শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

‘প্লেনের বাম সাইডটি আছড়ে পড়ে প্রথমে’



প্লেনের বাম দিকে যারা ছিল তারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কারণ প্লেনটির বাম দিক প্রথমে মাটির ওপর আছড়ে পড়ে। আমি ছিলাম ডান দিকের তিন নম্বর সারিতে।’ কথাগুলো বলছিলেন নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত প্লেন থেকে বেঁচে ফেরা অাশিস রণজিৎ।

রণজিৎ বর্তমানে নেপালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা জানান।

প্লেন আছড়ে পড়ার ভয়ঙ্কর ঘটনা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি অনেক সৌভাগ্যবান। এই ঘটনার আগে প্লেনটি ভয়ানকভাবে কাঁপছিল। আমি ভয় পেয়েছিলাম আর বিমানবালাকে ডাকছিলাম। এ সময় একজন বিমানবালা তার সিট থেকে ইশারায় আমাকে জানাল ভয়ের কিছু নেই। এ সময় হঠাৎ প্লেনের গতি বেড়ে যায়। হঠাৎ বিকট আওয়াজ। যখন আমার জ্ঞান ফেরে তখন দেখি প্লেনে আগুন ধরে গিয়েছে। এ সময় অনেকে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিল আবার অনেকে চিৎকার করছিল। তাৎক্ষণিক আমি আমার সিটবেল্ট খুলে ফেলি এবং আমার যে বন্ধুর জ্ঞান ছিল সে আর আমি প্লেন থেকে লাফ দেই। আমরা বেঁচে যাই।’

এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এই দুর্ঘটনায় রণজিৎ তার হাতে ব্যথা পেয়েছেন; এ ছাড়া তার বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ সোমবার ৭১ জন আরোহী নিয়ে ঢাকা থেকে রওনা হয়ে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় দুপুরে বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলার যাত্রীবাহী প্লেন। এতে প্রাণ হারান ৫১ জন। যাত্রীদের মধ্যে ৩৩ জন নেপালি, ৩২ জন বাংলাদেশি, মালদ্বীপের দুজন ও চীনের একজন নাগরিক ছিলেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: