শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামছে সেনাবাহিনী, থাকবেন ম্যাজিস্ট্রেটও  » «   ইন্টারনেটে ধীর গতি ও মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ চায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী  » «   প্রার্থিতা নিয়ে শুনানি: আদালতের প্রতি খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের অনাস্থা  » «   আওয়ামী লীগ ১৬৮ থেকে ২২০ আসনে জিতবে: জয়  » «   সিলেট-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী তাহসিনা রুশদীর লুনার মনোনয়ন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট  » «   আম্বানি কন্যার বিয়েতে নাচলেন হিলারি ক্লিনটন [ভিডিও ]  » «   সিলেট-১ আসনে ধানের শীষের প্রচারণার একসঙ্গে মুক্তাদির-আরিফ  » «   সহিংসতার ঘটনা খতিয়ে দেখতে সিইসির নির্দেশ  » «   ‘ইডিয়ট’ লিখে গুগলে সার্চ দিলে কেনো আসে ট্রাম্পের ছবি?  » «   বিশ্ব ভ্রমণ করবে বাংলাদেশের প্রথম বিদ্যুৎচালিত গাড়ি  » «   খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি আরব ছাড়পত্র পাবে না: নিক্কি হ্যালি  » «   গুগলে সবচেয়ে বেশি খোঁজ খালেদা ও হিরো আলম  » «   আস্থা ভোট, নেতৃত্বের পরীক্ষায় উতরে গেলেন তেরেসা মে  » «   ফোনালাপ ফাঁস: খন্দকার মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ  » «   নির্বাচনে এজেন্ট পাওয়া নিয়ে চিন্তায় বিএনপি  » «  

পাকিস্তান থেকে জঙ্গিদের জন্য টাকা ঢুকেছে ৫৪ কোটি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: পাকিস্তান থেকে ৪৫টি অ্যাকাউন্টে জঙ্গিদের সাহায্যে ৫৪ কোটি টাকারও বেশি জমা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। সেখানে ওই টাকা জমা হয়েছে বিভিন্ন লোকের নামে খোলা অ্যাকাউন্টে। এই চক্রের সাতজনকে গ্রেপ্তারও করছে হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার পুলিশ।

পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তারকৃতদের বাড়ি বিহারের সিওয়ান জেলায়। তারা কলকাতা সংলগ্ন জেলা হাওড়ার হাওড়া স্টেশন, কলকাতা শহরতলির দমদম ও মধ্য কলকাতার রাজাবাজার এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকতো। কমিশনের মাধ্যমে বিভিন্ন লোকজনকে দিয়ে তারা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট খোলাতো। তারপর তাদের এটিএম কার্ড ও পিন নম্বর তারা নিয়ে নিত।

এরপর ওই অ্যাকাউন্টগুলিতে প্রতিবারই ৫০ হাজার টাকার নিচে জমা পড়তো। সেই টাকা একজন নির্দিষ্ট ব্যক্তির হাতে তুলে দেওয়া হতো। কার হাতে টাকা দেওয়া হবে, তা পাকিস্তান থেকে ওই ‌এজেন্টদের কাছে হোয়াটসঅ্যাপে নির্দিষ্ট কোড দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হতো। ওই কোড মিলিয়েই এজেন্টরা টাকা নির্দিষ্ট ব্যক্তির হাতে তুলে দিত। এভাবেই গত কয়েক মাস ধরে সক্রিয় ছিল ওই চক্র।

কিছুদিন আগে হাওড়ার গোলাবাড়ি থানা এলাকায় একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে ৬ লাখ ৩০ হাজার টাকার চেক জালিয়াতির ঘটনা ঘটে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে গোলাবাড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করে। তারপর এই ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ এই আন্তর্জাতিক চক্রের হদিশ পায়।

হাওড়ার পুলিশ কমিশনার তন্ময় রায় চৌধুরী গণমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, এই চক্রের শেকড় অনেক দূর পর্যন্ত বিস্তৃত।তিনি আরো জানান, গোলাবাড়ি থানা ও হাওড়া সিটি পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ যৌথভাবে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তদন্তের স্বার্থে এখনই এর বেশি কিছু বলা সম্ভব নয় বলেও তিনি জানান।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: