রবিবার, ১৭ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পরামর্শ দিলো টুইটার



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক::টুইটার সামাজিক আন্তঃযোগাযোগ ব্যবস্থা ও মাইক্রোব্লগিংয়ের একটি ওয়েবসাইট, যেখানে ব্যবহারকারীরা সর্বোচ্চ ১৪০ অক্ষরের বার্তা আদান-প্রদান ও প্রকাশ করতে পারেন। এই বার্তাগুলোকে টুইট বলা হয়ে থাকে। টুইটারের সদস্যদের টুইটবার্তাগুলো তাদের প্রোফাইল পাতায় দেখা যায় (যদিনা সদস্য সেটা কে দেখতে পাবে তা বাছাই করেন)। টুইটারের সদস্যরা অন্য সদস্যদের টুইট পড়ার জন্য নিবন্ধন করতে পারেন। এই কাজটিকে বলা হয় অনুসরণ করা। কোনো সদস্যের টুইট পড়ার জন্য যারা নিবন্ধন করেছে, তাদেরকে বলা হয় অনুসরণকারী।

টুইট লেখার জন্য সদস্যরা সরাসরি টুইটার ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও, মোবাইল ফোন বা এসএমএসের মাধ্যমেও টুইট লেখার সুযোগ রয়েছে। টুইটারের মূল কার্যালয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিস্কো শহরে। এছাড়াও, টেক্সাসের সান অ্যান্টোনিও এবং ম্যাসাচুসেটসের বস্টনে টুইটারের সার্ভার ও শাখা কার্যালয় রয়েছে।

২০০৬ সালের মার্চ মাসে টুইটারের যাত্রা শুরু হয়। তবে ২০০৬ এর জুলাই মাসে জ্যাক ডর্সি আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন। টুইটার সারা বিশ্বজুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। টুইটার বিশ্বের দ্বিতীয় বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ২০১০ সালের ৩১শে অক্টোবর নাগাদ টুইটারে ১৭৫ মিলিয়ন অর্থাৎ ১৭.৫ কোটিরও বেশি সদস্য ছিলো। অন্যান্য পরিসংখ্যান অনুসারে একই সময়ে টুইটারের ১৯০ মিলিয়ন বা ১৯ কোটি সদস্য ছিলো এবং দিনে ৬৫ মিলিয়ন বা সাড়ে ৬ কোটি টুইট বার্তা, এবং ৮ লাখ অনুসন্ধানের কাজ সম্পন্ন হতো। টুইটারকে ইন্টারনেটের এসএমএস বলে অভিহিত করা হয়েছে।

সম্প্রতি, অভ্যন্তরীণ নেটওয়ার্কে ত্রুটি ধরা পড়ায় টুইটার তাদের ৩৩ কোটি ব্যবহারকারীর কাছে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের জনপ্রিয় এই মাধ্যমটি জানিয়েছে, ত্রুটি ধরা পড়ার বিষয়টি নিয়ে তারা তদন্ত করছে। তবে ত্রুটির কারণে ব্যবহারকারীর কোনো পাসওয়ার্ড চুরি বা টুইটারের কোনো কর্মী এর অপব্যবহার করেনি।

এরপরও অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বনে করতে ব্যবহারকারীদের পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের কথা বলেছে তারা।

তবে নেটওয়ার্কে ত্রুটির কারণে ঠিক কতজন ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড ঝুঁকিতে পড়েছে তা এখনও টুইটার নিশ্চিত করে জানাতে পারেনি। তবে তারা জানিয়েছে, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পাসওয়ার্ড ঝুঁকিতে রয়েছে।

গত কয়েক মাস ধরে এই সমস্যাটি চলছে বলে টুইটার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

টুইটারের বরাত দিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, কয়েক সপ্তাহ আগে টুইটার কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানতে পারে। পরে তারা কিছু নিয়ন্ত্রককে এ বিষয়ে জানায়।

এই ত্রুটির জন্য টুইটার কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করেছে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসে এক টুইট বার্তায় বলেছেন, আমরা কয়েকদিন আগে ত্রুটির খোঁজ পাই, যেখানে ব্যবহারকারীদের পাসওয়ার্ড সংরক্ষিত হওয়ার আগেই অন্য এক কম্পিউটারের ‘লগে’ জমা হচ্ছিলো। আমরা এটা সংশোধন করেছি। এখনও কোনো পাসওয়ার্ড চুরি বা অপব্যবহারের কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। আমরা বিশ্বাস করি, অভ্যন্তরীণ ত্রুটির বিষয়ে ব্যবহারকারীদের জানানো জরুরি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: