শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনে দ্বিতীয় জনপ্রিয় ভাষা বাংলা  » «   ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে সাব-রেজিস্ট্রার আটক  » «   আর কোনো হায়েনার দল বাংলার বুকে চেপে বসতে পারবে না  » «   সিলেটে মুক্তিযুদ্ধের পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করলেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   ফের জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সভাপতি সালমা ইসলাম এমপি  » «   বিয়ানীবাজারে ৯৯০ পিস ইয়াবাসহ পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   আয়কর দিবস উপলক্ষে সিলেটে বর্ণাঢ্য র‌্যালি  » «   এবার শ্রীমঙ্গলে ট্রেনের ইঞ্জিনে আগুন  » «   বেলজিয়ামে মসজিদে তালা দেওয়ায় বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ  » «   পায়রা উড়িয়ে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা শাখার সম্মেলন উদ্বোধন  » «   ভারতের অর্থনীতির দুরবস্থা, জিডিপি কমে সাড়ে ৪ শতাংশ  » «   পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা  » «   লন্ডন ব্রিজে আবারও সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ২  » «   চীন থেকে মা-বাবার জন্য পেঁয়াজ নিয়ে এলেন মেয়ে  » «   রক্তে ভাসছে ইরাক, নিহত ৮২  » «  

প্রেমে রাজী না হওয়ায় তরুণীর প্রেমিককে হত্যা!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::সহকর্মীকে ভালোবেসে করতে চেয়েছিলেন প্রেমের সম্পর্ক। কিন্তু, বহুবার প্রেম নিবেদন করেও কাজ হয়নি। কারন দীর্ঘ দিন ধরেই প্রেমিকের সঙ্গে রয়েছেন। তাদের তিন বছরের সন্তানও রয়েছে। তবে তা সত্ত্বেও নাছোড়বান্দা। আর সে জন্য ব্যর্থ প্রেমের প্রতিশোধ নিতে সেই সহকর্মীর প্রেমিককে খুন করে পুলিশের হাতে ধরা পড়লেন কেভিন প্রসাদ নামের এক ব্যক্তি।

গত ২৫ এপ্রিল একটি গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন ওই নারী এবং তার ৩১ বছর বয়সী প্রেমিক মার্ক ম্যানগাকাট। সান মাতেও কাউন্টি এলাকায় তাদের বাড়িতে গাড়ি ঢোকামাত্র এক ব্যক্তি মার্কের ওপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

পর পর ছয়টি গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যায় মার্কের দেহ। তবে ওই নারী প্রাণে বেঁচে যান। ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। একের পর এক ব্যক্তির বয়ান রেকর্ড করা শুরু হয়। মার্কের সঙ্গে কারো কোনো শত্রুতা ছিল না বলে জানিয়েছেন কাউন্টি পুলিশের আইনজীবী স্টিভ ওয়াগস্টাফ। সে সময় কেভিনের ওপর সন্দেহ হয়নি পুলিশের।

সন্দেহ হয়নি ওই নারীরও। তবে পুলিশের কাছে নিজের বয়ানে হঠাৎ ওই নারী জানান, মাস কয়েক ধরেই কেভিন তাকে ডেটিং-এ যাওয়ার প্রস্তাব দিচ্ছে। সেই প্রস্তাবে রাজি করাতে এক বার তাকে উপহার হিসেবে জুয়েলারিও দিয়েছিলেন। তবে বরাবরই কেভিনের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছেন তিনি।

এর পরেই কেভিনকে নিয়ে সন্দেহ হয় পুলিশের। জবানবন্দির ওই সূত্র ধরেই শেষমেশ পুলিশের জালে পড়ে কেভিন। স্টিভ জানিয়েছেন, ২৫ এপ্রিল ওই নারী কেভিনকে বলেছিলেন তিনি মার্কের সঙ্গে পাকাপাকিভাবে লাস ভেগাসে চলে যাচ্ছেন।

কেভিন তখন তাকে সেখানে যেতে নিষেধ করেন। পরের দিন প্রায় আট মাইল ওই নারী এবং তার প্রেমিকের গাড়ির পিছু ধাওয়া করে কেভিন ও তার বন্ধু ডোনোভান ম্যাথু রিভেরা। রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ গাড়ি ওই নারীর বাড়ির গ্যারেজে ঢোকামাত্রই মার্কের ওপর হামলা করে কেভিন।

খুনের অভিযোগ কেভিন এবং তার বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, রাগের বশে নয়, নিজের বন্ধুর সঙ্গে রীতিমতো পরিকল্পনা করেই ওই খুন করেছেন কেভিন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: