রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চরমভাবে অবহেলিত প্রাথমিক শিক্ষা ও শিক্ষকরা  » «   এমপিও শিক্ষকদের বেতন দিচ্ছে না ব্যাংক!  » «   ইসরাইলের মরুভূমিতে ১২০০ বছরের পুরোনো মসজিদের খোঁজ  » «   জনসমাগম দেখলেই আতঙ্কে ভোগে আ’লীগ সরকার: ফখরুল  » «   ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে নিহত ২  » «   দুর্নীতি শব্দটি কীভাবে আসলো আই হ্যাভ নো আইডিয়া: ইকবাল মাহমুদ  » «   সেই প্রিয়া সাহাকে নিয়ে মিললো চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   লবণ সংকটে কোরবানির চামড়া নিয়ে উদ্বেগ  » «   দেশদ্রোহী হিসেবে প্রিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: সেতুমন্ত্রী  » «   মিন্নিকে আইনি সহায়তা দিতে ঢাকা থেকে ৪০ আইনজীবী যাচ্ছেন বরগুনায়!  » «   আলো-পানি ছাড়াই রাত কাটল আটক প্রিয়াঙ্কার  » «   মক্কা-মদিনায় ফ্রি ইন্টারনেট ও সিম পাচ্ছেন হাজিরা!  » «   পানিতে সাপের কামড়ে মৃত্যু ,পানিতেই জানাজা-দাফন  » «   নেত্রকোনায় শিশুর কাটা মাথা কাণ্ডে যা জানলো পুলিশ  » «   লন্ডনে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী, আজ দূত সম্মেলন  » «  

নড়াইল বইছে জেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া



নড়াইল বইছে জেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া

কে পাচ্ছেন নড়াইল জেলা পরিষদের আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন তা নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। অফিস পাড়া থেকে শুরু করে চায়ের দোকান সব জায়গায় একই আলোচনা। অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস প্রায় ৫ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছেন। তাকেই আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে নাকি পরিবর্তন হচ্ছে? আর পরিবর্তন হলে কে পাচ্ছেন? তা নিয়ে সাধারনের আলোচনার শেষ নেই।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয় আগামী ২৮ ডিসেম্বর ২০১৬ বুধবার বাংলাদেশের ৬১টি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

এই নির্বাচনে যারা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক তাদেরকে আগামী ১৮ নভেম্বরের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে (বাড়ি-৫১/এ, সড়ক-৩/এ, ধানমন্ডি আ/এ, ঢাকা-১২০৯) আবেদনপত্র, সদ্য তোলা ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ জীবন বৃত্তান্ত পাঠানোর জন্য আহ্বান করা হয়েছে।

জানা গেছে, জেলা পরিষদের নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা করায় নড়েচড়ে বসছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। এ নির্বাচনে দলীয় প্রতিক দেয়া না হলেও থাকবে দলীয় মনোনয়ন আর দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ইতোমধ্যে জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। বসে নেই সদস্য এবং সংরক্ষিত সদস্যরাও।

তবে বিএনপিসহ অন্য দলগুলোর নির্বাচন নিয়ে তেমন কোন তৎপরতা নেই বললেই চলে। আগামী ২৮ ডিসেম্বরের নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

জেলা পরিষদের নির্বাচনে একজন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সাধারণ সদস্য ও ৫ জন সংরক্ষিত সদস্য নির্বাচিত হবেন। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও চলছে জোর আলোচনা চলছে কে হচ্ছেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আর কাকে করা হচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের প্রার্থী?

জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস। ২০১১ সালের ২০ ডিসেম্বর থেকে তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী।

এছাড়া দলীয় মনোনয়নের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছেন সাবেক পৌরমেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাঈফ হাফিজুর রহমান খোকন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক, সাবেক পৌরমেয়র ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট গোলাম নবী, লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটুর নাম শোনা যাচ্ছে।

বর্তমান জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস বলেন, আমি প্রায় ৫ বছর ধরে জেলা পরিষদের দায়িত্ব পালন করছি। সড়ক যোগাযোগ, মসজিদ, মন্দির, স্কুল, কলেজে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে। দলীয় মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে আমি আশাবাদী।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু জানান, জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সদস্য বিশেষ করে যারা ভোটার তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে যাচ্ছেন। দলীয় মনোনয়ন চাইবেন মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন তিনি। দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে তিনিও শতভাগ আশাবাদী বলে জানান।

সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাঈফ হাফিজুর রহমান খোকন বলেন, দলের কাছে মনোনয়ন চাইব মনোনয়ন দিলে ভালো। না দিলেও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। আমি জেলার প্রতিটি ইউনিয়নে গণসংযোগ করছি। ভালো সাড়া পাচ্ছি। আশা করছি নির্বাচনে আমি জয়ী হতে পারবো।

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক, সাবেক পৌরমেয়র অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস বলেন, দলীয় মনোনয়ন চাইব মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।

লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটু বলেন, দলীয় মনোনয়নের ব্যাপরে আশাবাদী। বিভিন্নস্থানে গণ সংযোগ চলাচ্ছি। দলীয় মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট গোলাম নবীও প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় সম্মতি পেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।

জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরীফ মুনির হোসেন বলেন, দলীয়ভাবে আমাদের কাছে এখন পর্যন্ত নির্বাচনের ব্যাপারে কোন নির্দেশনা আসেনি। তবে সদস্য পদে আমাদের দলের প্রার্থীরা গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছে।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের সিকদার বলেন, আগামী জেলা পরিষদ নির্বাচনের বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন দলীয় নির্দেশনা আমাদের কাছে নেই। নির্দেশনা পেলে সে মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এখন পর্যন্ত জেলা পরিষদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী এমন কোন প্রার্থী আমাদের সাথে যোগাযোগ করেনি বলেও জানান তিনি।

 

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: