মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম: ইসি সচিব  » «   হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি হিজড়াদের  » «   সব বাধা উপেক্ষা করে গণশুনানি করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট  » «   অভিজিৎ হত্যা: অব্যাহতি পাচ্ছেন সাতজন, আসামি ছয়  » «   অনুমোদিত ৩টি ব্যাংক সম্পর্কে তেমন কিছু জানেন না অর্থমন্ত্রী  » «   ডাস্টবিনে নেমে ১৫০০ শিক্ষার্থীকে বাঁচানোর আহ্বান  » «   একাদশ সংসদের এমপিদের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ  » «   শামীমাকে যা বুঝিয়ে সিরিয়ায় নিয়ে গিয়েছিল আইএস  » «   নিজেই গাড়ি চালিয়ে যুবরাজকে বাসভবনে নিয়ে গেলেন ইমরান খান  » «   আরব আমিরাত ও বাংলাদেশর মধ্যে ৪টি সমঝোতা স্মারক সই  » «   সংঘর্ষ চলছে, পুলওয়ামা হামলার মূল হোতা নিহত  » «   এক দিন বাড়ল দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা, আখেরি মোনাজাত মঙ্গলবার  » «   শুধুমাত্র আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা যায় না: আইনমন্ত্রী  » «   জামায়াতের সবারই রাজ্জাকের মতো ভুল ভাঙা উচিত: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ  » «   সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জা‌নি‌য়ে মোদিকে শেখ হাসিনার বার্তা  » «  

পছন্দের সব খাবার বাদ; কী খেয়ে জাদু দেখান মেসি?



স্পোর্টস ডেস্ক:: কয়েকদিন আগে মিডিয়ায় এসেছিল ভারতের ক্রিকেট অধিনায়ক বিরাট কোহলির সবজি ভোজনের খবর।বিধ্বংসী এই ব্যাটসম্যান সবজি খেয়েই গোটা ক্রিকেট বিশ্ব শাসন করে যাচ্ছেন!এবার জানা গেল ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসির খাওয়া-দাওয়ার খবর।ঠান্ডা পানীয়,পিৎজা থেকে যাবতীয় জাঙ্কফুড ছিল তার প্রিয়।কিন্তু নিজেকে ফিট রাখতে এখন তা ছুঁয়েও দেখেন না।ফিটনেসের জন্য বিসর্জনের তালিকায় আছে আরও অনেক খাবার।

আর্জেন্টিনা অধিনায়ক গত দশ বছরে গড়ে ৪০টি করে গোল করেছেন।কিন্তু এখন মেসির বয়স ৩১।অর্থাৎ, ফুটবল ক্যারিয়ারের প্রায় শেষ পর্বে পৌঁছে গিয়েছেন তিনি।আর তাই ফুটবল জীবন দীর্ঘায়িত করার জন্য আরও মরিয়া হয়ে উঠেছেন বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবল শিল্পী।সেই কারণেই খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন।

এখন মেসির পছন্দ তাজা ও শুকনো ফল,অলিভ অয়েল দিয়ে তৈরি সালাড,ব্রাউন রাইস ও পাস্তা।মাংস খুব প্রিয় ছিল মেসির।বার্বিকিউ বানানোর ছবি নিজেই বহুবার সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে পোস্ট করেছেন।কিন্তু মাংস খাওয়া প্রায় ছেড়েই দিয়েছেন তিনি।কারণ,মাংস জাতীয় খাদ্য হজম করার জন্য যে ধরনের শারীরিক পরিশ্রম প্রয়োজন,তা একেবারেই সহজ নয়।

বার্সেলোনার সাবেক ম্যানেজার কার্লোস রেসাক এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন,‘’য়োজনের চেয়ে অনেক বেশি পিৎজা খেত মেসি। তবে ১৮-১৯ বছর বয়সে যা খাওয়া যায়, ২৭-২৮ বছরে সম্ভব নয়।’

মেসি তা উপলব্ধি করেই বদলে ফেলেছেন খাদ্যাভ্যাস।ফলও মিলতে শুরু করেছে হাতেনাতে।গত সপ্তাহে ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে টটেনহ্যাম হটস্পারের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে শুধু জোড়া গোল করেননি মেসি, ৯৬ বার বল স্পর্শ করেছেন।বার্সেলোনায় একমাত্র জর্ডি আলবাই এগিয়ে ছিলেন তার চেয়ে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: