সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার তাসনিম  » «   প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন শুরু  » «   পাকিস্তানে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১৯  » «   গুরুতর অসুস্থ হয়ে সিএমএইচে ভর্তি এরশাদ  » «   প্রতিবন্ধী মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা  » «   মইনুল হোসেনের কাছে ক্ষমা চাইতে মাসুদা ভাট্টিকে লিগ্যাল নোটিশ  » «   মানুষের জীবনে দিনবদলের যাত্রা শুরু হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী  » «   খাসোগি হত্যায় নগ্নসত্য বের করেই ছাড়ব: এরদোয়ান  » «   দুর্নীতির মামলায় অনুমতি ছাড়া সরকারি কর্মচারীদের গ্রেপ্তার নয়  » «   খাশোগির মৃত্যু : ফের সুর পাল্টাল সৌদি  » «   সিলেটে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ ঘিরে সরব বিএনপি  » «   তাইওয়ানে ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে ১৮ জনের প্রাণহানি  » «   যেসব শর্তে সিলেটে সমাবেশের অনুমতি পেল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট  » «   মাসুদা ভাট্টি ভীষণ রকম চরিত্রহীন: তসলিমা নাসরিন  » «   খাশোগিকে টুকরো টুকরো করে তুরস্কের জঙ্গলে ফেলা হয় : সৌদি  » «  

নতুন স্মার্টকার্ড প্রকল্প পূণঃমূল্যানে পাঠিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন



নিউজ ডেস্ক::দেশের সকল ভোটারদের স্মার্টকার্ড দেয়ার লক্ষ্যে নেয়া ভোটার তালিকা প্রস্তুত এবং জাতীয় পরিচিতি সেবা প্রদানে টেকসই অবকাঠামো উন্নয়ন শীর্ষক নতুন প্রকল্প পূর্ণমূল্যানে জন্য ফেরত পাঠিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। সম্প্রতি ইসির সচিবের কাছে দুটি পর্যবেক্ষণ দিয়ে এ প্রকল্প ফেরত পাঠানো হয়। এদিকে নতুন এ স্মার্টকার্ড প্রকল্পের জনবল সরাসরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তর নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তাদের আন্দোলনে থাকা নির্বাচন কমিশনের উপসচিব মো. নুরুজ্জামান তালুকদারকে বদলি করায় কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, এ প্রকল্পের অসংগতী দূরীকরণ কমিটির আহবায়ক হওয়ায় তাকে শাস্তিমূলক এ বদলি করা হলো।এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন বলেন, প্রকল্প ফেরত পাঠানো হয়েছে বিষয়টি এমন নয়। এ প্রকল্পের বিষয়ে কিছু প্রশ্ন জানতে (কোয়ারি) চাওয়া হয়েছে। শিগগিরই এর জবাব দেয়া হবে। প্রকল্পের অসংগতী নিয়ে আন্দোলন করায় উপসচিবকে বদলির অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, এ অভিযোগ সঠিক নয়।

রুটিন কাজের অংশ হিসেবে কর্মকর্তাদের বদলি করা হয়। চলমান স্মার্টকার্ড প্রকল্প আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর ইনহ্যান্স একসেস টু সার্ভিসেস (আইডিইএ) এর মেয়াদ আগামী ডিসেম্বরে শেষ হওয়ায় গত ১৯ সেপ্টম্বর নতুন প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নয়া ভোটার তালিকা প্রস্তুত এবং জাতীয় পরিচিতি সেবা প্রদানে টেকসই অবকাঠামো উন্নয়ন শীর্ষক এ নতুন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৬১২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। পরে তা পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়।

জানা গেছে, সমীক্ষা না থাকা এবং অর্থ বিভাগের উন্নয়ন প্রকল্পের জনবল নির্ধারণ কমিটির সুপারিশ ছাড়া ডিপিপি তৈরি না করায় নতুন স্মার্ট কার্ড প্রকল্প ফেরত পাঠিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। এ বিষয়ে সম্প্রতি ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিবের কাঠে পাঠানো পরিকল্পনা কমিশনের সহকারি প্রধান গোলাম মো. বাতেন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়নি। এছাড়া এ প্রকল্পের মোট ২ হাজার ৩১জন কর্মকর্তা/কর্মচারির একটি জনবল প্রস্তাব করা হলেও এ বিষয়ে অর্থ বিভাগের উন্নয়ন প্রকল্পের জনবল নির্ধারণ কমিটির সুপারিশ গ্রহণ করা হয়নি।

এর অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্পটি অনুমোদন প্রক্রিয়াকরনের সুবিধার্থে প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই ও অর্থ বিভাগের এ সংক্রান্ত কমিটির সুপারিশসহ পুনরায় ডিপিপি পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানোর অনুরোধ করা হলো। ওই চিঠিতে ২৫ কোটি টাকার বেশি ব্যয়ের প্রকল্প গ্রহণের ক্ষেত্রে সমীক্ষা প্রতিবেদন থাকার বিষয়টিও স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়েছে।আরও জানা গেছে, নতুন এ প্রকল্পের ডিপিপিতে মেয়াদ শেষ হওয়ার পর কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বয়স শিথিল করে ইসিতে সরাসরি স্থানান্তর এবং ৬ষ্ঠ গ্রেডে জনবল পদায়ন নিয়ে ইসির কর্মকর্তা-কর্মচারিরা আন্দোলন গড়ে তোলেন।

তারা নতুন ডিপিপিতে এসব বৈষম্য দূর করার প্রস্তাবনা তৈরি করতে প্রকল্পের অসংগতী দূরীকরণ কমিটি গঠন করেন। ওই কমিটির আহবায়ক করা হয় ইসির উপসিচব মো. নুরুজ্জামান তালুকদার। এ আন্দোলনের কয়েকদিন পর গত ১০ অক্টোবর তাকে বদলি করে ফরিদপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা পদে বদলি করা হয়। ইসির কর্মকর্তাদের অভিযোগ, প্রকল্পের বৈষম্য নিয়ে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ায় তাকে শাস্তিস্বরুপ এ বদলি করা হয়। এ ঘটনায় নির্বাচন কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: