সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ইতালির নাগরিকত্ব হারাতে পারেন ৩ হাজার বাংলাদেশি  » «   নবীগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই ৫টি ঘর, ১২ লাখ টাকার ক্ষতি  » «   ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি-সম্পাদকের প্রতিশ্রুতি  » «   শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, আহত ৩০  » «   চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  » «   মাসিক বেতনে চালক নিয়োগের নির্দেশ হাইকোর্টের  » «   কাশ্মিরের মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধের দাবিতে মৌলভীবাজারে বিক্ষোভ মিছিল  » «   হাজিদের দেশে ফেরার শেষ ফ্লাইট আজ  » «   আফগান সীমান্তে ৪ পাকিস্তানি সেনা নিহত  » «   ঈদের খরচ হিসেবে ‘ন্যায্য পাওনা’ চেয়েছিলাম: রাব্বানী  » «   পুলিশ সুপারদের কুচকাওয়াজে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  » «   ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয়-লেখক  » «   হিন্দি চাপিয়ে দিলে ভাষা যুদ্ধের হুমকি, রাজ্যে রাজ্যে প্রতিবাদ  » «   শিক্ষামন্ত্রীর কড়া চিঠি  » «   পরিবহন ধর্মঘটে বিপর্যস্ত প্যারিস; ৩৮০ কিমি ট্র্যাফিক জ্যাম!  » «  

প্রেমে রাজী না হওয়ায় তরুণীর প্রেমিককে হত্যা!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::সহকর্মীকে ভালোবেসে করতে চেয়েছিলেন প্রেমের সম্পর্ক। কিন্তু, বহুবার প্রেম নিবেদন করেও কাজ হয়নি। কারন দীর্ঘ দিন ধরেই প্রেমিকের সঙ্গে রয়েছেন। তাদের তিন বছরের সন্তানও রয়েছে। তবে তা সত্ত্বেও নাছোড়বান্দা। আর সে জন্য ব্যর্থ প্রেমের প্রতিশোধ নিতে সেই সহকর্মীর প্রেমিককে খুন করে পুলিশের হাতে ধরা পড়লেন কেভিন প্রসাদ নামের এক ব্যক্তি।

গত ২৫ এপ্রিল একটি গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন ওই নারী এবং তার ৩১ বছর বয়সী প্রেমিক মার্ক ম্যানগাকাট। সান মাতেও কাউন্টি এলাকায় তাদের বাড়িতে গাড়ি ঢোকামাত্র এক ব্যক্তি মার্কের ওপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

পর পর ছয়টি গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যায় মার্কের দেহ। তবে ওই নারী প্রাণে বেঁচে যান। ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। একের পর এক ব্যক্তির বয়ান রেকর্ড করা শুরু হয়। মার্কের সঙ্গে কারো কোনো শত্রুতা ছিল না বলে জানিয়েছেন কাউন্টি পুলিশের আইনজীবী স্টিভ ওয়াগস্টাফ। সে সময় কেভিনের ওপর সন্দেহ হয়নি পুলিশের।

সন্দেহ হয়নি ওই নারীরও। তবে পুলিশের কাছে নিজের বয়ানে হঠাৎ ওই নারী জানান, মাস কয়েক ধরেই কেভিন তাকে ডেটিং-এ যাওয়ার প্রস্তাব দিচ্ছে। সেই প্রস্তাবে রাজি করাতে এক বার তাকে উপহার হিসেবে জুয়েলারিও দিয়েছিলেন। তবে বরাবরই কেভিনের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছেন তিনি।

এর পরেই কেভিনকে নিয়ে সন্দেহ হয় পুলিশের। জবানবন্দির ওই সূত্র ধরেই শেষমেশ পুলিশের জালে পড়ে কেভিন। স্টিভ জানিয়েছেন, ২৫ এপ্রিল ওই নারী কেভিনকে বলেছিলেন তিনি মার্কের সঙ্গে পাকাপাকিভাবে লাস ভেগাসে চলে যাচ্ছেন।

কেভিন তখন তাকে সেখানে যেতে নিষেধ করেন। পরের দিন প্রায় আট মাইল ওই নারী এবং তার প্রেমিকের গাড়ির পিছু ধাওয়া করে কেভিন ও তার বন্ধু ডোনোভান ম্যাথু রিভেরা। রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ গাড়ি ওই নারীর বাড়ির গ্যারেজে ঢোকামাত্রই মার্কের ওপর হামলা করে কেভিন।

খুনের অভিযোগ কেভিন এবং তার বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, রাগের বশে নয়, নিজের বন্ধুর সঙ্গে রীতিমতো পরিকল্পনা করেই ওই খুন করেছেন কেভিন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: