মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
আবরার নামে দুই মাসের মধ্যে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ: মেয়র আতিকুল  » «   সিলেটে যারা হলেন ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  » «   সালাম দিয়ে পার্লামেন্টে বক্তব্য শুরু করলেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী  » «   ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের শোকসভায় তোপের মুখে চেলসি ক্লিনটন  » «   রাজধানীতে বাসচাপায় বিইউপির ছাত্র নিহত, সড়ক অবরোধ  » «   সুনামগঞ্জে আ. লীগ নেতাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, আটক ৩  » «   বিয়ানীবাজারে পল্লবের অর্ধেক ভোটও পাননি নৌকার আতাউর  » «   উপজেলা নির্বাচন: গোলাপগঞ্জে কে পেলেন কত ভোট  » «   একতরফা নির্বাচন গণতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত: মাহবুব তালুকদার  » «   উপজেলা নির্বাচন: দ্বিতীয় ধাপের ভোট গ্রহণ শেষ, চলছে গণনা  » «   পুলিশ কেন জনগণের বন্ধু নয়?  » «   ভোটার শূন্য ভোটকেন্দ্রে, দোল খাচ্ছেন নিরাপত্তা কর্মীরা  » «   অসুস্থতার কারণে খালেদা জিয়ার গ্যাটকো মামলার শুনানি পিছিয়েছে  » «   বাংলা ভাষার বঙ্গবন্ধু’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   চাঁদপুরের ৫০০ বছরের পুরনো মসজিদ সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত  » «  

ধর্মান্তর করে বিয়ে, ভাই-বাবা-বন্ধুদের দিয়ে ধর্ষণ করাত স্বামী!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::‘লভ জিহাদ’-এর শিকার এক তরুণীকে ফেরানো হয়েছে ‘হিন্দু ধর্মে’। ভিনধর্মী এক যুবক ওই তরুণীকে জোর করে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করেছিল বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। হোম যজ্ঞের মাধ্যমে ফের সেই তরুণীকে হিন্দুধর্মে ফেরানো হয়েছে বলে খবর মিলেছে।

ভারতের উত্তর প্রদেশের আলিগড়ে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা গেছে, উত্তর প্রদেশের আলিগড় সিভিল লাইন থানা এলাকায় ২০০৮ সালে এই ধর্মান্তরের ঘটনা ঘটে। ইউসুফ নামে এক যুবক নিজের নাম ও ধর্মীয় পরিচয় গোপন করে স্থানীয় এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। ছেলেটি নিজেকে কবীর চৌহান বলে পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীকে বিয়ে করে। তাদের বিয়ের দেড় বছরের মাথায় একটি সন্তানও জন্ম নেয়। এর পরই ওই তরুণীকে ধর্মান্তরের জন্য চাপ দিতে থাকে ইউসুফ। খবর জি নিউজ।

এমনকি ইউসুফের দাদার সঙ্গে জোর করে নিকাহ হালালা করতে বাধ্য করা হয় ওই তরুণীকে। এটি মানতে রাজি না হলে অমানবিক শারীরিক নিগ্রহের শিকার হতে হয় তরুণীকে।

নিজের দাদার সঙ্গে হালালা করানোর পর ফের ওই তরুণীকে বিয়ে করেন ইউসুফ। অভিযোগ, এর পর শ্বশুর-সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করা হত ওই তরুণীকে। বার বার ধর্ষণের শিকার হতে হয় তাকে। শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে না-চাইলে ধর্ষণের ভিডিও তুলে তা ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিত ইউসুফ।

ইউসুফ মাত্র ২০০ টাকার বিনিময়ে বন্ধুদের দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করাত বলেও অভিযোগ রয়েছে। এই নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে অবশেষে স্থানীয় থানার দ্বারস্থ হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন ওই নারী। তবে পুলিশ এখনো অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি বলে জানা যায়।

শনিবার (৯ জুন) হিন্দু মহাসভার রাষ্ট্রীয় সচিব পূজা শকুন পাণ্ডের পৌরহিত্যে নির্যাতিতাকে ফের হিন্দু ধর্মে ফেরানো হয়।

আলিগড় শহরের পুলিশ সুপার অতুলকুমার শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, এ ঘটনার তদন্ত চলছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: