বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
শাবিতে ভর্তি পরীক্ষা: এসএমপির ১৩টি সচেতনতামূলক নির্দেশনা  » «   ব্রিটেনে ট্রাক কন্টেইনার থেকে ৩৯ মরদেহ উদ্ধার  » «   হংকংয়ের বিতর্কিত প্রত্যর্পণ বিল বাতিল  » «   প্রাথমিক শিক্ষকদের সমাবেশে পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ১০  » «   তাহিরপুরে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণে, ধর্ষক আটক  » «   ক্যাসিনোকাণ্ডে এবার পদ হারালেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি  » «   পবিত্র আখেরি চাহার শোম্বা আজ  » «   অপহরণের পর বিএনপি নেতার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার  » «   প্রাথমিক শিক্ষকদের সমাপনী ও বার্ষিক পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা  » «   পুলিশের ‘জামাই’ বলে কথা!  » «   জাস্টিন ট্রুডোকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিনন্দন  » «   ফের বাড়ছে পেঁয়াজের দাম!  » «   সুনামগঞ্জে চিকিৎসকের ওপর হামলায় চেয়ারম্যান গ্রেফতার  » «   পদ হারিয়ে যা বললেন ওমর ফারুক চৌধুরী  » «   ২৯ রোহিঙ্গা মিয়ানমারে ফিরেছে, জানেই না বাংলাদেশ  » «  

প্রয়োজনে আলোচনা চলতে পারে তবে ডায়ালগ শেষঃ কাদের



নিউজ ডেস্ক:: আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের সাথে রাজনৈতিক দলগুলোর বৈঠক বা ডায়ালগ শেষ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আগামীকাল ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা হলে নির্বাচনের প্রস্তুতির সাথে সাথে আলোচনা এগিয়ে যেতে পারে তবে ‘ডায়ালগ শেষ’ বলে সাফ জানিয়ে দেন ওবায়দুল কাদের।

আজ বুধবার দুপুরে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের সাথে বৈঠকে বসেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। প্রথম বৈঠকের মতো এবারও আলোচনায় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্ব দেন ড. কামাল হোসেন। বৈঠক শেষে গণভবনের বাইরে সাংবাদিকদের ব্রিফিং কালে ওবায়দুল কাদের জানান, প্রয়োজনে আলোচনা চলতে পারে তবে ডায়ালগ শেষ।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের জানান যে, নির্বাচনে সেনাবাহিনী থাকতে পারে তবে তা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে। আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, “তাদের (ঐক্যফ্রন্ট) দাবি ছিলো সেনাবাহিনীকে মেজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে মাঠে নামানোর। এমনটা কোন গণতান্ত্রিক দেশে হয় না। তবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে। স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে স্থানীয় প্রশাসনকে সাহায্য করবে”।

বৈঠকের শুরুতে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে মিথ্যা মামলায় জেলে বন্দী আছেন এমন রাজবন্দীদের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়।এসব তালিকার মধ্যে আসলেই যারা রাজবন্দী হিসেবে কারাগারে আছেন তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আইনমন্ত্রীকে তাতক্ষণিকভাবে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

একই সাথে ঐক্যফ্রন্টের দাবি অনুযায়ী, নির্বাচনে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ নিশ্চিতের অংশ হিসেবে প্রচারণায় সরকার দলীয় কোন মন্ত্রী বা সাংসদ কোন সরকারি সুবিধা নেবেন না বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।তিনি বলেন, “মন্ত্রীরা প্রচারণায় পতাকা ব্যবহার করবেন না, সার্কিট হাউজে থাকবেন না এরকম আরও অন্যান্য সরকারি সুবিধা সরকারি কেউ ভোগ করবে না। একই সাথে বিদেশি পর্যটকেরা আসবেন এবং তাদেরকে অবাধে সব নির্বাচনী কেন্দ্র পরিদর্শনের সুযোগ রাখা হবে”।

তবে একজন প্রধান উপদেষ্টার সাথে ১০ জন অন্য উপদেষ্টা নিয়ে যে নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি করে আসছে ঐক্যফ্রন্ট তা সংবিধান পরিপন্থী বিধায় মেনে নেওয়া হবে না বলেও জানিয়ে দেন ওবায়দুল কাদের।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: