সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রথমবার সিলেট-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে উড়বে ইউএস-বাংলা  » «   ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো ইন্দোনেশিয়ায়-জাপান-অস্ট্রেলিয়া  » «   ভোটকেন্দ্রেই ঘুমিয়ে পড়লেন কর্মকর্তা  » «   ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় পিটিয়ে মুসলিম যুবককে হত্যা  » «   নয়াপল্টনে একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণ  » «   অফিসে বসে বসে শুধু কি চা খাইলে হবে? দেশপ্রেম থাকতে হবে: হাইকোর্ট  » «   বিকেলের মধ্যে উদ্ধার কাজ শেষ হবে: রেলসচিব  » «   বাংলাদেশের নামে সড়কের নামকরন যুক্তরাষ্ট্রে  » «   সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়লেও দুর্নীতি কমছে না : টিআইবি  » «   দেশসেরা প্রধান শিক্ষক হবিগঞ্জের শাহনাজ কবীর  » «   বাঘের খাবারও চুরি হয় ঢাকা চিড়িয়াখানায়, ফেসবুকে ভাইরাল  » «   দুই মাস ওমরাহ ভিসা স্থগিত করল সৌদি  » «   বীমার আওতায় যেসব সুবিধা পাচ্ছে সরকারি চাকরিজীবীরা  » «   কারাগারে সুনামগঞ্জের আ. লীগ নেতা শামীম আহমদ  » «   মুক্তি পেয়ে নতুন যে বাড়িতে থাকবেন খালেদা  » «  

প্রেসক্লাবে অবস্থান নিয়েছে কয়েক হাজার শিক্ষক



নিউজ ডেস্ক:: স্থায়ীকরণ ও বকেয়া বেতনের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন সেকায়েপ প্রকল্পের অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষকরা।সোমবার সকাল ১০টা থেকে এ কর্মসূচি শুরু হয়।সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মো. মামুন হোসেনসহ কয়েক হাজার শিক্ষক এই মানববন্ধনে উপস্থিত রয়েছেন।

অবস্থান কর্মসূচি থেকে জানানো হয়, বিশ্ব ব্যাংক এবং সরকারের যৌথ অর্থায়নে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (সেকায়েপ) কর্তৃক নিয়োগ প্রাপ্ত প্রতিটি শিক্ষক ২০১৫ সাল থেকে প্রায় ২০টি করে ক্লাস নিয়ে যাচ্ছেন।সারাদেশের ২১০০ প্রতিষ্ঠানে ৫ হাজার ২০০ জন অতিরিক্ত শিক্ষক আছেন।আর এসব নিয়োগপ্রাপ্ত সবার ফলাফল প্রথম শ্রেণির।

এমনকি শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে অভিভাবকদের সমন্বয় সভা, অতিরিক্ত ক্লাসের মাধ্যমে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করা, বাল্যবিবাহ ও শিশু নির্যাতন বন্ধসহ বিভিন্ন ধরনের ইতিবাচক কার্যক্রম সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করছে এই শিক্ষকরা।

মানববন্ধন থেকে আরো জানানো হয়, গত ৩১ ডিসেম্বর প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলেও সেকায়েপ কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষকদের পাঠদান চালিয়ে যাওয়ার কথা বলে। যাতে নতুন প্রকল্পে স্থায়ীকরণ করা যায়। তাছাড়া প্রকল্পের মেয়াদ শেষে এসব শিক্ষকদের এমপিওভুক্তকরণ করার কথাও বলা হয়। যা এসিটি ম্যানুয়ালের ৩৬ নং ধারায় উল্লেখ আছে। আর এখন ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও স্থায়ীকরণ করা হয়নি। একইসঙ্গে গত ৯ মাস ধরে আমরা কোনো বেতনও পাচ্ছি না।

এসিটি অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি কৌশিক চন্দ্র বর্মণ বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের চাকরি স্থায়ীকরণের যৌক্তিক ঘোষণা না দেওয়া হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের অবস্থান কর্মসূচি চলবে। আমরা চাই, শিক্ষার্থীদের কথা ভেবে, শিক্ষকদের কথা ভেবে সরকার একটা যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেবেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: