শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আফগানিস্তানে হাসপাতালে ভয়াবহ হামলা, নিহত ২০  » «   রাজনীতিতে যোগ দেবেন নুর, জানালেন দলের নাম  » «   নারায়ণগঞ্জে একই পরিবারের ৩ জনকে গলা কেটে হত্যা  » «   মোদিকে আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি দিলোনা পাকিস্তান  » «   ৮ ভোটে হেরে গেলেন ছাত্রদলের সেই শ্রাবণ  » «   সিলেটের ৬ জনসহ বদলি হলেন ৫৩ বিচারক  » «   ক্যাসিনোর টাকার ভাগ কে কে পেতেন, নাম বলছেন খালেদ  » «   অমর নায়ক সালমানের জন্মবার্ষিকী আজ  » «   ছাত্রদলের সভাপতি খোকন, সাধারণ সম্পাদক শ্যামল  » «   মাদরাসা ছাত্রীকে জিনে নিয়ে গেছে!  » «   রোহিঙ্গাদের এনআইডি বানিয়ে দিয়ে কোটিপতি!  » «   প্রধানমন্ত্রীর পদ হারাচ্ছেন নেতানিয়াহু!  » «   ৬০ নম্বরের পরীক্ষা দিয়ে হতে হবে ছাত্রলীগ নেতা  » «   মিয়ানমার তাদের লোকদের ফেরত নিতে রাজি হয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী  » «   রাজশাহীতে মা-ছেলে হত্যায় আ.লীগ নেতাসহ ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড  » «  

পালালেন দুবাই রাজকন্যা, ধরিয়ে দিলেন মোদি!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন সংবাদপত্রে বেশ কিছুদিন ধরেই একটি খবর ছাপা হচ্ছে, যে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী এবং দুবাইয়ের শাসক মোহামেদ বিন রশিদ আল মাখতুমের মেয়ে লতিফা সাগর-পথে নিজ দেশ ছেড়ে পালাতে গিয়ে ধরা পড়েছেন। খবর বিবিসি বাংলার।

ওই খবরের সূত্রে জানা গেছে, দুবাইয়ের প্রিন্সেস লতিফা ফরাসী একজন সাবেক গোয়েন্দার সহযোগিতায় তার এক বান্ধবী, যিনি কিনা ফিনল্যান্ডের নাগরিক তাকে নিয়ে একটি প্রমোদ (ইয়ট) তরী ভাড়া করে গোপনে ভারতে যাওয়া উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছিলেন।

প্রিন্সেস লতিফা’র পরিকল্পনা ছিল, ভারত গিয়ে সেখান থেকে তিনি বিমান যোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইবেন।

কিন্তু পশ্চিমা মিডিয়া এবং সোশ্যাল মিডিয়াতে খবর হয়, গোয়ার উপকূলের কাছে আন্তর্জাতিক জলসীমায় ভারতের ন্যাভাল কমান্ডোরা প্রমোদ (ইয়ট) তরীটি আটক করে প্রিন্সেস লতিফাসহ অন্য দুজনকে দুবাই কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেয়। ভারতীয় বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমেও এ খবর প্রকাশিত হয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে ভারত সরকার কিংবা ভারতীয় নৌবাহিনী এ নিয়ে মুখ খোলেনি।

এ ঘটনার প্রায় দুই মাস পর চলতি সপ্তাহে প্রথম ওয়াশিংটন পোস্টের এক খবরে বলা হয়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে দুবাইয়ের ওই রাজকন্যা লতিফাকে ধরে তার দেশে পাঠিয়ে দেয়ার জন্য সেই অভিযানের অনুমতি দিয়েছিলেন। গত মঙ্গলবার ব্রিটেনের দৈনিক টেলিগ্রাফ তাদের এক খবরে একই দাবি করেছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, এ ধরণের কোনো অপারেশন ভারতের নৌ বাহিনী করেছে- এ রকম কোনো কথা এখনো সরকারের কাছে কেউ তোলেনি।

প্রিন্সের লতিফার দুই বন্ধুকে কূটনৈতিক চাপের মুখে দুবাই কর্তৃপক্ষ ছেড়ে দিয়েছে, কিন্তু রাজকন্যার এখনো কোনো খবর মেলেনি।

অবশ্য প্রিন্সেস লতিফার আধ ঘণ্টারও বেশি লম্বা একটি ইউটিউব ভিডিও থেকে জানা যায়, কেন তিনি দেশ ছেড়ে পালাতে চান- তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিয়ে পালানোর আগে একটি ভিডিও রেকর্ড করেছিলেন। দেখে নিন কেন তিনি এমনটি করেছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: