মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মাত্র ১০০ মিটার দূরেই শত্রু  » «   অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে সরকার: কাদের  » «   থানায় ‘গণধর্ষণের’ শিকার সেই নারীর জামিন নামঞ্জুর  » «   মিন্নির স্বীকারোক্তির আগে নাকি পরে এসপির ব্রিফিং : হাইকোর্ট  » «   প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবারে মন্ত্রিসভার সায়  » «   নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ নিয়ে আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার  » «   পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে প্রবাসীর ওপর হামলা: দুই ছাত্রলীগ কর্মী গ্রেপ্তার  » «   সিলেটসহ রেলের পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে হাইকোর্টের রুল  » «   বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া নয়, আ.লীগ নেতারা জড়িত : ফখরুল  » «   রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন: ‘শঙ্কা’ নিয়েই প্রস্তুত বাংলাদেশ  » «   সুনামগঞ্জে বিষপানে যুবকের আত্মহত্যা  » «   পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইভিনিং প্রোগ্রামে জমজমাট শিক্ষা বাণিজ্য  » «   ১০ দিনে ১৭৫ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা  » «   আজ বাংলাদেশে আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, গুরুত্ব পাবে তিস্তা চুক্তি  » «   হবিগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু  » «  

প্রধানমন্ত্রীর কাছে রাজনের বাবার ৪ দফা দাবিতে যা আছে…



1. rajonনিউজ ডেস্ক::
সিলেটের কুমারগাঁওয়ে পৈশাচিক নির্যাতনে নিহত শিশু শেখ সামিউল আলম রাজনের বাবা শেখ আজিজুর রহমান আলম প্রধানমন্ত্রীর কাছে চারদফা দাবি তুলে ধরেছেন। সোমবার সিলেটের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর পাঠানো এক স্মারকলিপিতে তিনি এই চার দফা দাবি জানান।
রাজনের বাবা যে চারটি দাবি তুলে ধরেছেন সেগুলো হচ্ছে,

১.সৌদি আরবে আটক রাজনের হত্যাকারী কামরুলকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা
২.দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি
৩.বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি ধামাচাপার চেষ্টাকারীদের শাস্তি ও সেই অপরাধে সহযোগিতাকারীদের শাস্তি
৪.তিনিসহ পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা

স্মারকলিপিতে ঘটনার পরে প্রশাসনের অসহযোগীতা ও আসামিদের পক্ষ নেয়ার সমালোচনা করেন রাজনের বাবা আজিজুর রহমান। তিনি উল্লেখ করেন, রাজন হত্যার পর পুলিশ বাদী হয়ে একটি ‘মনগড়া’ এজাহার দায়ের করে। এজাহার দেখে বোঝা যায়, আসামিদের বাঁচানোর জন্য পরিকল্পনার মাধ্যমে একটি দায়সারা এজাহার দায়ের করা হয়। যে কারণে পরে তিনি নিজে বাদী হয়ে আরেকটি এজাহার দায়ের করেন।

প্রসঙ্গত, গত ৮ জুলাই সিলেট শহরতলীর কুমারগাঁওয়ে শিশু রাজনকে পিটিয়ে হত্যা করে কামরুল-মুহিতসহ তাদের সহযোগীরা। একইসঙ্গে ঘটনার ভিডিও ধারণ করা হয়। রাজনকে পেটানোর দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সারাদেশে সৃষ্টি হয় তোলপাড়। এ ঘটনায় পুলিশ এ পর্যন্ত ১৩ জনকে আটক করেছে।

এর মধ্যে এই মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন ৮ জন। এ হত্যার ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলা ও গাফিলতির দায়ে এরই মধ্যে জালালাবাদ থানার ওসি (তদন্ত) আলমগীর হোসেন এবং এস আই জাকির হোসেন ও আমিনুল ইসলামকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: