বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জানাজার জন্য জায়ানের মরদেহ চেয়ারম্যান বাড়ি মাঠে  » «   ফেনীর এসপি-ওসিসহ ৪০ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ  » «   শেখ হাসিনা আমাকে প্রতিবছর মিষ্টি পাঠান : মোদি  » «   ‘বেলা তুমি বিয়ে করে ফেলো, আমি সেশনজটে আটকে গেছি’  » «   ২২ মে শুরু ঈদে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি  » «   রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুনে মসজিদসহ ৩০টি ঘর পুড়ে ছাই  » «   প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে হাইকোর্টে রিট  » «   টুইটারে ফলোয়ার কমছে ট্রাম্পের, কারণ জানতে বৈঠক  » «   দেশে পৌঁছেছে জায়ানের মরদেহ  » «   বারাক ওবামাকে হত্যার জন্য প্রশিক্ষণ নিচ্ছিল যারা  » «   জায়ানকে শেষবারের মতো দেখতে যাবেন দাদু শেখ হাসিনা  » «   যুদ্ধাপরাধের দায়ে নেত্রকোনার দুই রাজাকারের ফাঁসির আদেশ  » «   হবিগঞ্জে ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে টাকা-মোবাইল লুট  » «   শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫৯, গ্রেপ্তার ৫৮  » «   রানা প্লাজা ট্র্যাজেডির ৬ বছর, কূলকিনারা হয়নি মামলার  » «  

প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে ৩ লাশ



dead-1নিউজ ডেস্ক:চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার গণ্ডামারা এলাকায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ নিয়ে সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হন পুলিশ সদস্যসহ অর্ধশতাধিক মানুষ।
সোমবার বিকেলে উপজেলার গণ্ডামারা এলাকায় এলাকাবাসীর সঙ্গে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের জমি অধিগ্রহণকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, প্রকল্পটির বিরুদ্ধে স্থানীয়রা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে। এ নিয়ে কয়েকদিন ধরে বিদ্যুৎ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের সঙ্গে তাদের কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় এলাকাবাসীকে আসামি করে বাঁশখালী থানায় চারটি মামলা করা হয়।
মামলা ও জমি অধিগ্রহণের প্রতিবাদে আজ বিকেলে সমাবেশের আয়োজন করে গণ্ডামারা এলাকাবাসী। এ সময় বিদ্যুৎ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের লোকজনের সঙ্গে এলাকাবাসী ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ ঘটে। এতে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে স্থানীয়রা বলছেন তাদের প্রতিবাদ মিছিলে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে ওই তিনজন নিহত হন।
নিহতরা হলেন- গণ্ডামারা এলাকার মৃত আশরাফ আলীর ছেলে মরতুজা আলী ও আনোয়ার হোসেন আংকুর এবং নূর আহমদের ছেলে জাকের আহমদ। এ ছাড়া গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এলাকাবাসীর হাতে চিকিৎসাধীন আছেন মফিজুর রহমানের ছেলে বাদশা মিয়া। বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ সদস্যসহ আহত ১৫ জনেক ভর্তি করা হয়েছে।
জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মো. হাবিব জানান, এ ঘটনায় সাত পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তবে এলাকাবাসীর মৃত্যুর ঘটনার এখনো কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: