রীবাহী প্লেন। এতে প্রাণ হারান ৫১ জন। যাত্রীদের মধ্যে ৩৩ জন নেপালি, ৩২ জন বাংলাদেশি, মালদ্বীপের দুজন ও চীনের একজন নাগরিক ছিলেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: