রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
চ্যারিটেবল মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল  » «   সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা; শিশু ও নারীসহ নিহত ৪৩  » «   থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা  » «   দু’দিনের মধ্যেই খাশোগি হত্যার পরিপূর্ণ তদন্ত রিপোর্ট : ট্রাম্প  » «   বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক  » «   বাড়িতে বাবার লাশ, পিএসসি পরীক্ষা দিতে গেল মেয়ে  » «   প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে সিলেটের স্বামীর আত্মহত্যা!  » «   খাশোগি হত্যা: যুক্তরাষ্ট্র-সৌদির নীল নকশা ও তুরস্কের উদ্দেশ্য  » «   দুই নম্বরি কেন ১০ নম্বরি হলেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে থাকবে: ড. কামাল  » «   বোরকার বিরুদ্ধে সৌদি নারীদের অভিনব প্রতিবাদ  » «   আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা  » «   সিডরে নিখোঁজ শহিদুল বাড়ি ফিরলেন ১১ বছর পর!  » «   ভাওতাবাজির জন্য সরকারকে গোল্ড মেডেল দেওয়া উচিৎ: ড. কামাল  » «   দিল্লির লাল কেল্লা দখলের হুমকি পাকিস্তানের!  » «   সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল  » «  

ধৈর্য ফুরিয়ে আসছে: ন্যাটোকে ট্রাম্প



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ন্যাটো সামরিক জোটের কয়েকটি দেশের কাছে চিঠি লিখে তাদেরকে প্রতিরক্ষা ব্যয় বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন। তিনি সতর্ক করে বলেছেন, এ ব্যাপারে আমেরিকার ধৈর্য ফুরিয়ে আসছে। এ খবর দিয়েছে পার্সটুডে।

গত মাসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ন্যাটো মিত্রদের কাছে ওই চিঠি পাঠিয়েছেন। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে জার্মানি, বেলজিয়াম, নরওয়ে এবং কানাডা। আগামী সপ্তাহে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ন্যাটো সামরিক জোটের শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, সম্মেলনকে ঘিরে এরইমধ্যে এক রকমের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অনেক দিন থেকেই অভিযোগ করে আসছেন যে, ন্যাটো জোটের অন্য দেশগুলো যথেষ্ট অর্থ দিচ্ছে না; ফলে আমেরিকাকে এ বোঝা বহন করতে হচ্ছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, ন্যাটো জোটের যেসব দেশর কাছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চিঠি দিয়েছেন তার প্রায় সবগুলোর ভাষা একই কিন্তু জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেলকে লেখা চিঠির ভাষা অনেক বেশি কঠোর। মারকেলকে ট্রাম্প বলেছেন, “প্রতিশ্রুতি মোতাবেক আপনি ন্যাটো জোটের ব্যয় না বাড়ানোর কারণে অন্যরাও ব্যয় বাড়ান নি; আপনাকে তারা রোল মডেল মনে করেন। এ বিষয়ে শুধুমাত্র মার্কিন সরকারের মধ্যে হতাশা কাজ করছে না বরং তা মার্কিন জনগণের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: