রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী‘আসল প্রশ্নফাঁসকারী তো শিক্ষক’  » «   আগামী ২০ ডিসেম্বর তৈমুরের জন্মদিন : চলছে রাজকীয় আয়োজন  » «   কার চাপায় যুবক নিহত  » «   বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু  » «   ঘন কুয়াশার কারণে ঢাকায় বিমান চলাচল বন্ধ  » «   হোটেলে যখন একা, তখন মেনে চলুন কিছু বিষয়!  » «   এবার মাত্র ২০০০ টাকার মধ্যে স্মার্টফোন  » «   আ’লীগের আলোচনা সভা বিকেলে  » «   অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «   মেয়েকে দিয়েই অন্য মেয়েদের ফাঁদে ফেলতেন এই বাবা!  » «   বিজয় দিবসে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমায় দগ্ধ ২  » «   ফ্রান্স দূতাবাসে বিজয় ও আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত  » «   সামান্য সেলফির জন্যই বিপদে পড়লেন দেশ সেরা সুন্দরী!  » «   ফিলিস্তিনি ধনকুবেরকে আটক করেছে সৌদি  » «   সেনা কর্মকর্তার বাসা থেকে কিশোরী গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার  » «  

দেশের সর্বত্রই এখন কম্পিউটার ব্যবহৃত হয়: প্রধানমন্ত্রী



নিউজ ডেস্ক::১৯৯৬ সালে যখন ক্ষমতায় এলাম তখন দেখি বিভিন্ন ফাইল টাইপরাইটারে টাইপ হয়ে আসত। সরকারি অফিসে কম্পিউটার থাকা সত্ত্বেও ব্যবহার হতো না। পিসি (পার্সোনাল কম্পিউটার) ছিল ‘ডেকোরেশন পিস।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি ক্ষমতায় এসে বিভিন্ন জনের সঙ্গে কম্পিউটারের ব্যবহার বৃদ্ধি নিয়ে কথা বলেছি। তাদের পরামর্শ নিয়ে কম্পিউটার পার্টসসহ নানা পার্টসের ট্যাক্স কমিয়েছি। এখন সব জায়গায় কম্পিউটারের ব্যবহার হয়।
বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দেশের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তিভিত্তিক প্রদর্শনী ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ সরকারের মন্ত্রী এমপিরা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশের ফলে আমাদের সামনে এক নতুন বিপ্লবের সুযোগ তৈরি হয়েছে। এই বিপ্লবের প্রধান রসদ হল তরুণ-তরুণী, যা আমাদের আছে।
স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে দেশের তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়ন ও সক্ষমতা তুলে ধরতে বুধবার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) বসছে দেশের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তিভিত্তিক প্রদর্শনী ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭।
ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭-এর আয়োজন করছে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। আয়োজনের সহযোগী হিসেবে থাকছে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি), বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়ার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্প।
এ ছাড়াও পার্টনার হিসেবে থাকছে বাক্য, বিসিএস, ই-ক্যাব, বিআইজেএফ, বিবিআইটি, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরাম এবং সিটিও ফোরাম।
চার দিনের এই প্রদর্শনী চলবে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার বস্তুনিষ্ট মতামত প্রকাশ করুন

টি মন্তব্য

সংবাদটি শেয়ার করুন

Developed by: