সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
গাদ্দাফিকে হত্যায় ফ্রান্সের হাত থাকার ঘটনা ফাঁস!  » «   গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়া অভিনব প্রতিবাদ  » «   আইনজীবীর সহকারী হত্যা : ১২ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «   শয়তানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক সৌদি যুবরাজের!  » «   মন্দিরের নিরাপত্তায় মাদ্রাসা ছাত্ররা  » «   ভোলার সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের মামলা, আসামি ৫ হাজার  » «   সৌদিতে নিহত ১১ বাংলাদেশির মধ্যে ৯ জনের পরিচয় প্রকাশ  » «   টনক নড়াতে টনিক  » «   শিক্ষামন্ত্রীর যেসব যুক্তি খণ্ডন করতে পারেননি ননএমপিও শিক্ষক নেতারা  » «   প্রথমবার মহাকাশে হাঁটলেন যে দুই নারী  » «   যে কোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার হচ্ছেন যুবলীগের বহিস্কৃত চেয়ারম্যান  » «   ‘জনগণ ভোট দিতে পারেনি’ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন মেনন  » «   ঐক্যফ্রন্টে মেনন?  » «   পরীক্ষা জালিয়াতি: এমপি বুবলীকে প্রধানমন্ত্রীর তলব  » «   মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ৫  » «  

পৃথিবীর চেয়ে পাঁচ গুণ বড় তরুণ গ্রহের খোজ



full_905997684_1466613074তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: আমাদের সৌরজগতের বাইরে ‘সবচেয়ে কম বয়সী’ নতুন একটি গ্রহের খোঁজ মিলেছে। যুক্তরাষ্ট্রের একদল জ্যোতির্বিদ গত সোমবার বলেন, এই আবিষ্কারের ফলে আমাদের গ্রহমণ্ডলের উৎপত্তি সম্পর্কে নতুন অনেক কিছু জানার সুযোগ তৈরি হয়েছে।

১ কোটি ১০ লাখ বছরের পুরোনো ওই গ্রহের নাম কে২-৩৩ বি। এর নক্ষত্রের নাম কে২-৩৩। নিজ কক্ষপথে নক্ষত্রকে একবার প্রদক্ষিণ করতে গ্রহটি মাত্র ৫ দশমিক ৪ দিন সময় নেয়। এ বিষয়ে একটি গবেষণা প্রতিবেদন ছেপেছে অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল জার্নাল। এতে বলা হয়, গ্রহগুলোর উৎপত্তির পর দ্রুত তাদের কক্ষপথের দূরত্ব নির্ধারিত হয়—আমাদের সৌরজগতের বাইরের নতুন গ্রহটির অস্তিত্ব এ রকমই ইঙ্গিত দিচ্ছে। আমাদের সৌরজগতের বাইরে এখন পর্যন্ত যত গ্রহের খোঁজ মিলেছে, সেগুলোর মধ্যে কে২-৩৩ বির বয়স সবচেয়ে কম।

নতুন গ্রহটি পৃথিবীর চেয়ে পাঁচ গুণ বড়। আমাদের পৃথিবীর বয়স প্রায় ৪৫০ কোটি বছর। সেই তুলনায় ‘তরুণ’ গ্রহটিকে ‘সুপার-নেপচুন’ আখ্যা দিয়েছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। এটির অবস্থান পৃথিবী থেকে প্রায় ৪৭০ আলোকবর্ষ দূরের স্করপিও নামের নক্ষত্রমণ্ডলে।
গবেষণা প্রতিবেদনের সহলেখক টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিদ অ্যান্ড্রু মান অনুমান করেন, কাছাকাছি অবস্থানের গ্রহগুলোর মধ্যে কক্ষপথ পরিবর্তনের ধরনের সঙ্গে তাদের উৎপত্তি বা গঠনের সম্পর্ক রয়েছে। যদি বৃহস্পতি বা নেপচুন গঠিত হওয়ার পর সূর্যের দিকে এগিয়ে আসত, সৌরজগতে পৃথিবী হয়তো থাকতই না।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার কেপলার স্পেস টেলিস্কোপ ব্যবহার করে নতুন গ্রহটি শনাক্ত করা হয়েছে। এরপর তাঁরা অন্যান্য দূরবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে কে২-৩৩ বির অস্তিত্ব সম্পর্কে নিশ্চিত হন এবং এটির গঠন-বৈশিষ্ট্য নির্ণয় করেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: