শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
নিজেদের বিমান বাহিনী থেকে সুরক্ষা পেতেই এরদোগানের এস-৪০০ ক্রয়!  » «   জাপানে অ্যানিমেশন স্টুডিওতে অগ্নিসংযোগ, নিহত ১২  » «   খাদ্য ঘাটতি পূরণ করেছি, এখন লক্ষ্য পুষ্টি: প্রধানমন্ত্রী  » «   রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে মিন্নি  » «   বাংলাদেশের পতাকার আদলে অন্তর্বাস বিক্রি করছে অ্যামাজন  » «   রিফাত হত্যাকাণ্ড: এবার রিশান ফরাজীও গ্রেফতার  » «   বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কেলেঙ্কারি: সিস্টেম লস নয় দুর্নীতি  » «   বন্যার কারণে জাতীয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পরীক্ষা স্থগিত  » «   হঠাৎ কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে শক্ত পদক্ষেপ, মাঠে নামছে র‌্যাব  » «   ধসে পড়া ভবনে মিললো বাবা-ছেলের মরদেহ  » «   ইসরাইলের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের তীব্র নিন্দা  » «   ‘নয়ন বন্ডের বাড়িতে বসেই স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করেন মিন্নি’  » «   সিলেটের ২ জনসহ দেশসেরা ১২ শিক্ষার্থীকে পুরস্কার দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   বেনাপোল ও বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   উপজেলা নির্বাচন: সিলেটে আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের বহিষ্কারের তালিকা  » «  

পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি এক লাফে বেড়েছে ২০ টাকা



peyazনিউজ ডেস্ক::
এক দিনের ব্যবধানে খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৬৫ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ টাকায়। এক কেজি পেঁয়াজে ২৪ ঘণ্টায় বিশ টাকা দাম বাড়লেও স্থানভেদে পার্থক্য দেখা গেছে। এদিকে হঠাৎ দাম বাড়ায় খুচরা বাজার ও পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দামেও অসামঞ্জস্যতা সৃষ্টি হয়েছে।
রোববার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, স্থানভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮৫ টাকা দরে। রাজধানীর ধানমন্ডি-আসাদগেট এলাকায় ৮৫ টাকা, ঝিগাতলায় ৭৫-৮০ টাকা, কারওয়ান বাজারে ৭৫ টাকা দরে খুচরা মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা গেছে। শনিবার এসব এলাকার বিক্রেতারা ৬৫ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন।

এদিকে রোববার সকাল থেকেই কারওয়ান বাজারে পাইকারিভাগে ৮০ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। এর ফলে খুচরা বাজার ও পাইকারি বাজারের পেঁয়াজের মূল্যে অসামঞ্জস্যতার সৃষ্টি হয়েছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় পেঁয়াজের মূল্যেও পার্থক্য দেখা গেছে। নেত্রকোনার সুসং দুর্গাপুর রফিকুল ইসলাম ফেসবুকে একটি পোস্টে জানান, স্থানীয় বাজারে ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ।

পাইকারি ও খুচরা মূল্যের এ অসামাঞ্জস্যতা সম্পর্কে কারওয়ান বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী মজনু প্রিয়.কম-কে বলেন, ‘গতকাল (শনিবার) আমরা ৬২ থেকে ৬৩ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করলেও আজ সে মূল্য প্রায় ১৮ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। অসামাঞ্জস্যতা সৃষ্টির কারণ হচ্ছে গতকাল যারা ৬২ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনেছেন তারা আজ ৭৫ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি করতে পারছেন।’

এমন কথা বলছেন খুচরা বিক্রেতারাও। তারা জানান, দাম বেড়ে গেলেও আগে কম দামে পাইকারি মূল্যে পেঁয়াজ ক্রয় করেছিলেন। ফলে এখনও তারা কম দামে বিক্রি করতে পারছেন। তবে অনেকেই দাম বাড়িয়ে ৮৫ টাকায় বিক্রি করছেন।

মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসেবে রাজধানীর শ্যাম বাজারের রতন শাহা দুষলেন ভারতে পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধিকে। তবে এ অবস্থায় তারা মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে ঘাটতি কমানোর চেষ্টা করছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে আমদানি করলে তা নৌপথে আমদানি করতে হয় যা অনেক ঝুঁকিপূর্ণ। এই ঝুঁকি নিয়ে অনেকেই মিয়ানমার থেকে আমদানি করতে চান না।’ পেঁয়াজের দাম আরো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তিনি।
উল্লেখ্য সম্প্রতি ভারতে পেঁয়াজের দাম কয়েক দফা বৃদ্ধি পেয়ে কেজি প্রতি ৮০ রুপিতে দাঁড়িয়েছে। আর সেই প্রভাবে প্রতিদিনই দেশের বাজারে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম।-প্রিয়.কম

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: