শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
‘অন্তরঙ্গ দৃশ্য প্রয়োজন ছিল তাই করেছি’  » «   মিশরে জুমার নামাজে হামলা, নিহত ৫৪  » «   কুবিতে বিজ্ঞাপনের গেইট, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ  » «   কুমিল্লায় যুবককে হত্যা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ২  » «   ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষে ট্রেনচালক নিহত  » «   ভুল চিকিৎসায় মা ও নবজাতকের মৃত্যু, ডাক্তার পলাতক  » «   বারী সিদ্দিকীর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক  » «   আজ থেকে বিপিএল উৎসব চট্টগ্রামে  » «   সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিমের সমর্থনে যুক্তরাজ্যে মতবিনিময়  » «   রুশ বিপ্লবের শতবর্ষে ওয়ার্কার্স পার্টির লাল পতাকা মিছিল  » «   গাছ ভর্তি ট্রাক জব্দ  » «   গোপালগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় কৃষকের মৃত্যু  » «   কমলগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে খাসি (খাসিয়া) বর্ষ বিদায় উৎসব পালন  » «   জেনে নিন মিস ওয়ার্ল্ড মানুসীর ডায়েট প্লান!  » «   ধর্ষণের শিকার হয়ে পাঁচ শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ!  » «  

প্রধান বিচারপতি এখন কোথায়?



নিউজ ডেস্ক::সরকারের সঙ্গে প্রায় ৩ মাস টানাপোড়েনের পর শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে তোপের মুখে থাকা প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা ছুটি নিয়ে দেশত্যাগের ২৮ দিনের মাথায় সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনে শুক্রবার রাষ্ট্রপতি বরাবর পদত্যাগপত্রটি জমা দেন।

বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ২১ জন বিচারক প্রধান বিচারপতির পদে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন, তাদের মধ্যে বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাই প্রথম, যিনি এভাবে পদত্যাগ করলেন। তার পদত্যাগের বিষয়টিকে নজিরবিহীন বলেছেন অনেকেই।

বিদেশে অবস্থানরত এসকে সিনহা তার নেয়া ছুটির মেয়াদের শেষ দিনে এমন এক সময়ে পদত্যাগ করলেন, যখন তার দেশে ফেরা নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। ১৩ অক্টোবর ঢাকা ছাড়ার আগে প্রধান বিচারপতি বলেছিলেন, ‘আমি অসুস্থ নই। আমি সম্পূর্ণ সুস্থ। বিচার বিভাগের স্বার্থে ফিরে আসব।’

২০১৫ সালের ১৭ জানুয়ারি প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পাওয়া এসকে সিনহার ৩১ জানুয়ারি অবসরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে তাকে অবসরে যাওয়ার ৮১ দিন আগেই পদত্যাগ করতে হল।

এসকে সিনহার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, তিনি দেশে ফিরে পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নানা কারণে পরিবারের সদস্যদের অনুরোধে সিঙ্গাপুরে বসেই পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করেন। তার পদত্যাগপত্র বঙ্গভবনে এসে পৌঁছেছে বলেও জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন।

পদত্যাগী প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা এখন কানাডার টরন্টোতে অবস্থান করছেন। কানাডার উদ্দেশ্যে সিঙ্গাপুর ত্যাগের পূর্বে প্রধান বিচারপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। ওইদিনই পদত্যাগপত্রটি দূতাবাসের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি বরাবর পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এরপর শনিবার প্রধান বিচারপতি কানাডায় এসে পৌঁছান। সেখানে তিনি দীর্ঘদিন বসবাস করতে পারেন বলে পারিবারিক একটি সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

ওই সূত্র জানায়, বিচারপতি সিনহা কানাডায় পৌঁছানোর পর বিশ্রাম নেন। এরপর তিনি বাংলাদেশে অবস্থানরত তার ঘনিষ্ঠ আত্নীয়-স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন। কেন পদত্যাগ করেছেন সেই বিষয়টিও তাদেরকে তিনি জানিয়েছেন।

কি কারণে পদত্যাগ করেছেন এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই সূত্র জানায়, বিচারপতি সিনহা নিজেই নিজের সকল বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকেন। এমনকি কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বে তিনি তার পরিবারের ঘনিষ্ঠজনদেরকেও কিছু বলেন না।

এদিকে কানাডাভিত্তিক বাংলা পত্রিকা নতুন দেশের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কানাডাতে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বসবাস দীর্ঘ হতে পারে বলে তার সঙ্গে যোগাযোগ আছে এমন সূত্রগুলো আভাস দিয়েছে। টরন্টো পিয়ারসন ইনটারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট থেকে তাকে ডাউন টাউনে ভাড়া করা একটি বাসায় নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানা যায়। তার বসবাসের জন্য এই বাড়িটি ভাড়া করা হয় বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, ভিজিটর হিসেবে কানাডায় আসা যে কেউ ছয় মাস পর্যন্ত এই দেশে অবস্থান করতে পারেন। এর পর অসুস্থতা বা যুক্তিসঙ্গত কারণে সেটি বাড়ানোর আবেদন করলে কানাডা ইমিগ্রেশন সেটি বিবেচনায় নেয়। ফলে বিচারপতি সিনহার দীর্ঘ সময় কানাডায় অবস্থান করার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা নেই।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: