মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
পর্নোগ্রাফির মামলা নিয়ে ভাবছেন না কুসুম শিকদার  » «   ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত আশরাফুল  » «   ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সন্তান পরিচয় দিয়ে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকুরী  » «   মানববন্ধনে রিজভীচাল নেই: সরকারি গোডাউনে ইঁদুর খেলা করছে  » «   নতুন বিয়ে নিয়ে মুখ খুললেন ময়ূরী  » «   ‘যৌন নিপীড়ন বন্ধে বাংলাদেশ জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে’  » «   মৌলভীবাজারে অং সান সুচির কুশপুত্তলিকা দাহ  » «   ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ুয়াদের অভিভাবকের নাম অন্তর্ভুক্তি চেয়ে রিট  » «   পদ্মায় নিখোঁজ কনস্টেবলের মরদেহ ২৪ ঘন্টায় উদ্ধার হয়নি  » «   রাজধানীর পানিতে ঝুঁকিপূর্ণ জীবন  » «   উপজেলা পর্যায়ে চালু হচ্ছে ওএমএস  » «   ‘মধ্যরাতে আমাকে ঘিরে ধরে মাতালেরা, এরপর শুরু করে…’  » «   ভদ্র চালকদের জন্য পুরস্কার  » «   শাহজালালে সিগারেটসহ ৬ ভারতীয় নাগরিক আটক  » «   ৮ সন্তানকে আনতে পেরেছি আরেকজন জেলে  » «  

‘প্রধানমন্ত্রী ও আমি একই এলাকার বউ’



নিউজ ডেস্ক:: ‘প্রধানমন্ত্রী এ এলাকার (রংপুর বিভাগ) বউ, আমিও এ এলাকার বউ। প্রধানমন্ত্রীও গোপালগঞ্জের মেয়ে, আমিও গোপালগঞ্জের মেয়ে। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ দিয়েছেন, আর তার মেয়ে শেখ হাসিনা দিলেন ঘর ও জমি। শুধু এতেই শেষ নয়। প্রধানমন্ত্রী আমাদের সোলার বিদ্যুৎ দিয়েছেন। একটি বাড়ি একটি খামারের সদস্য হওয়ায় ছাগল পেয়েছি, মুরগি পেয়েছি। সব মিলে আমরা যারা ছিন্নমূল মানুষ ছিলাম তারা এখন ভালো আছি। আমরা দোয়া করি আপনি যেন সারাজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকেন।’
কথাগুলো খুব আবেগের সঙ্গে বলেন লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলাধীন সানিয়াজং গুচ্ছগ্রামের নতুন বাসিন্দা আফরোজা বেগম।
প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, ছিন্নমূল মানুষ হিসেবে, গ্রামের একজন মানুষ হিসেবে আপনার মতো একজন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যে কথা বলতে পারব, এটা স্বপ্নেও ভাবিনি। এ সুযোগ আর জীবনে পাব কি না জানি না। তবে আপনি যে আমাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিলেন তাতে আপনার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। দূর থেকে আমরা আপনার জন্য দোয়া করব, আপনার সঙ্গে থাকব।
আফরোজা খাতুনের কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী তার জবাবে বলেন, আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে পেরে আমারও খুব ভালো লাগল, আনন্দিত হলাম। আপনাদের মতো গৃহহারা মানুষের জন্য যে গৃহের ব্যবস্থা করে দিতে পেরেছি তাতেও আমি খুশি। আপনারা দোয়া করবেন, এ দেশের প্রতিটি মানুষের মৌলিক অধিকার যেন পূরণ করতে পারি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলেন, সে স্বপ্ন যেন পূরণ করতে পারি।
বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সাত জেলায় ১১টি গুচ্ছগ্রাম উদ্বোধন করেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি গুচ্ছগ্রামের উদ্বোধন করেন।
এসময় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে- সবার জন্য মাথা গোঁজার ঠাঁই নিশ্চিত করা। অন্তত একটি করে টিনের ঘর হলেও আমরা তা করে দেব। গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দাদের জন্য লোনের বিশেষ সুবিধা আছে। এছাড়া একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সদস্য হিসেবে আপনারা হাঁস, মুরগি, গরু, ছাগল পাবেন। সেগুলো পালন এবং জমিতে শাক-সবজি চাষের মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করে নেবেন।
ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এবং ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেজাউল করিম হীরা এসময় গণভবনে উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) কবির বিন আনোয়ার ভিডিও কনফারেন্সটি সঞ্চালনা করেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: