সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ইতালির নাগরিকত্ব হারাতে পারেন ৩ হাজার বাংলাদেশি  » «   নবীগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই ৫টি ঘর, ১২ লাখ টাকার ক্ষতি  » «   ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি-সম্পাদকের প্রতিশ্রুতি  » «   শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, আহত ৩০  » «   চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  » «   মাসিক বেতনে চালক নিয়োগের নির্দেশ হাইকোর্টের  » «   কাশ্মিরের মুসলমানদের ওপর নির্যাতন বন্ধের দাবিতে মৌলভীবাজারে বিক্ষোভ মিছিল  » «   হাজিদের দেশে ফেরার শেষ ফ্লাইট আজ  » «   আফগান সীমান্তে ৪ পাকিস্তানি সেনা নিহত  » «   ঈদের খরচ হিসেবে ‘ন্যায্য পাওনা’ চেয়েছিলাম: রাব্বানী  » «   পুলিশ সুপারদের কুচকাওয়াজে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  » «   ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয়-লেখক  » «   হিন্দি চাপিয়ে দিলে ভাষা যুদ্ধের হুমকি, রাজ্যে রাজ্যে প্রতিবাদ  » «   শিক্ষামন্ত্রীর কড়া চিঠি  » «   পরিবহন ধর্মঘটে বিপর্যস্ত প্যারিস; ৩৮০ কিমি ট্র্যাফিক জ্যাম!  » «  

নিজেকেই নিজে খেয়ে ফেলছে পৃথিবী: গবেষণা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: দূষণ বা উষ্ণায়নে যখন দিন দিন বিপন্ন হয়ে উঠছে এই গ্রহ, তখন একেবারেই ভিন্ন এক বিপদের বার্তা দিলেন বিজ্ঞানীরা।এক গবেষণা প্রবন্ধে সম্প্রতি বিশদে জানানো হয়েছে এই বিপদের কথা।

এই নিবন্ধে দেখানো হয়েছে, পৃথিবীর অভ্যন্তরে অবস্থিত টেকটনিক প্লেটগুলো একটি অন্যটির নিচে চলে আসার ফলে টান পড়ছে মহাসাগরের পানিতে। বিপুল পরিমাণ পানি প্রবেশ করছে ভূগর্ভের গভীরে। ফলে কমছে পানিস্তর। ক্রমেই উধাও হযে যাচ্ছে সমুদ্র।এমন দিন আসতেই পারে,যখন এই গ্রহ পানিশূন্য হয়ে পড়বে।

ভূমিকম্পের সূত্র ধরেই এই তথ্যে উপনীত হয়েছেন গবেষকরা। সিসমোগ্রাফে ধৃত রেখাগুলোর বিশ্লেষণ করতে করতে তারা দেখিয়েছেন, প্রশান্ত মহাগারের ম্যারিনাস ট্রেঞ্চ অঞ্চলে প্যাসিফিক প্লেট ফিলিপাইন প্লেটের নিচে ঢুকে যাচ্ছে। ফলে মহাসাগরের পানি প্রবেশ করছে বা বলা ভাল হারিয়ে যাচ্ছে ভূগর্ভের গভীরে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-বিজ্ঞানের গবেষক ওয়েইসেন শেন, ডগলাস এ উইয়েনস প্রমুখ এই ঘটনাকে রীতিমতো বিপদ বলেই চিহ্নিত করেছেন। এ থেকে ভূমিকম্পের প্রবণতা বাড়ছে বলেই তাদের ধারণা।

তবে কী পরিমাণ সমুদ্রজল ভূগর্ভের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছে, সেই হিসেব পাওয়া অসম্ভব বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।এই গবেষণাপত্রের বিপরীতে বেশ কিছু বিশেষজ্ঞ এই প্রশ্নও তুলেছেন, যে পরিমাণ পানি ভূগর্ভে প্রবেশ করে, সেই পরিমাণ পানি কি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে বেরিয়ে আসে না? গবেষক দলের অন্যতম সদস্য চেন কাই জানিয়েছেন, এই বিষয়ে তারা পুনরায় অনুসন্ধন চালাচ্ছেন।

সূত্র: এবেলা

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: