মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের কুকীর্তি ফাঁস!  » «   মায়ের পছন্দ ব্রাজিল, সমর্থক জয়ও  » «   পুলিশ কমিশনার‘ঈদগাহে ছাতা ও জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নয়’  » «   ‘আমিও প্রেগনেন্ট হয়েছি, অনেকবার অ্যাবরশনও করিয়েছি’  » «   গুগল পেজ ইরর দেখায় কেন?  » «   রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সিইসি কে কোথায় ঈদ করছেন  » «   ইসি সচিব : তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   বিপজ্জনক রূপ নিয়েছে মনু ও ধলাই  » «   বিশ্বকাপের একদিন আগে বরখাস্ত স্পেন কোচ!  » «   ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে ৭ কি.মি. যানজট  » «   শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে আলিয়ার সোজা কথা!  » «   যে কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে যেতে চান খালেদা  » «   খালেদা চিকিৎসা চান নাকি রাজনীতি করছেন : সেতুমন্ত্রী  » «   যানজটের কথা শুনিনি, কেউ অভিযোগও করেননি  » «   ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান ‘বকশিসের নামে নীরব চাঁদাবাজি নেই’  » «  

পারিবারিক অশান্তির মূলে পরকীয়া



লাইফস্টাইল ডেস্ক::পরকীয়া হল বিবাহিত কোন ব্যক্তির (নারী বা পুরুষ) স্বামী বা স্ত্রী ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তির সাথে বিবাহোত্তর বা বিবাহবহির্ভূত প্রেম, যৌন সম্পর্ক ও যৌন কর্মকাণ্ড। মানবসমাজে এটি লঘু বা গুরুভাবে নেতিবাচক হিসেবে গণ্য।

পাশ্চাত্য আধুনিক সমাজে এর প্রতি নেতিবাচক মনোভাব বজায় থাকলেও এটি আইনত অপরাধ বলে বিবেচিত হয় না, তবে অভিযোগ প্রমাণিত হলে পরকীয়াকারী ব্যক্তির বিবাহিত সঙ্গী তার সাথে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য কোর্টে আবেদন করতে পারেন।

তবে ইসলামি রাষ্ট্রসমূহে এর জন্য কঠোর শাস্তির বিধান রয়েছে, যা হল পাথর নিক্ষেপ করে মৃত্যুদন্ড প্রদান| মনোচিকিৎসায় একথা স্বীকৃত যে, পিতামাতার পরকীয়া সন্তানের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর এবং সামাজিক সম্পর্ক ও যোগাযোগে বিরূপ প্রভাব ফেলে এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা সন্তানের মানসিক বিষন্নতার ও আগ্রাসী মনোভাবের জন্ম দেয়। এছাড়া পারিবারিক ও দাম্পত্য সম্পর্কের অবনতিতে পরকীয়া প্রভাব রাখে।

এক গবেষণায় জানা গেছে, বর্তমান সময়ে প্রায় ৯০ ভাগ সংসার ভাঙার কারণ অন্যতম কারণ সন্দেহ ও পরকীয়া। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশে পরকীয়া আসক্তির সংখ্যা আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দাম্পত্য কলহ, নতুন-পুরনো সম্পর্ক, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বয়সের তারতম্য, স্ত্রীকে রেখে স্বামীর বিদেশ গমনসহ অনেক সময় কৌতূহলের কারণেও পর পুরুষ বা নারীর প্রতি আগ্রহ জন্মায়। বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরগুলো পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, পরকীয়ার কারণে বিবাহ বিচ্ছেদসহ খুনের ঘটনা বাড়ছে।

বাংলাদেশ মেন’স রাইট ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মো. ফারুক শাজেদ যুগান্তরকে বলেন, নারীর জন্য একতরফা আইন, চাকরি ও ইন্টারনেটের কারণে আধুনিক নারী স্বেচ্ছাচারী মনোভাব পোষণ করে থাকে। এছারাও ভরণপোষণের দায়িত্ব শুধু পুরুষের কাঁধে থাকার কারণে অনেক চাকরিজীবী নারী পুরুষকে অর্থিক সহযোগিতা করতে চান না। এভাবে নারীর শৌখিন চাকরির কারণে অনেক সময় সংসারে অশান্তি তৈরি হয়। বর্তমান সময়ে আকাশ সস্কৃতি, মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেটের কারণে সমাজে পরকীয়া একটি সামাজিক ব্যধিতে পরিণত হয়েছে। নারীর এসব পরকীয়ার কারণে পুরুষ নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।

সমাজের উচ্চবিত্ত থেকে নিন্মবৃত্ত সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে পরকীয়ার বিষবাষ্প। একটি লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, রাজধানীর এক বস্তির বাসিন্দা আনোয়ার আলী (ছদ্ম নাম)। প্রতিদিন তিনি রিকশা চালিয়ে ঘরে ফেরেন মধ্যরাতে।

মাসখানেক আগে রিকশা চালানোর সময় খানিকটা অসুস্থ বোধ করায় তিনি সন্ধ্যাতেই বাড়িতে ফেরেন। দরজা ধাক্কা দিতেই ঘরে স্ত্রীর সঙ্গে সেই বস্তিরই এক যুবককে বেশামাল অবস্থায় দেখতে পান তিনি। আনোয়ার আলী ঘটনা বুঝতে পেরে প্রতিবাদ করলে স্ত্রী এবং ওই যুবকটি তাকে বেধড়ক পেটায়। একপর্যায়ে তার স্ত্রী বঁটি নিয়ে তেড়ে আসেন। স্ত্রী হুমকি দিয়ে বলেন, এসব বিষয়ে কথা বললে কেটে বস্তায় ভরে নদীতে লাশ ফেলে দেয়া হবে। সংসার না করার হুমকিসহ মামলার ভয় দেখান ওই মহিলা। ঘটনা গুরুতর হলেও তিন সন্তানের জনক সবকিছু মেনে নিয়ে আতঙ্ক নিয়েই সংসারধর্ম পালন করছেন।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: