শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তিতে হাজারো মানুষ  » «   ভারতে জনতার ওপর ট্রেন,নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬১  » «   মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে আগুন : পাঁচ নারীসহ নিহত ৬  » «   মহাসমাবেশে ব্যানার পোস্টার নিয়ে বিরক্ত এরশাদ  » «   ১০ বছরেও মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা করতে পারেনি সরকার  » «   আফগানিস্তানে সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে  » «   জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে লাঙ্গল নিয়ে সংঘর্ষ  » «   দু’সপ্তাহ এগোলো প্রাথমিকের বার্ষিক পরীক্ষা  » «   যুক্তরাষ্ট্রের উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকা আসছেন আজ  » «   সৌদি আরব সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   খাশোগি হত্যায় আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া  » «   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদে থেকে নির্বাচন নয়!  » «   খাশোগিকে হত্যার কথা স্বীকার করলো সৌদি  » «   বিএনপির বিরুদ্ধে গায়েবি মামলার প্রমাণ নেই : আমু  » «   অংশ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য সহযোগিতা করতে প্রস্তুত ইইউ  » «  

পাশবিক! আট মাসের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা



নিউজ ডেস্ক::আবারো শিশু ধর্ষণ। এ যেন নৃশংসতার এক চরম সীমা। পৈশাচিক যৌন লালসার হাত থেকে নিস্তার পেল না মাত্র আট মাসের নিষ্পাপ শিশুও। নির্মমভাবে আট মাসের ঘুমন্ত শিশু কন্যাকে ধর্ষণের পর মাটিতে আছাড় মেরে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের অভিজাত এবং ঐতিহাসিক অঞ্চল রাজওয়াডায়।

ময়না তদন্তের রিপোর্টে, শিশুর যৌনাঙ্গে ক্ষত ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন মিলেছে। মাথায় আঘাত পেয়েই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷ ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে নেমে চোখের পানি সামলাতে পারেননি কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরাও।

ভয়ঙ্কর এই ঘটনাটি ধরা পড়েছে স্থানীয় সিসিটিভিতে। ফুটেজ খতিয়ে দেখে অভিযুক্ত যুবককে শনাক্তকরণের পর গ্রেফতার করেছে পুলিস। ইন্দোরের রাজওয়ারা ফোর্টের সামনে বেলুন বিক্রি করেন ওই শিশুর বাবা।

শুক্রবার রাতে ওই ফোর্টের সামনে রাস্তাতেই বাবা, মায়ের সঙ্গে ঘুমোচ্ছিল একরত্তি শিশুটিও। ভোর রাতে সুযোগ বুঝে ঘুমন্ত শিশুকন্যাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় সুনীল ভেল নামে ওই যুবক। তারপর পাশেই এক আবাসনের বেসমেন্টে শিশুটির উপর যৌন নির্যাতন চালায়। ধর্ষণের পর শিশুটিকে খুন করে সে।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত যুবক ২১ বছরের সুনীল ভেল ওই শিশুর পরিবারের পরিচিত। সে-ও বেলুন ওই একই এলাকায় বেলুন বিক্রি করত। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শনাক্ত করা হয় সুনীল ভেলকে। তারপর তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে অনুমান, ধর্ষণের পর মাটিতে আছাড় মেরে খুন করা হয়েছে শিশুকন্যাটিকে।

শনিবার সকালে আবাসনের বেসমেন্ট থেকে নির্যাতিতা শিশুকন্যার রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, ভোর ৪টা ৪৫ মিনিট নাগাদ অভিযুক্ত সুনীল ভেল ঘুমন্ত শিশুটিকে কাঁধে করে রাস্তা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তারপরই সে ফোর্ট থেকে ৫০ মিটার দূরত্বে ওই আবাসনে শিশুটিকে নিয়ে ঢুকে পড়ে। এরপর এদিন সকালে স্থানীয় এক দোকানদার ওই বেসমেন্টে নিজের দোকান খুলতে গিয়ে শিশুকন্যার রক্তাক্ত দেহটি দেখতে পান।

এই ঘটনার জেরে সাসপেন্ড করা হয়েছে সারাফা পুলিশ স্টেশনের এসআই ত্রোলিক সিং ভারকাডে-কে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ নিজের কর্তব্য পালন করেননি তিনি। ডিআইজি হরিনারায়ণচারি মিশ্র জানিয়েছেন, এই নৃশংস ও ঘৃণ্য ঘটনার কথা কর্তব্যরত ত্রোলিক সিং তাঁর ঊর্ধ্বতন আধিকারিকদের জানান নি।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: