মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
লিপস্টিক যখন মাজাদার খাবার!  » «   কিশোরী ধর্ষণের প্রমান মেলায় ২ নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র  » «   শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ শিক্ষা দিতে হবে- রেজাউল রহিম লাল  » «   মাশরাফির রংপুরের কাছে নাসিরের সিলেটের পরাজয়!  » «   যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু  » «   সালমানের স্ত্রী-সন্তান থাকে বিদেশে!  » «   পুলিশ পেটালো ছাত্রলীগ!  » «   চুয়াডাঙ্গায় সাপের কামড়ে একজনের মৃত্যু  » «   বিপিএল পয়েন্ট টেবিলে কে কোথায় দাঁড়িয়ে  » «   আম্পায়ারের সঙ্গে সাকিবের এ কেমন আচরণ!  » «   সংসদে বাদলকে তুলোধুনো করলেন নৌমন্ত্রী  » «   ৭ মার্চ কেন জাতীয় দিবস নয় : হাইকোর্ট  » «   আজ সুফিয়া কামালের জন্মদিন  » «   অভিবাসীবিরোধী নন ট্রাম্প  » «   আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন করবেন শাহরুখ  » «  

প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীদের জোরপূর্বক নগ্ন ভিডিও ধারণ



নিউজ ডেস্ক::টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে ঘরে ঢুকে নবম শ্রেণির ছাত্রী দুই বোনকে ধর্ষণের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানীর প্রতিবাদে আসামীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার পাথরাইল ইউনিয়নের দেওজান সমাজ কল্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও এলাকাবাসী এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরুন্নাহার হক, প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, স্কুল ছাত্রী রাখী, শবনম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এদিকে দুই ছাত্রীকে উলঙ্গ করে ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাক মেইল করার ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ওই দুই ছাত্রীর মা গত ২৩ অক্টোবর দেলদুয়ার থানায় মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, দেলদুয়ার উপজেলার চিনাখোলা গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রী গত ১৭ অক্টোবর (মঙ্গলবার) দুই মেয়েকে বাড়িতে রেখে বাবার বাড়ি বেড়াতে যান।

ওইদিন রাত ৯টার দিকে দেওজান গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে মো. শরিফ মিয়া(৩০), চিনাখোলা গ্রামের দারোগ আলীর ছেলে শাপচান মিয়া(৩৫), ইয়াছিন মিয়ার ছেলে জব্বার মিয়া (৩০) ও ইমান আলীর ছেলে মোশারফ মিয়া(৩২) প্রবাসীর স্ত্রীর অনুপস্থিতির সুযোগে বাড়িতে ঢুকে।

তারা ওই দুইবোনকে অনৈতিক কাজ করার প্রস্তাব দেয়। এতে অস্বীকৃতি জানালে অস্ত্রের মুখে দুই বোনকে উলঙ্গ করে জব্বার মিয়া ও শাপচান মিয়াকে দিয়ে নানা অঙ্গভঙ্গির অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে। ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তারা ২৭ হাজার ৬০০ টাকা হাতিয়ে নেয়।

পরে তারা ওই ভিডিও স্থানীয়দের মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেয়। পরে দুই স্কুল ছাত্রীর মা বাদি হয়ে উল্লেখিতদের অভিযুক্ত করে দেলদুয়ার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ।

ঘটনার শিকার দুই স্কুল ছাত্রী জানান, ওইদিন রাতে তারা দুই বোন রাতে পড়ালেখা করছিলেন। এমন সময় মো. শরিফ মিয়ার ডাকে ঘরের দরজা খোলা মাত্রই তারা কু-প্রস্তাব দেয়। রাজি না হওয়ায় ঘরের দরজা আটকে দা-ছুরির ভয় দেখিয়ে কাপড় খুলে ভিডিও ধারণ করে এবং ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে দুই লাখ টাকা দাবি করেন। তারা ঘরে রাখা ২৭ হাজার ৬০০টাকা মো. শরিফ মিয়ার হাতে তুলে দেন এবং ভিডিও নষ্ট করে ফেলার অনুরোধ করেন।

মামলার বাদি ও দুই স্কুল ছাত্রীর মা জানান, মো. শরিফ মিয়া নিজেকে সেনাবাহিনীর সদস্য ও র‌্যাবের সোর্স হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকে। তার নেতৃত্বে শাপচান, জব্বার ও মোশারফ মিলে যে অপকর্ম করেছে তা আল্লাহ সহ্য করবেনা। তিনি দুস্কৃতকারী চারজনের বিচার দাবি জানান।

দেওজান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাটির নিন্দা জানানোর ভাষা তার জানা নেই। ওই দুই ছাত্রীর মা বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য। তিরি শরিফ, শাপচান, জব্বার ও মোশারফের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

দেলদুয়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহিরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি নিন্দনীয়। এ বিষয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: