রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ভাঙছে শরিক দল সঙ্কটে ঐক্যফ্রন্ট  » «   হলি আর্টিসান হামলা: রায় ২৭ নভেম্বর  » «   চাকা ফেটেছে নভোএয়ারের, ভাগ্যগুণে বেঁচে গেলেন ৩৩ যাত্রী  » «   হাত-পা ছাড়াই মুখে ভর করে লিখে পিইসি দিচ্ছে লিতুন  » «   প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া বিএনপির চিঠিতে আবরার হত্যার বর্ণনা  » «   ১৫০ যাত্রী নিয়ে মাঝ আকাশে বিপাকে ভারতীয় বিমান, রক্ষা করল পাকিস্তান  » «   বিমান ছাড়াও ট্রেন, ট্রাক, বাসে করে আসছে পেঁয়াজ: সিলেটে পরিকল্পনামন্ত্রী  » «   চুক্তির তথ্য জানতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিল বিএনপি  » «   বোলডোজার দিয়ে সিসিকের অভিযান, উচ্ছেদ শতাধিক স্থাপনা  » «   রাজধানীতে দরজা ভেঙে সিলেটের সাংবাদিক মনসুর আলীর মরদেহ উদ্ধার  » «   স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল, সম্পাদক বাবু  » «   চার দিনের সফরে আজ আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   শ্রীলঙ্কায় মুসলিম ভোটারদের বহনকারী বাসে বন্দুকধারীদের হামলা  » «   আজ পহেলা অগ্রহায়ণ: নানা আয়োজনে চলছে ‘নবান্ন উৎসব’  » «   মোরালেস সমর্থকদের ওপর পুলিশের এলোপাতাড়ি গুলি, নিহত ৫  » «  

পৃথিবীর চেয়েও বেশি বসবাস উপযোগী পরিবেশ এক্সোপ্ল্যানেটে!



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:: পৃথিবীতে প্রাণ থাকার পেছনে অন্যতম কারণ হলো তরল পানির উপস্থিতি। আর এক্সোপ্ল্যানেটেও পানি থাকতে পারে। যা বসবাসের জন্য উপযুক্ত হতে পারে। সম্প্রতি একটি গবেষণায় এ ধরণের তথ্য উঠে এসেছে।

প্রসঙ্গত, আমাদের পৃথিবী একটি প্ল্যানেট বা গ্রহ। এই গ্রহসহ আমাদের সৌরজগতের আরও ৮টি (মতান্তরে আরও ১০টি) গ্রহ একটি নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে। আর সেই নক্ষত্র হল সূর্য। এই মহাবিশ্বে সূর্যের চেয়েও শক্তিশালী বা দুর্বল অসংখ্যা নক্ষত্র রয়েছে। আর তাদেরকে কেন্দ্র করে ঘুরছে আরো অনেক গ্রহ। সেইসকল গ্রহ বা প্ল্যানেটই হল এক্সোপ্ল্যানেট। মূলকথা আমাদের সৌরজগতের বাইরের সকল প্ল্যানেটই এক্সোপ্ল্যানেট।

গবেষণার তথ্যে বলা হয়েছে, এক্সোপ্ল্যানেটে জীবন ধারণের জন্য অনেক ভালো পরিবেশ থাকতে পারে। যা আমাদের কল্পনার চেয়েও ভালো কিছু হতে পারে। বিজ্ঞানীরা আমাদের সৌরজগতের বাইরের গ্রহের সমুদ্রের সঞ্চালন এবং বিভিন্ন ধরনের জলবায়ু অবস্থা জানার জন্য সফটওয়্যারটি রোক -৩ (থ্রি) ডি ব্যবহার করেন।

পৃথিবীতে জীবন একটি ঊর্ধ্বমুখী প্রবাহ বা উচ্ছ্বাসের উপর নির্ভর করে। যা অন্ধকার থেকে তৈরি হয়ে আলোকজ্জ্বল অংশগুলো থেকে পুষ্টি সঞ্চার করে, যেখানে আলোকসংশোধনমূলক জীবন সমৃদ্ধ হয়। গবেষকরা বলছেন, মূলত সূর্যের আলো থেকেই পুষ্টির পুনর্নির্মাণ হয় এবং জৈবিক ক্রিয়াকলাপ সম্পাদিত হয়।

তাই গবেষকদল সফটওয়্যার ব্যবহার করে গ্রহ ও এক্সোপ্ল্যানেটগুলো ঘেটে দেখার চেষ্টা করেছেন কোন গ্রহ বা এক্সোপ্ল্যানেট জীবের বসবাসের জন্য অতিথিপরায়ণ।

শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গবেষক স্টেফানি ওলসন বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বার্সেলোনায় গোল্ডস্মিড্ট জিওকেমিস্ট্রি সম্মেলনে এই গবেষণা থেকে প্রাপ্ত ফলাফল উপস্থাপনের সময় বলেন, পৃথিবী সর্বোত্তম বাসযোগ্য গ্রহ হতে পারে না। সোলার প্যানেলের বাইরে অন্য কোথাও এমন পরিবেশ থাকতে পারে যা আমাদের নিজ গ্রহের চেয়েও বেশি অতিথিপরায়ণ।

ওলসন বলেন, এটা একটি আশ্চর্যজনক সিদ্ধান্ত। এটি আমাদের দেখায় যে অনুকূল সমুদ্রের সংবহন নিদর্শনগুলির সাথে কিছু এক্সপ্লেনেটসের শর্তগুলি জীবনকে সমর্থন করার জন্য আরও উপযুক্ত হতে পারে, যা পৃথিবীর জীবনের চেয়ে বেশি প্রচুর বা সক্রিয়।

নাসা বলেছে, আমাদের নিজস্ব সৌরজগতে অন্য কোথাও জীবন সন্ধান করার সর্বোত্তম সুযোগ ‘বৃহস্পতির চাঁদ ইউরোপা’ এবং ‘শনির চাঁদ এনসেলেডাস’। এ অঞ্চলের অভ্যন্তর এক্সোপ্ল্যানেট সন্ধানের সাথে জড়িত। এগুলো পৃষ্ঠের তাপমাত্রার জন্য ঠিক দূরত্বে রয়েছে যা পৃষ্ঠের তরল জলকে সমর্থন করতে পারে।

নাসা মহাবিশ্বে জীবন অনুসন্ধানের জন্য তথাকথিত বাসযোগ্য গ্রহগুলোর ওপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করছে, যেগুলোতে পৃথিবীর মতো তরল জল বা মহাসাগরের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে অবশ্যই সমস্ত মহাসাগর সমানভাবে অতিথিপরায়ণ হবে না। কিছু মহাসাগর অন্যদের চেয়ে ভালো থাকার জায়গা হতে পারে, যোগ করেন ওলসন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: