শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা  » «   সীমান্তের খালে মিয়ানমারের সেতু, বন্যার আশঙ্কা বাংলাদেশে  » «   দ্বিতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাবে বাংলাদেশ: শাবিতে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   আতিয়া মহল মামলা: ৫ দিনের রিমান্ডে ৩ আসামি  » «   শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলা: হাইকোর্টে আপিল শুনানি শুরু  » «   টিআইবির রিপোর্টে সরকার ও ইসির আঁতে ঘা লেগেছে: বিএনপি  » «   মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্যে দশ বাংলাদেশির অনন্য সাহসিকতার নজির  » «   ১৪ দলের শরিকদের বিরোধী দলে থাকাই ভালো: ওবায়দুল কাদের  » «   সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের মতো দুর্নীতির বিরুদ্ধেও ‘জিরো টলারেন্স’ : প্রধানমন্ত্রী  » «   সংসদ সদস্যদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   কৃত্রিম কিডনি তৈরি করলেন বাঙালি বিজ্ঞানী  » «   ব্রেক্সিট ইস্যু: অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন তেরেসা মে  » «   টিআইবির প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়, পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করি: সিইসি  » «   জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন শেখ হাসিনা  » «   সংসদ কার্যকর রাখতেই বিরোধী দলে জাপা : জিএম কাদের  » «  

প্রয়োজনে আলোচনা চলতে পারে তবে ডায়ালগ শেষঃ কাদের



নিউজ ডেস্ক:: আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের সাথে রাজনৈতিক দলগুলোর বৈঠক বা ডায়ালগ শেষ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আগামীকাল ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা হলে নির্বাচনের প্রস্তুতির সাথে সাথে আলোচনা এগিয়ে যেতে পারে তবে ‘ডায়ালগ শেষ’ বলে সাফ জানিয়ে দেন ওবায়দুল কাদের।

আজ বুধবার দুপুরে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের সাথে বৈঠকে বসেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। প্রথম বৈঠকের মতো এবারও আলোচনায় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্ব দেন ড. কামাল হোসেন। বৈঠক শেষে গণভবনের বাইরে সাংবাদিকদের ব্রিফিং কালে ওবায়দুল কাদের জানান, প্রয়োজনে আলোচনা চলতে পারে তবে ডায়ালগ শেষ।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের জানান যে, নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকতে পারে তবে তা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে। আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, “তাদের (ঐক্যফ্রন্ট) দাবি ছিলো সেনাবাহিনীকে মেজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে মাঠে নামানোর। এমনটা কোন গণতান্ত্রিক দেশে হয় না। তবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে। স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে স্থানীয় প্রশাসনকে সাহায্য করবে”।

বৈঠকের শুরুতে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে মিথ্যা মামলায় জেলে বন্দী আছেন এমন রাজবন্দীদের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়।এসব তালিকার মধ্যে আসলেই যারা রাজবন্দী হিসেবে কারাগারে আছেন তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আইনমন্ত্রীকে তাতক্ষণিকভাবে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

একই সাথে ঐক্যফ্রন্টের দাবি অনুযায়ী, নির্বাচনে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ নিশ্চিতের অংশ হিসেবে প্রচারণায় সরকার দলীয় কোন মন্ত্রী বা সাংসদ কোন সরকারি সুবিধা নেবেন না বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।তিনি বলেন, “মন্ত্রীরা প্রচারণায় পতাকা ব্যবহার করবেন না, সার্কিট হাউজে থাকবেন না এরকম আরও অন্যান্য সরকারি সুবিধা সরকারি কেউ ভোগ করবে না। একই সাথে বিদেশি পর্যটকেরা আসবেন এবং তাদেরকে অবাধে সব নির্বাচনী কেন্দ্র পরিদর্শনের সুযোগ রাখা হবে”।

তবে একজন প্রধান উপদেষ্টার সাথে ১০ জন অন্য উপদেষ্টা নিয়ে যে নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি করে আসছে ঐক্যফ্রন্ট তা সংবিধান পরিপন্থী বিধায় মেনে নেওয়া হবে না বলেও জানিয়ে দেন ওবায়দুল কাদের।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: