সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
জি কে শামীম ও খালেদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ  » «   ‘মোদি হলেন সন্ত্রাসী,’ হাউসটনে বিক্ষোভে শিখ-কাশ্মীরিরা (ভিডিও)  » «   সাপের ছোবল থেকে রক্ষা পেতে চা বাগানে স্বর্পভাস্কর্য  » «   মাছ উৎপাদনে বিশ্বে অষ্টম বাংলাদেশ  » «   কোরআনের উদ্ধৃতি দিয়ে চমকে দিলেন পুতিন  » «   নবীগঞ্জে ভুয়া সাংবাদিক মনি গ্রেপ্তার  » «   ফতুল্লার ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান শুরু  » «   সৌদিতে শূলে চড়িয়ে শিরশ্ছেদ করে ১৩৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর  » «   কৃষিতে স্বাবলম্বী কামালবাজারের অনেক কৃষক  » «   মোহামেডানসহ মতিঝিলে চার ক্লাবে অভিযান  » «   তাহিরপুরে ১০টি গাঁজার বালিশ উদ্ধার  » «   ফ্রান্সে মসজিদে গাড়ি হামলা  » «   সদলবলে মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি-সম্পাদক  » «   মুসলিম যাত্রী থাকায় ফ্লাইট বাতিল করল আমেরিকান এয়ারলাইনস  » «   মধ্যরাতে বনানীতে শাবি ভিসিপুত্রের কাণ্ড!  » «  

পত্নীতলায় ইরি-বোরো ধান কাটা শুরু



মাসুদ রানা,পত্নীতলা,নওগাঁ: নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলায় চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। চলতি সপ্তাহ তিন দিন বৈরি আবহাওয়া ও বৃষ্টিপাতের কারণে উঠতি পাকা ধান নিয়ে কৃষকরা বিপাকে থাকলেও মেঘলা আকাশের কারণে রোদের অভাবে মাঠপর্যায়ের কৃষকরা শম্ভব গতিতে বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু করেছে। দাম ও ফলন ভাল হওয়ায় কৃষকরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছে। তবে পুরোদমে কাটা মাড়াই শুরু হতে আর কয়েক দিন সময় লাগবে। এ দিকে বৈরী আবহাওয়ার জন্য কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের দ্রুত ধান কাটার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে ।
কালবৈশাখী ঝড় আর বৃষ্টিপাত হওয়ায় উঠতি পাকা ধান পড়ে যাওয়ায় ধান কাটা শ্রমিকদের নির্ধারিত দরের চেয়ে প্রতি বিঘায় কিছু বাড়তি টাকা গুনতে হচ্ছে। ঝড় বৃষ্টির কারণে পাকা ধান নিয়ে কৃষকরা কিছুটা শংকায় থাকলেও শ্রমিক সংকট নেই। প্রতি বছর এই সময় দেশের দক্ষিণ অঞ্চল বিশেষ করে পাবনা , ভেরামারা, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, পোড়াদহসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ধান কাটা শ্রমিক এবারও এসেছে ।
উপজেলার বাদ পুঁইয়ার কৃষক নজরুল ইসলাম জানান, আমি এ বছর ১৫ বিঘা জমিতে বোরো ধান চাষ করেছি। আবওহাওয়ার কারণে তাড়াতাড়ি ধান কাঁটা শুরু করেছি। গত তিন দিনে ঝড়-বৃষ্টির কারণে নিচু এলাকার তিন বিঘা জমির ধান আংশিক ক্ষতি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ধান গুলো কাঁটা শুরু করেছি। প্রতি বিঘায় ২০-২২ মণ ফলন হতে পারে। একি গ্রামের কৃষক বেলাল জানায়, আমি ৩ বিঘা জিরা জাতের ইরি ধান আবাদ করেছি। কাঞ্চন গ্রামের কৃষক রহমত জানান ২০ বিঘা জমির মধ্যে ৪ বিঘার ধান হেলে বা শুয়ে পরেছে ।ধান কাটা শুরু হয়েছে ।ফলন ভাল হচ্ছে ২৫/২৬ মণ । উপজেলার, বাগমার নূধনী গ্রামের একাধকি কৃষক জানায় ধান কাটা শুরু হয়েছে ফলন ভাল হচ্ছে ২ থেকে ২৭ মন পর্যন্ত ।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভায় এবার চলতি মৌসুমে ২০ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছিল তার চেয়ে অনেক বেশী চাষ হয়েছে ।এবার উপজেলায় রোপন হয়েছে উন্নত ফলনশীল ব্রি ২৮,২৯,৫০,৫৮,৫৯,্র , জিরা , হাইব্রীড,সম্পা ,কাটারী ,বিনা জাতের ধান । উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় আগাম রোপন কৃত ইরি ধান কাটা শুরু হয়েছে ।
উপজেলার ১১ টি ইউনিয়নে দিগন্ত জুড়ে পাকা ধানের সোনালী রঙের ঝিলিক ছটাচ্ছে। যতদূর চোখ যায় শুধু পাকা ধানের সোনালী রঙের চোখ ধাঁধানো দৃশ্য। মাঠ জুড়ে পাকা ধান বলে দিচ্ছে গ্রামবাংলার কৃষকের মাথার ঘাম পায়ে ফেলা ইরি-বোরো ধান চাষের দৃশ্য। চলতি মৌসুমে ইরি-বোরো ধানের ভাল ফলনের বুকভরা আশা করছে কৃষকরা। বাজারে নতুন ধানের আমদানি হওয়ায় টুকটাক কেনা-বেচা শুরু হলেও দর ভাল থাকাই কৃষকরা খুশি। জিরা জাতের সুরু ধান মান ভেদে ৮ শ’ ৭০ টাকা পর্যন্ত হাটে-বাজারে বেচা-কেনা হচ্ছে।
বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন র্কতৃপক্ষ ( বিএমডিএ) নওগাঁ-২ সূত্রে জানা যায় চলতি মৌসুমে উপজেলায় মোট ৪৩৮ টি গভীর নলক’প ও ১৭ টি লো লিপ পাম্প ছালু রয়েছে এর আওতায় ৯ হাজার ৫ শ হেক্টও জমিতে বোর চাষ করা হয়েছে ।এবার সেচ বিষয়ে চাষিদের নিকট কোন প্রকার অভিযোগ পাওয়া যায নি ।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ প্রকাশ চন্দ্র সরকার জানান গত তিন দিনের বৈরী আবহাওয়ার কারনে ১৩০ হেক্টর জমির ধান গাছ মটির সাথে নুয়ে পড়েছে তবে ব্যপক কোন ক্ষতি হয়নি ধান কাটার মজুরী ্একটু বেশী েিত হচ্ছে ,ধান কাটা শুরু হয়েছে ২০/২৫ মণ ফলন হচ্ছে ৭-১০ দিনের মধ্যে ধান কাটা শেষ হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে । শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া ভাল থাকলে কৃষকেরা এবার লাভবান হবে ।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: